Tuesday, 20 February, 2018 | ৮ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

Advertisement

যে ছেলেকে ৪৪ হাজার মেয়ের বিয়ের প্রস্তাব!

দৈনিকসিলেটডেস্ক:৪৪ হাজার বিয়ের প্রস্তাব! সংখ্যাটা রীতিমতো চমকে দেওয়ার মতোই। আর এই প্রস্তাব পেয়েছেন ভারতের বিহার রাজ্যের উপ-মুখ্যমন্ত্রী তেজস্বী যাদব। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হোয়াটসঅ্যাপের মেসেজ বক্সে ৪৪ হাজার মেয়ে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছে। একের পর এক বিয়ের প্রস্তাবে রীতিমত নাজেহাল অবস্থা লালু প্রসাদ – রাবড়ী দেবীর ছোট ছেলে তেজস্বীর। খবর ইন্ডিয়াটাইমসের।

যে কোনো প্রশাসনিক সমস্যা, রাস্তার বেহাল দশা কিংবা চিকিৎসা ক্ষেত্রে গাফিলতির সম্মুখীন হলে একটি নম্বরে হোয়াটসঅ্যাপ করে নিজেদের অভিযোগ দাখিল করার কথা রাজ্যবাসীকে বলেছিলেন তিনি৷ কিন্তু তাঁর এই উদ্যোগ উল্টো বিড়ম্বণায় ফেলে দিয়েছে মন্ত্রীকে৷

হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজে তিনি প্রশাসনিক সমস্যার অভিযোগের পরিবর্তে পেলেন বিয়ের প্রস্তাব৷ একটি কিংবা দু’টি নয়৷ রীতিমতো ৪৪ হাজার বিবাহ প্রস্তাব পেলেন লালু প্রসাদ যাদবের ছেলে তেজস্বী৷ অনুপমা, প্রিয়া, কাঞ্চন, দেবিকার মতো বহু নারীই মন্ত্রীকে প্রেম এবং বিবাহ প্রস্তাব দিয়েছেন৷ আর খুব আশ্চর্যভাবেই তাঁরা ভেবেছেন এই হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজগুলি বুঝি সোজা গিয়ে তাঁদের স্বপ্নের পুরুষের কাছে পৌঁছাবে৷ কিন্তু বাস্তবে স্বভাবতই এমনটা হয়নি৷ তাঁদের পাঠানো এই বার্তা গিয়ে তাঁর দফতরের কর্মীর হাতে পৌঁছেছে৷ আর এই বার্তার খবর প্রকাশ্যে আসতেই হাসির রোল উঠেছে চারদিকে৷

জানা গেছে ওই হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরে মোট ৪৭ হাজার বার্তা এসেছে৷ কিন্তু তার মধ্যে ৪৪ হাজার বার্তাই বিয়ের প্রস্তাব৷ মাত্র ৩ হাজার বার্তা অভিযোগ সংক্রান্ত।

বিহারে আরজেডি–জেডিইউ মহাজোট ক্ষমতায় আসার পর উপ মুখ্যমন্ত্রী করা হয় ২৬ বছর বয়সী তেজস্বীকে। আরজেডি প্রধান লালুপ্রসাদের চোখের মণি ছোট ছেলে তেজস্বী। তিনি মনে করেন বড়ভাই তেজপ্রতাপের থেকেও তেজস্বীর রাজনৈতিক বিচক্ষণতা বেশি। তাকে ক্রিকেটার বানাতে চেয়েও চেষ্টা চালিয়েছিলেন লালুপ্রসাদ। তবে বেশিদূর এগোতে পারেননি নবম শ্রেণী উত্তীর্ণ তেজস্বী।

সুন্দরীদের আগ্রহের কথা শুনে মজা করে তেজস্বী বলেছেন, ঈশ্বরকে ধন্যবাদ, আমি এখনো একা রয়েছি। তবে এত নারীর আগ্রহ থাকলে বিয়েতে সমস্যা হতে পারে।

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
দৈনিক সিলেট ডট কম
২০১১

সম্পাদক: মুহিত চৌধুরী
অফিস: ২৬-২৭ হক সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজার সিলেট
মোবাইল : ০১৭১ ২২ ৪৭ ৯০০,  Email: dainiksylhet@gmail.com

Developed by: