Friday, 19 April, 2019 | ৬ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |
Advertisement

নিউইয়র্কের কর্মস্থলে ধর্মীয় পোষাক ব্যবহারের বিল পাশের কৃতজ্ঞতা র‌্যালি

এনআরবি নিউজ, নিউইয়র্ক থেকে : ‘ঐক্যবদ্ধ শক্তি কখনো পরাজিত হয় না।
তারই প্রকাশ ঘটলো নিউইয়র্ক স্টেট পার্লামেন্টের উভয় কক্ষে এই রাজ্যের কর্মস্থলে
মুসলিম, শিখ এবং অন্য ধর্মীয় পোশাকের অবাধ ব্যবহারের বিল পাশের মধ্য দিয়ে।
টানা ৮ বছরের দেন-দরবারের সুফল এলো গত ৯ এপ্রিল। আমরা যদি ঐক্যবদ্ধ থাকতে
পারি তাহলে নিজেদের অধিকার থেকে কেউই বঞ্চিত করতে পারবে না’-এমন অভিমত
পোষণ করেন বাংলাদেশী আমেরিকান এডভোকেসী গ্রুপ তথা বাগের জেনারেল
সেক্রেটারি জয়নাল আবেদীন।
মুসলিম সম্প্রদায়ের অধিকারের প্রশ্নে ঐতিহাসিক এই বিল পাশের জন্যে
স্টেট সিনেট ও স্টেট এ্যাসেম্বলীর প্রতি আনুষ্ঠানিক ধন্যবাদ জানতে ১২ এপ্রিল
শুক্রবার অপরাহ্নে নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসে ডাইভার্সিটি প্লাজায়
এক ‘কৃতজ্ঞতা সমাবেশ’-এ স্টেট সিনেটর জন ল্যু এবং স্টেট এ্যাসেম্বলীম্যান
ব্রায়ান বার্ণওয়েলও ছিলেন। তারা উভয়ে বলেন, নিউইয়র্ক হচ্ছে অভিবাসী সমাজের
গড়া রাজ্য এবং তাই এই রাজ্যে সকল মানুষের সমান অধিকার সমন্নত রাখতে
আমরা বদ্ধ পরিকর। ধর্ম, বর্ণ এবং জাতিগত কারণে একজন নাগরিকও যাতে
হয়রানি, হেনস্তা অথবা বৈষম্যের শিকার না হন-সে ব্যাপারেও আমরা সোচ্চার
রয়েছি।

আবহাওয়া দুর্যোগপূর্ণ হওয়া সত্বেও বাগের বিভিন্ন স্থরের কর্মকর্তা
ছাড়াও উপরোক্ত বিলের পক্ষে দেন-দরবারকারি কয়েকটি সংগঠনের লোকজনও ছিলেন।
নতুৃন প্রজন্মের উপস্থিতি ছিল লক্ষণীয়।
কলেজ ছাত্রী দিনা উদ্দিন, সমাজকর্মী দিলরুবা চৌধুরী, বাগের নির্বাহী
পরিচালক জাহাঙ্গির কবির, চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার কামাল ভ’ইয়া, ইয়ং
ডেমক্র্যাটিক ক্লাবের কোষাধ্যক্ষ জয় চৌধুরী, মুসলিম উম্মাহ্ধসঢ়;্ধসঢ়;ও মীর মাসুম
আলী, শাহানা মাসুম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। সকলেই সংকল্প ব্যক্ত করেন যে,
কমিউনিভিত্তিক দাবি আদায়ের ক্ষেত্রে গড়ে উঠা এই ঐক্য অব্যাহত রাখতে হবে।
উল্লেখ্য, হিজাব, টুপি, টারবান, পায়জামা-পাঞ্জাবি আইনসিদ্ধ হতে
যাচ্ছে নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের কর্মস্থলে। ৯ এপ্রিল মঙ্গলবার এমন একটি বিল
সর্বসম্মতভাবে পাশ হলো নিউইয়র্ক স্টেট সিনেটে। উপস্থিত ৬০
সিনেটরের সকলেই ভোট দেন এ বিলে (এস৪০৩৭)। উল্লেখ্য, এর আগে অনুরূপ
একটি বিল পাশ হয়েছে স্টেট এ্যাসেম্বলীতে। সেটি উত্থাপন করেছিলেন
জ্যামাইকা নির্বাচনী এলাকার এ্যাসেম্বলীম্যান ডেভিড ওয়েপ্রিন। আর
সিনেটে উত্থাপন করেন একই এলাকার স্টেট সিনেটর জন ল্যু। উভয় বিল যাবে
স্টেট গভর্ণরের স্বাক্ষরের জন্যে। তিনি স্বাক্ষর করলেই তা আইনে পরিণত হবে।
আরো উল্লেখ্য, এমন একটি বিল সর্বপ্রথম স্টেট পার্লামেন্টে উঠেছিল
২০১১ সালে। কিন্তু রিপাবলিকানদের আপত্তির জন্যে তা কখনোই স্টেট
সিনেটে পাশ হতে পারেনি। গত বছরের মধ্যবর্তী নির্বাচনে নিউইয়র্ক
স্টেট পার্লামেন্টের উভয় কক্ষেই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায় ডেমক্র্যাটরা।

সর্বশেষ সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
দৈনিক সিলেট ডট কম
২০১১

সম্পাদক: মুহিত চৌধুরী
অফিস: ২৬-২৭ হক সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজার সিলেট
মোবাইল : ০১৭১ ২২ ৪৭ ৯০০,  Email: dainiksylhet@gmail.com

Developed by: