Monday, 15 October, 2018 | ৩০ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
Advertisement

বন্ধু হিগুয়েইনকে তাড়িয়েই দিলেন রোনালদো!

দৈনিকসিলেটডেস্ক:  প্রত্যাশার অনেক বড় ছবি এঁকে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে কিনে এনেছে জুভেন্টাস। রোনালদো সেই প্রত্যাশার কতটা পূরণ করতে পারবেন সেটা পরেরা বিষয়। তবে জুভেন্টাসে পা রেখেই একটা কাজ সেরে ফেললেন পর্তুগিজ সুপারস্টার। জুভেন্টাস-ছাড়া করলেন প্রিয় বন্ধু গঞ্জালো হিগুয়েইনকে! এক দরজা দিয়ে ঢুকেছেন রোনালদো। তার প্রবেশ দেখে অন্য দরজা দিয়ে বেরিয়ে গেলেন হিগুয়েইন। না, এখনো আনুষ্ঠানিক চুক্তি হয়নি। তবে আলোচনা পাক্কা-জুভেন্টাস ছেড়ে আর্জেন্টাইন তারকা পাড়ি জমাচ্ছেন এসি মিলানে।

আপাতত এক বছরের জন্য ধার চুক্তিতে মিলানে যোগ দিচ্ছেন তিনি। সেজন্য মিলান ১৮ মিলিয়ন ইউরো দেবে জুভেন্টাসকে। তবে শর্ত রাখা হয়েছে, এক বছর পর মিলান চাইলে হিগুয়েইনের সঙ্গে স্থায়ী চুক্তিও করতে পারবে। সেক্ষেত্রে মিলানকে বাড়তি ৩৬ মিলিয়ন পরিশোধ করতে হবে।

স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য এরই মধ্যে তুরিন থেকে মিলানে উড়ে গেছেন হিগুয়েইন। স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর আজ-কালের মধ্যেই হয়ে যাবে আনুষ্ঠানিক চুক্তি।

রোনালদো সেদিন জুভেন্টাসের সঙ্গে চুক্তি করেন, সেদিন থেকেই আলোচনাটা উঠে আসে-তবে কি জুভেন্টাসের ভাত ফুরিয়ে গেছে হিগুয়েইনের জন্য? জুভেন্টাস কি আর্জেন্টাইন তারকাকে বিক্রিই করে দেবে? আসলে দুটি বিষয়কে সামনে রেখে হিগুয়েইনকে সম্ভাব্য বলির পাঠা হিসেবে দেখে গণমাধ্যম। এক. হিগুয়েইনের পজিশন। দুই. আর্থিক বিষয়।

হিগুয়েইন নিখাঁদ স্ট্রাইকার। কিন্তু দিনে দিনে রোনালদোও ‘নাম্বার ৯’ হয়ে উঠছেন। জুভেন্টাসের আক্রমণভাগের খেলোয়াড়দের পজিশনভিত্তিকে গবেষণায় ফুটবল বোদ্ধাদের রায়-বিয়ানকোনেরিদের হয়ে ‘নাম্বার ৯’ বা খাঁটি স্ট্রাইকার হিসেবেই খেলবেন রোনালদো! তাকে মাঝে রেখে জুভেন্টাসের সম্ভাব্য আক্রমণভাগের ফরমেশন সাজানোর চেষ্টাও করেছে গণমাধ্যম। তাতে তার ডানে-বামে কখনো ডগলাস কস্তা, কখনো মারিও মানজুকিচ, আবার কখনো বা পাওলো দিবালাকে রাখা হয়েছে। কিন্তু রোনালদোর সাবেক সতীর্থ হিগুয়েইনকে কোনো ফরমেশনেই রাখা হয়নি!

ব্যাপারটি আরও ভালো করে বুঝতে পারেন হিগুয়েইন নিজে। বন্ধু রোনালদো যোগ দেওয়ার পরই আর্জেন্টাইন তারকা বুঝে যান, জুভেন্টাসের শুরুর একাদশে তার আর জায়গা হবে না। বেশির ভাগ ম্যাচই তাকে কাটাতে হবে বেঞ্চের বাইরে বসে। তাই তিনিই সিদ্ধান্ত নেন, জুভেন্টাস ছেড়ে মিলানে পাড়ি জমানোর। জুভেন্টাস তার ইচ্ছায় বাধ সাধেনি। বরং আর্থিক বিষয় বিবেচনা করে সর্বোচ্চ মর্যাদা দিয়েছে।

৩৩ বছর বয়সী রোনালদোকে উচ্চ বেতনে কিনে এনেছে জুভেন্টাস। তরিনের ক্লাবটিতে রোনালদোর বার্ষিক বেতন ধরা হয়েছে ৩০ মিলিয়ন ইউরো। অন্যানৗ সব কিছু মিলে পর্তুগিজ তারকার পেছনে জুভেন্টাসের বছরে খরচ হবে ৬০ মিলিয়ন ইউরো। স্বাভাবিকভাবেই অঙ্কটা ক্লাবের ব্যয় বাজেটে বড় প্রভাব ফেলবে। এটা সমন্বয়ের জন্য হিগুয়েইনই ছিলেন সবচেয়ে বড় হাতিয়ার।

কারণ, এতোদিন জুভেন্টাসে সর্বোচ্চ বিতনে ছিল এই আর্জেন্টাইন তারকারই। তাকে অন্য ক্লাবে পাঠিয়ে খরচের সেই অঙ্কটা সেভ করতে চেয়েছে জুভেন্টাস। পাশাপাশি ধার চুক্তির সুবাদে বাড়তি ১৮ মিলিয়ন ইউরোও ক্লাব তহবিলে জমা হচ্ছে। বছর শেষে মিলান স্থায়ী চুক্তি করলে জুভেন্টাসের তহবিলে উঠবে আরও ৩৬ মিলিয়ন। ৩০ বছর বয়সী পড়তি ফর্মের এক তারকার জন্য অঙ্কটা মন্দ নয়! তাই জুভেন্টাস হিগুয়েইনের ক্লাব ছাড়ার ইচ্ছাকে প্রাধান্য দিয়েছে।

শুধু হিগুয়েইনের বিষয়টিই নয়। মিলান-জুভেন্টাস একটি বিনিময় চুক্তিতেও সম্মত হয়েছে। মানে লিওনার্দো বোনাচ্চি ও মাত্তিয়া কালদারার অদলবদল চুক্তি করছে। গত মৌসুমে বোনাচ্চিকে ধারে মিলানে পাঠিয়েছিল জুভেন্টাস। বর্ষিয়ান এই ডিফেন্ডারকে ফিরিয়ে আনছে জুভেন্টাস। তার বিনিময়ে তারা কালদারাকে দিচ্ছে মিলানকে।




© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
দৈনিক সিলেট ডট কম
২০১১

সম্পাদক: মুহিত চৌধুরী
অফিস: ২৬-২৭ হক সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজার সিলেট
মোবাইল : ০১৭১ ২২ ৪৭ ৯০০,  Email: dainiksylhet@gmail.com

Developed by: