Saturday, 24 June, 2017 | ১০ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |
সংবাদ শিরোনাম
ঈদে নিরাপত্তায় মেট্রোপলিটন পুলিশের আহবান…  » «   কানাইঘাটে পরকীয়া সম্পর্কের জেরে যুবক খুন: মামলা দায়ের  » «   অর্থমন্ত্রীর ঈদ শুভেচ্ছা, সিলেটবাসীর কাছে দু:খ প্রকাশ  » «   গ্যাস সিলিন্ডার: বিস্ফোরনের ঘটনা বাড়ছে, ক্ষুব্ধ সিলেটবাসী  » «   খোয়াই নদীর কূল ধ্বসে দোকান-পাঠ নদীতে বিলীন হচ্ছে  » «   যে কারণে মাধবকুন্ডে পর্যটক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা  » «   দক্ষিণ সুরমায় ৪ জুয়াড়ি আটক  » «   গোলাপগঞ্জে যুবককে কুপিয়ে হত্যা  » «   সিলেটে আন্তর্জাতিক পাবলিক সার্ভিস দিবসে জেলা প্রশাসকের র‌্যালী ও আলোচনা  » «   সিলেটে আ. লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন  » «   সিলেটের ডাক বন্ধে অনলাইন প্রেসক্লাবের উদ্বেগ  » «   বালাগঞ্জ-ওসমানীনগরে পানিবন্দি দুই লক্ষাধিক মানুষ  » «   গৌরবের ৬৯ বছরে আওয়ামী লীগ  » «   মানে নয়, নামেই গলা কাটছে আড়ং  » «   রথযাত্রা উপলক্ষে সিসিকের ৬ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা অনুদান প্রদান  » «  
Advertisement
Advertisement

যারা রোজা রাখতে অক্ষম তাদের করণীয়

ইসলাম ডেস্ক: সাওম বা রোজা পালন করা আল্লাহর নির্দেশ। আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘হে ঈমানদারগণ! তোমাদের ওপর সাওম ফরজ করা হয়েছে, যেভাবে ফরজ করা হয়ছিল তোমাদের পূর্ববর্তীদের ওপর। সম্ভবত তোমরা তাকওয়াবান হবে। (সুরা বাকারা : আয়াত ১৮৩) এ আয়াতে আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহর জন্য রোজা ফরজ ইবাদত হিসেবে সাব্যস্ত করেছেন।

যারা রমজান মাসে রোজা পালনে অক্ষম। বেশি অসুস্থ, অনেক বয়স্ক, এমনকি দৈহিক দুর্বলতা এত বেশি যে রোজা রাখলে প্রাণহানির আশংকা থাকে। তাদের রোজা রাখার ব্যাপারেও আল্লাহ তাআলার সুস্পষ্ট বিধান রয়েছে।

তাদের রোজার ব্যাপারে আল্লাহ তাআলা কুরআনে উল্লেখ করেন, ‘ (যারা রোজা রাখতে অক্ষম) গণনার কয়েকটি দিনের জন্য অতঃপর তোমাদের মধ্যে যে, অসুখ থাকবে অথবা সফরে থাকবে, তার পক্ষে অন্য সময়ে সে রোজা পূরণ করে নিতে হবে।

আর এটি যাদের জন্য অত্যন্ত কষ্টদায়ক

হয়, তারা এর পরিবর্তে একজন মিসকীনকে খাদ্যদান করবে। যে ব্যক্তি খুশীর সাথে সৎকর্ম করে, তা তার জন্য কল্যাণ কর হয়। আর যদি রোজা রাখ, তবে তোমাদের জন্যে বিশেষ কল্যাণকর, যদি তোমরা তা বুঝতে পার।’ (সুরা বাকারা : আয়াত ১৮৪)

রোজা পালনে অক্ষম ব্যক্তির করণীয়:
যে বা যারা রোজা রাখতে অক্ষম। বয়সে প্রবীন বা গুরুত্বর অসুস্থ ব্যক্তি, যার সুস্থ হওয়ার তেমন কোনো সম্ভাবনা নেই; অথবা রোজা রাখলে প্রাণহানি ঘটতে পারে, এমন ব্যক্তির রোজা রাখার পরিবর্তে ফিদইয়া আদায় করা।

অক্ষম ব্যক্তির ফিদইয়া আদায়ের নিয়ম:
ইসলামি শরিয়তে ফিদইয়া হলো- একটি করে ‘সদকাতুল ফিতর’ বা তার সমপরিমাণ অর্থ একজন মিসকিনকে দান করা। অর্থাৎ ১ কেজি ৬৫০ গ্রাম আটা/গম বা তার সমপরিমাণ মূল্য গরিবদের দান করাই হলো রোজার ‘ফিদইয়া’। অথবা একজন ফকির বা মিসকিনকে দুই বেলা পেট ভরে পরিপূর্ণ খাবার খাওয়ানো বা খাবার দিয়ে দেয়া।

তবে স্মরণ রাখতে হবে যে,
এ অক্ষম বা অসুস্থ ব্যক্তি যদি রমজান পরবর্তী সময়ে সুস্থ হয়ে যায়, তবে ওই ব্যক্তি নিজেই তার রোজার কাযা আদায় করে নিবে।

ফিদইয়া অনাদায়ে মারা গেলে:-
অসুস্থ বা রোজা রাখতে অক্ষম ব্যক্তি যদি ফিদইয়া আদায় না করে মারা যায় এবং মৃত ব্যক্তি কর্তৃক রোজার ফিদইয়া আদায়ের ব্যাপারে অসিয়ত থাকে, তবে মৃত ব্যক্তির রেখে যাওয়া সম্পদ থেকে ফিদইয়া আদায় করা আবশ্যক হয়ে যাবে। আর অসিয়ত না থাকলে ফিদইয়া আদায় করা মুস্তাহাব।

যারা রোজা রাখতে অক্ষম এবং অসুস্থ ব্যক্তিদেরকে পরবর্তী সময়ে রোজা রাখতে বা রোজার ফিদইয়া আদায়ে কুরআনের বিধানের যথাযথ বাস্তবয়ন আবশ্যক।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে রোজা কাযা এবং ফিদইয়া আদায় করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

Developed by: