Monday, 18 June, 2018 | ৪ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

Advertisement

লবণমিশ্রিত পানি দিয়ে গার্গল করার উপকারিতা

দৈনিকসিলেটডেস্ক: গবেষণা বলছে, লবণমিশ্রিত পানি দিয়ে গার্গল বা কুলকুচা করা স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারী। লবণমিশ্রিত পানি সল্ট ব্যারিয়ার তৈরির মাধ্যমে মুখ গহ্বরের টিস্যু থেকে পানি ও ক্ষতিকর জীবাণু টেনে বের করে। লবণমিশ্রিত পানি দিয়ে কুলকুচা করলে ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়ার জন্য প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয় ফলে মুখ এবং গলায় সংক্রমণের ঝুঁকি অনেকটা কমে যায়।

একনজরে লবণমিশ্রিত পানির কয়েকটি উপকারিতা

লবণ-পানি দিয়ে কুলকুচা করলে গলা ব্যথা কমে যায়। গলা ভেঙে গেলেও এটি কাজে আসবে।

সাইনাসে সংক্রমণ হলে সাইনোসাইটিস হয়। এছাড়া শ্বসনতন্ত্রেও সংক্রমণ হয়, যেমন আপার রেসপিরেটরি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন ও লোয়ার রেসপিরেটরি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন৷ লবণমিশ্রিত পানি ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়ার জন্য প্রতিবন্ধক হওয়ায় এসব সংক্রমণ বা ইনফেকশনের হার কমায়। ২০১৩ সালে পরিচালিত ‘নন-মেডিকেল প্রিভেনশন মেথডস্ অব ফ্লু’ গবেষণায় দেখা গেছে, ফ্লু এর ক্ষেত্রে পুনরায় সংক্রমিত হওয়া প্রতিরোধ করতে পারে লবণমিশ্রিত পানি।

মাড়ির সুরক্ষায় লবণমিশ্রিত পানি দিয়ে কুলকুচা করতে পারেন। এটি দাঁতে গর্ত (ক্যাভিটি)ও মাড়িতে প্রদাহের (জিঞ্জিভাইটিস) বিরুদ্ধেও উপকারী। মুখের লালা থেকে ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা হ্রাস করে লবণ-পানি।

যেভাবে এই মিশ্রণ তৈরি করবেন
প্রতি ৮ আউন্স পানিতে (১আউন্স=প্রায় ২৯.৫৭৪ মিলিলিটার) ১/২ চা চামচ লবণ মিশিয়ে নিন। কুসুম গরম পানি নেবেন অবশ্যই।
গার্গল করার নিয়ম
লবণমিশ্রিত পানি যতক্ষণ সম্ভব গলায় নিয়ে গার্গল করুন। এরপর পানি মুখ ও দাঁতের ফাঁক দিয়ে কুলকুচা করে ফেলে দিন। লবণ-পানি যেন বেশি পরিমাণে পেটে চলে না যায়। কারণ এতে ডিহাইড্রেশন, ক্যালসিয়াম ঘাটতি ও উচ্চ রক্তচাপ দেখা দিতে পারে।

তথ্যসূত্রঃ ডক্টর এনডিটিভি

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
দৈনিক সিলেট ডট কম
২০১১

সম্পাদক: মুহিত চৌধুরী
অফিস: ২৬-২৭ হক সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজার সিলেট
মোবাইল : ০১৭১ ২২ ৪৭ ৯০০,  Email: dainiksylhet@gmail.com

Developed by: