Wednesday, 19 December, 2018 | ৫ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
Advertisement

বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ নিয়ে লিডিং ইউনিভার্সিটিতে আলোচনা সভা

দৈনিকসিলেটডটকম: বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর “ইন্টারন্যাশনাল মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড রেজিস্টার”-এ অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে “বিশ্বপ্রামান্য ঐতিহ্যের” স্বীকৃতি উপলক্ষে লিডিং ইউনিভার্সিটিতে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখছেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. কামরুজ্জামান চৌধুরী

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর “ইন্টারন্যাশনাল মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড রেজিস্টার”-এ অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে “বিশ্বপ্রামান্য ঐতিহ্যের” স্বীকৃতি উপলক্ষে সিলেটের স্বনামধন্য প্রথম বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় লিডিং ইউনিভার্সিটিতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের হলরুমে ০৭ মার্চ ২০১৮ বুধবার অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. কামরুজ্জামান চৌধুরী। এতে সভাপতিত্ব করেন ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডীন প্রফেসর মো. নজরুল ইসলাম এবং উপস্থাপনায় ছিলেন ইংরেজী বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রুম্পা শারমীন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে লিডিং ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ কামরুজ্জামান চৌধুরী বলেন, হাজার বছরের শেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন শান্তির পক্ষে সোচ্চার একজন ব্যক্তিত্ব। তাঁর ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কুর “ইন্টারন্যাশনাল মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড রেজিস্টার”-এ অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে “বিশ্বপ্রামান্য ঐতিহ্যের” স্বীকৃতি লাভ করায় আমরা গর্বিত। এই ঐতিহাসিক ভাষণটি তৎকালিন সমগ্র বাঙ্গালী জাতিকে স্বাধীনতা সংগ্রামে উজ্জীবিত করেছিল, শক্তি যোগিয়েছিল পাক হানাদারদের কবল থেকে দেশকে মুক্ত করার। বঙ্গবন্ধুর এই ঐতিহাসিক ভাষণই প্রেরণা যোগিয়েছে বাংলাদেশকে বিশ্বের কাছে পরিচিত করার এবং উন্নতির পথে এগিয়ে নেয়ার। এ ভাষণকে পাঠক্রমে অন্তর্ভূক্ত করার দাবী জানান। তাহলে এ ভাষণে আগামী নের্তৃত্বের যে দিক-নির্দেশনা আছে তা বর্তমান তরুন প্রজন্মকে সঠিকভাবে দেশ ও জাতির উন্নয়নের জন্য কাজ করার অনুপ্রেরণা দিবে।
১৯৭১ সালের ৭ই মার্চের ভাষণকে বাংলাদেশের জন্য একটি গৌরবময় ভাষণ এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে একজন উচ্চমান রাস্ট্রনায়ক উল্লেখ করে উক্ত আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন লিডিং ইউনিভার্সিটির সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন ও ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. এস. এম. আলী আক্কাস, কলা ও আধুনিক ভাষা অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. গাজী আব্দুল্লাহেল বাকী, আধুনিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. মুহাম্মদ হাবিবুল আহসান, ইংরেজী বিভাগের ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় প্রধান ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের প্রভাষক আনোয়ার আহমেদ আরিফ ও শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ ওয়াহিদ চৌধুরী। বক্তারা বলেন, জাতির জনকের এ ভাষণ এটি একটি স্বত:স্ফুর্ত ভাষণ, এতে ছিল বঞ্চণার প্রেক্ষাপট, ছিল অসহযোগ আন্দোলনের ডাক ও রাজনৈতিক দূরদর্শিতা, এটি একটি অনন্য ভাষণ।
উক্ত আলোচনা সভায় শোভাযাত্রায় লিডিং ইউনিভার্সিটিরশিক্ষক, কর্মকর্তা, ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মচারীবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। বিজ্ঞপ্তি

 

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
দৈনিক সিলেট ডট কম
২০১১

সম্পাদক: মুহিত চৌধুরী
অফিস: ২৬-২৭ হক সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজার সিলেট
মোবাইল : ০১৭১ ২২ ৪৭ ৯০০,  Email: dainiksylhet@gmail.com

Developed by: