Sunday, 16 December, 2018 | ২ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
Advertisement

গ্রেনেড হামলার মামলায় রায়ে সন্তোষ-র‌্যালি নিউইয়র্কে

এনআরবি নিউজ, নিউইয়র্ক থেকে : গ্রেনেড হামলার মাস্টারমাইন্ড তারেক রহমানের মৃত্যুদন্ড না হওয়ায় পুরোপুরি সন্তুষ্ট নন যুক্তরাষ্ট্রে আওয়ামী পরিবার। তবে বিলম্বে হলেও জঘন্যতম ঐ হত্যাযজ্ঞের বিচার হওয়ায় বাংলাদেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় ক্ষমতাসীন সরকারের আন্তরিকতার স্পষ্ট প্রমাণ মিললো।
রায় ঘোষণার পরই নিউইয়র্ক সময় বুধবার প্রথম প্রহরে মহানগর আওয়ামী লীগের ব্যানারে নেতা-কর্মীরা উল্লাস করেন। জ্যাকসন হাইটসের রাস্তায় এ উল্লাসে অনেকে অশ্রুসিক্ত হন আইভি রহমানসহ নিহতদের কথা স্মরণ করে। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে নিধনের অভিপ্রায়ে বাংলাদেশে এমন নৃশংসতার যাতে পুনরাবৃত্তি না ঘটে, সেজন্যে এই হামলার মাস্টারমাইন্ড হিসেবে চিহ্নিত তারেক রহমানের সর্বোচ্চ শাস্তি হওয়া উচিত ছিল বলে মন্তব্য করেন নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী। জাকারিয়া বলেন, ‘আইনের শাসনের ক্ষেত্রে এ এক বিরাট অগ্রগতি। এখন প্রয়োজন হচ্ছে পলাতক তারেক রহমানসহ অন্যদের বাংলাদেশে ফিরিয়ে নিয়ে রায় কার্যকর করার।’ এ সময় পরস্পরকে মিষ্টি খাইয়ে আনন্দ ভাগাভাগি করেন।
এ আনন্দ-র‌্যালি পরিচালনা করেন সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খায়রোল ইসলাম খোকন। নেতৃবৃন্দের মধ্যে ছিলেন মহানগরের সহ-সভাপতি মাসুদ হোসেন সিরাজি, আবুল হোসেন এবং মোহাম্মদ আলমগীর মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক শিবলী সাদিক, মাহফুজ আহমেদ, সুমন মাহবুব, তথ্য সম্পাদক রাজ চৌধুরী, নির্বাহী সদস্য জাকারিয়া মাসুদ এনাম, ফখরউদ্দিন, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ড. মহসিন আলী, ড. প্রদীপ কর, দফতর সম্পাদক মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, যুক্তরাষ্ট্র ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জেড চৌধুরী জয়, যুক্তরাষ্ট্র স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি দরুদ মিয়া রনেল, যুগ্ম সম্পাদক নাফিউর রহমান তোরণ, যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের আহবায়ক শেখ জামাল হোসেন, যুগ্ম আহবায়ক সেবুল মিয়া, যুবলীগ নেতা এস হোসেন চঞ্চল প্রমুখ।
যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতেও এ রায়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। অসন্তোষ প্রকাশ করেছে মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগ। রায় জানার পরই প্রদত্ত এক বিবৃতিতে মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগ নেতারা বলেন, বর্বরোচিত ও নৃশংস গ্রেনেড হামলার মাস্টারমাইন্ড তারেক রহমানের সর্বোচ্চ শাস্তি ক্যাপিটাল পানিশমেন্ট হওয়া উচিত ছিল।’
নেতৃবৃন্দ বলেন, দীর্ঘ প্রায় ১৪ বছর পর এই নৃশংস গ্রেনেড হামলার বিচার হলো যার প্রাইম টার্গেট ছিলেন তৎকালীন বিরোধী দলের নেতা এবং বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। তাকে টার্গেট করেই এই হামলা চালানো হয়েছিল। এই হামলার মাস্টার মাইন্ড ছিলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপার্সন তারেক রহমান। হাওয়া ভবন থেকে এই হামলার পরিকল্পনা হয়েছিল।
বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগ সভাপতি সাদেক খান, ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আনোয়ার হোসাইন, সিনিয়র সহ সভাপতি শিব্বীর আহমেদ, সহ সভাপতি জি আই রাসেল, সহ সভাপতি জুয়েল বড়–য়া, সহ সভাপতি মজিবুর রহমান খান, সহ সভাপতি বদরুল আলম, সহ সভাপতি আকতার হোসাইন, সাধারন সম্পাদক মাহমুদুন নবী বাকী, যুগ্ম সম্পাদক হারুনুর রশীদ, যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর সোহেল, যুগ্ম সম্পাদক মনির পাটোয়ারী, সাংগঠনিক সম্পাদক নারায়ন দেবনাথ, প্রচার সম্পাদক শামীম হায়দার প্রমুখ।

 

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
দৈনিক সিলেট ডট কম
২০১১

সম্পাদক: মুহিত চৌধুরী
অফিস: ২৬-২৭ হক সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজার সিলেট
মোবাইল : ০১৭১ ২২ ৪৭ ৯০০,  Email: dainiksylhet@gmail.com

Developed by: