Wednesday, 18 October, 2017 | ৩ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |
সংবাদ শিরোনাম
কামরান এবং আরিফ দুই জন দুই দলে জনপ্রিয়  » «   মৌলভীবাজারে শোকের মাতম চলছে  » «   নগরবাসীকে সব ধরণের সেবা দিতে সিসিক অঙ্গীকারবদ্ধ: আরিফ  » «   জালালাবাদ রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সফলতা  » «   পরোয়ানা থাকলেই খালেদাকে গ্রেপ্তার করা হবে এটা ঠিক নয়: আইজিপি  » «   সিলেটে বুধবার থেকে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট  » «   মিয়াদ খুনের ঘটনায় সিলেটে ছাত্রলীগের চারদিনের কর্মসূচি  » «   মিয়াদের লাশ নিয়ে ছাত্রলীগের মিছিল, চৌহাট্টায় সড়ক অবরোধ  » «   ‘আমার মেয়ের মতো ইন্টারনেট আসক্ত যেন কেউ না হয়’  » «   সিলেটে ছাত্রলীগের গ্রুপিং: আর কত লাশ পড়বে?  » «   মুখে কৈ মাছ আটকে যুবকের মর্মান্তিক মৃত্যু  » «   কুয়েতে অগ্নিকাণ্ডে ৫ সিলেটির মৃত্যু  » «   মেয়রের নির্দেশে নামাজের সময় দোকানপাট বন্ধ  » «   ভূটানের রাষ্ট্রদূতের সাথে সিলেট চেম্বার নেতৃবৃন্দের মতবিনিময় অনুষ্ঠিত  » «   টিলাগড়ে ছাত্রলীগকর্মী খুন  » «  
Advertisement
Advertisement

রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে জাতিসংঘে মস্করা করলেন বার্মার ভাইস প্রেসিডেন্ট

দৈনিকসিলেটডেস্ক: জাতিসংঘে বিশ্বনেতাদের সামনে যেন মস্করা করলেন মিয়ানমারের ভাইস প্রেসিডেন্ট হেনরি ভ্যান থিও। তিনি বললেন, কি কারণে এত মানুষ দেশ ছেড়ে পালিয়ে গেছেন তার কারণ পরিষ্কার নয় তার কাছে।

তিনি আরো বলেছেন, বেশির ভাগ মুসলিমই (রোহিঙ্গা) তো দেশে রয়ে গেছেন। তবু তিনি ও তার সরকার এ সমস্যায় গভীরভাবে উদ্বিগ্ন বলে জানিয়েছেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

এতে বলা হয়েছে, জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনে ভাষণ দিয়েছেন হেনরি ভ্যান থিও। এ সময় তিনি বলেছেন, উল্লেখযোগ্য মাত্রার এ সমস্যার তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন। তার সরকারের অবস্থান আবারো তুলে ধরে তিনি বলেছেন, উত্তেজনার কারণ সম্পর্কে স্পষ্ট নন তারা। তার আগে রোহিঙ্গা সংকটকে গুরুত্বহীন করে দেখান দেশের কার্যত নেত্রী অং সান সুচি।

মঙ্গলবার তিনি জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণের পর আরো কড়া সমালোচনার মুখে পড়েছেন। কারণ, রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সেনাবাহিনীর নৃশংসতার অভিযোগের বিষয়ে তিনি একটি কথাও বলেন নি। বিশেষ করে সেখানে সেনাবাহিনীর নির্যাতনের শিকার বেশির ভাগ মুসলিম রোহিঙ্গা। এ কারণে তারা দলে দলে পালিয়ে আশ্রয় নিচ্ছেন বাংলাদেশে।

সুচি তার বক্তব্যে বলেছেন, রাখাইনের মুসলিমদের অর্ধেকের বেশি এখনো দেশেই আছেন। এখানে উল্লেখ্য, মিয়ানমার সরকার রোহিঙ্গাদেরকে রোহিঙ্গা বলে না। তারা তাদেরকে হয়তো মুসলিম না হয় বাঙালি বলে আখ্যায়িত করে। সুচিও সেই পথ অনুসরণ করেছেন।

সুচি দাবি করেছেন, ৫ই সেপ্টেম্বর থেকে কোনো সহিংসতা ঘটেনি। কোনো গ্রামে ক্লিয়ারেন্স অপারেশন চালানো হয়নি। কিন্তু তার এ বক্তব্যে বিশ্বজুড়ে সমালোচনা হয়েছে। সুচির এ বক্তব্যই যেন বুধবার তার ভাইস প্রেসিডেন্ট ভ্যান থিও’র মুখ দিয়ে উচ্চারিত হলো আবার।

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
দৈনিক সিলেট ডট কম
২০১১

উপদেষ্টা: ড.এ কে আব্দুল মোমেন
সম্পাদক: মুহিত চৌধুরী
অফিস: ২৬-২৭ হক সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজার সিলেট
মোবাইল : ০১৭১ ২২ ৪৭ ৯০০,  Email: dainiksylhet@gmail.com

Developed by: