Monday, 10 December, 2018 | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
Advertisement

আফ্রিকান দম্পতির ইসলামে ধর্মান্তরিত হওয়ার রোমাঞ্চকর কাহিনী

দৈনিকসিলেটডেস্ক: দক্ষিণ আফ্রিকার নাগরিক লাইকা লুইস (৩০)। ২০১১ সালে চাকরির জন্য দুবাইয়ে আসেন। এখানে এসে তিনি তার একজন পুরনো বন্ধুর দেখা পান। ২০১৮ সালে তারা উভয়েই ইসলামে ধর্মান্তরিত হন এবং বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।

দক্ষিণ আফ্রিকার কেপ টাউন থেকে সরাসরি দুবাইতে নিয়োগ লাভের জন্য আমি আমার নিজেকে বেশ সৌভাগ্যবান মনে করছি।

আমি ২০১১ সালের মে মাসে একটি নিয়োগ সংস্থার মাধ্যমে অনলাইনে চাকরির জন্য আবেদন করি। তারপর আমাকে দুবাইয়ের বিখ্যাত এক তারকা ‘মিকেলিন’ রেস্তোরাঁয় একজন জুনিয়র হোস্টেজ হিসেবে নির্বাচিত করা হয়েছিল।

দুবাইতে আমার রোমাঞ্চকর যাত্রা শুরু করার জন্য ২০১১ সালের নভেম্বরে আমি কেপ টাউন থেকে মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটির উদ্দেশ্যে উড়াল দেই।

দুই বছর আগে দুবাইয়ে আমার পুরনো বন্ধু (এখন স্বামী) লুইস ক্যারেনোর সঙ্গে আমার সাক্ষাৎ হয়। তার সঙ্গে আমার ওই সাক্ষাৎকে সৌভাগ্যবানই বলব। কেননা ইসলামে তার আগ্রহ আমাকেও ইসলামের পথে পরিচালিত করে। এটি আমাকে ইসলামকে আবিষ্কার ও বুঝতে সহায়তা করেছে।

২০১৮ সালের জানুয়ারিতে আমরা উভয়েই ইসলামে ধর্মান্তরিত হই। লুইস আমাকে কোরআনের বিভিন্ন আয়াত এবং এ বিষয়ে একাধিক আলোচনার মাধ্যমে ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে অনেক বিস্ময়কর তথ্য দেন।

এর আগে, আমি ধর্মের প্রতি খুব বেশি আগ্রহী ছিলাম না। এছাড়াও, মিডিয়াতে ইসলাম সম্পর্কে অনেক নেতিবাচক খবরে অভ্যস্ত ছিলাম। কিন্তু লুইসের সঙ্গে অনেক আলোচনা ও অধ্যয়নের পর আমার ভুল ধারণা ভাঙ্গে। আমি ইসলামে ধর্মান্তরিত হতে পেরে নিজেকে অত্যন্ত ভাগ্যবান মনে করছি।

ইসলাম সম্পর্কে আরও শিখতে, ইসলামের সৌন্দর্য অনুধাবন ও মুসলিম হওয়ার প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে আরো অধিক সংখ্যক মানুষ আগ্রহী হবেন বলে আমি আশা করছি।

আমি প্রায় ৭ বছর ধরে দুবাইয়ে আছি। আমি রমজান সম্পর্কে জানি। আমি সর্বদা পবিত্র এই মাসটি ও রোজাদারদের সম্মান করি। একজন মুসলিম হিসেবে রোজা পালন আমার জীবনে একটি দারুন অভিজ্ঞতা।

আমি আপনাকে বলতে পারি যে এটি একটি কঠিন অভিজ্ঞতা। পবিত্র মাসটির গুরুত্ব সম্পর্কে রোজা স্পষ্টভাবে আমার চোখকে খুলে দিয়েছে। আমি আমার জীবনের প্রথম পবিত্র মাসটির সবকটা রোজা সমাপ্তির জন্য উন্মুখ হয়ে আছি এবং প্রতি বছর তা অব্যাহত রাখতে চাই।

আমি সবসময় তিনটি বিষয়ে কারো সঙ্গে আলোচনা করতে অপছন্দ করতাম। এগুলো হচ্ছে – ধর্ম, ইতিহাস এবং রাজনীতি। কিন্তু আমি জানতাম না যে, ধর্মীয় আলোচনার মাধ্যমেই আল্লাহ আমাদের জন্য বিস্ময়কর কিছু রেখেছেন।

আল্লাহর একজন সেবিকা হিসেবে তার অবিশ্বাস্য পথে আমাকে পরিচালিত করার জন্য আমি আল্লাহর কাছে সর্বদা ঋণী।

এই রমজানে আমি সবাইকে যে বার্তাটি দিতে চাই তা হলো- আপনার নিজেদের জন্যই ইসলামিক কেন্দ্রে আসুন এবং ইসলাম সম্পর্কে শিখুন। আপনার ধর্মীয় দৃষ্টিভঙ্গি যাইহোক না কেন, তা কোনো সমস্যা নয়।

দুবাই ভিত্তিক ‘খালিজ টাইমস’ অবলম্বনে

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
দৈনিক সিলেট ডট কম
২০১১

সম্পাদক: মুহিত চৌধুরী
অফিস: ২৬-২৭ হক সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজার সিলেট
মোবাইল : ০১৭১ ২২ ৪৭ ৯০০,  Email: dainiksylhet@gmail.com

Developed by: