Friday, 21 September, 2018 | ৬ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
Advertisement

পিএসজি’র স্বপ্ন `রাইন’ নদীতে ভেসে গেলো

দৈনিকসিলেটডেস্ক: প্যারিসে তখন রাত্রির প্রথম ভাগ। কেবল জাগতে শুরু করেছে প্যারিস। মাথা তুলে দাঁড়িয়ে থাকা আইফেল টাওয়ার আলোর ঝলকানিতে হাঁসতে শুরু করেছে। কিন্তু পিএসজির মুখে সে হাঁসি ফুটলো না। নেইমার বিহীন পিএসজি’র ঘরের মাঠে জেতার যে আশা টুকুন ছিল তাতে বাধ সাধল রোনালদো-কাসিমিরোরা। দ্বিতীয়ার্ধের সবে ছয় মিনিট। রিয়াল মাদ্রিদের দারুণ এক কাউন্টার অ্যাটাক। ভাসকেসের মাপা ক্রসে রোনালদোর হেড এবং রিয়ালের ১-০ গোলের লিড। পরে ৮১ মিনিটে কাসেমিরোর আরেক গোল।

৭১ মিনিটে এডিনসন কাভানি পিএসজির দুই মাথা বদল হয়ে আসা জটলার মধ্যে থেকে একটা গোল করলেও দলের জন্য তা যথেষ্ঠ ছিল না। দুই লেগ মিলিয়ে ৫-২ গোলের বড় ব্যবধানে জিতে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে লস ব্লাঙ্কোসরা। আর পিএসজির ইউরোপের সেরা হবার স্বপ্ন ইউরোপেরই দীর্ঘতম রাইন নদীতে ভাসিয়ে দিয়েছে রোনালদো-বেনজেমা, কাসেমিরো-মার্সেলোরা।

মাঠে অবশ্য দু’দলই সমানে দৌঁড়ে বেড়িয়েছে।সমান ৫০ শতাংশ বল রেখেছে দখলে। কিন্তু চ্যাম্পিয়ন লিগের জন্মগত ফেবারিট যে রিয়াল তা প্রমাণ করেছে বার বার গোলে শট নিয়ে। পুরো ম্যাচে গোল মুখে ২২টি শট নিয়েছে জিদানের শিষ্যরা। আর প্যারিসের শট আটটি। তবে এমিরির দলের জন্য বড় ধাক্কা ম্যাচের ৬৬ মিনিট। দ্বিতীয় লাল কার্ড দেখে ভেরাত্তি মাঠ ছাড়লে বিপদেই পড়ে যায় পিএসজি।

প্রথমার্ধের ৩৪ মিনিটে মার্সেলোর বাড়ানো দারুণ এক বলে গোল করার সুযোগ পায় রিয়াল মাদ্রিদ।কিন্তু অফ ফর্মে থাকা বেনজেমা সুযোগটি কাজে লাগাতে পারেননি। এর একটু পরেই ৩৮ মিনিটে ডি মারিয়ার গোলের লক্ষ্যে নেওয়া শট দুর্দান্তভাবে আটকে দেয় রিয়াল গোলরক্ষক কেইলর নাভাস। প্রথমার্ধের শেষ বাশি বাজার আগে অবশ্য গোল করার সব থেকে ভালো সুযোগটা পায় পিএসজি। কিন্তু কাভানিকে ক্রস না নিয়ে সরাসরি গোলে মেরে ভুল করে পিএসজির তুরুণ তুর্কি এমবাপ্পে।

দ্বিতীয়ার্ধেও গোল করার সমান প্রচেষ্টা চালিয়ে গেছে দু’দল। ৭১মিনিটে কাভানি এবং ৮১ মিনিটে কাসিমিরোর গোল ব্যাতিত আর জালে বল জড়ায়নি। রিয়াল কোচ জিনেদিন জিদান অবশ্য কৌশলগতভাবে দারুণ এক ম্যাচ খেলেছেন। বেল-ইসকোকে বসিয়ে রেখে প্রথমার্ধে রিয়াল কোচ মাঠে নামান অ্যাসেনসিও ও ভাসকেসকে। শেষের দিকে অবশ্য বেনজেমাকে তুলে নিয়ে বেল এবং অ্যাসেনসিও’র বদলে ইসকোকে মাঠে নামান। কিন্তু তার চেয়ে বড় কথা হলো দলের সেরা দুই মিডফিল্ডার লুকা মডরিচ-টনি ক্রুসকে বসিয়ে রেখেও এমন জয় তুলে নেওয়া।জিদান প্রমাণ করেছে তার হাতে সবসময় কত অপশন থাকে।

রিয়ালের অন্যতম তারকা রোনালদো আছেন ফর্মের তুঙ্গে। চলতি মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন লিগে সবকটি ম্যাচে গোল করেছেন পর্তুগিজ এই যুবরাজ। চ্যাম্পিয়ন লিগে ৮ ম্যাচ খেলে করেছেন ১২ গোল। আর রিয়াল মাদ্রিদ গত আট মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার কীর্তি গড়েছে। অপরদিকে পিএসজি গত চার মৌসুম শেষ ষোলো থেকে বিদায় নিয়েছে।

সর্বশেষ সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
দৈনিক সিলেট ডট কম
২০১১

সম্পাদক: মুহিত চৌধুরী
অফিস: ২৬-২৭ হক সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজার সিলেট
মোবাইল : ০১৭১ ২২ ৪৭ ৯০০,  Email: dainiksylhet@gmail.com

Developed by: