Tuesday, 25 June, 2019 | ১১ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |
Advertisement

সিলেট জেলা হাসপাতালের কাজ শুরু হচ্ছে, জনমনে স্বস্তি

মুহিত চৌধুরী: অবশেষে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সিলেট জেলা হাসপাতাল পরিত্যক্ত আবুসিনা ছাত্রাবাসের স্থলে নির্মাণ হচ্ছে। শীঘ্রই এর কাজ শুরু হবে। এই খবরে সিলেটের স্বাস্থ্যসেবা বঞ্চিত লক্ষ লক্ষ মানুষ স্বস্তি প্রকাশ করেছেন।
সিলেটের মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার লক্ষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন এমপি,সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত হাসপাতাল নির্মাণের পক্ষে শক্ত অবস্থান নিয়েছেন।
গত ১৮ মে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে একটি অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী  ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেন, সিলেটের স্বাস্থ্যসেবার সমস্যা দীর্ঘদিনের। মন্ত্রী হওয়ার আগে থেকেই এ নিয়ে আমি কাজ করেছি। সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উন্নয়ন কাজ চলছে। এ হাসপাতাল ৫০০ বেড থেকে ৯০০ বেডে উন্নীত করা হয়েছে। শুধু ওসমানী হাসপাতালের ওপর জোর দিলে সিলেটের স্বাস্থ্যসেবার সমস্যা সমাধান হবে না। এজন্য সিলেটে ২৫০ শয্যার জেলা হাসপাতালের নির্মাণের কাজ চলছে।
সিলেট নগরীর চৌহাট্টা থেকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পর্যন্ত এলাকাকে ‘মেডিকেল হাব’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে। ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রোগীদের চাপ কমাতে চৌহাট্টা এলাকায় আবুসিনা ছাত্রাবাস ভবনের জায়গায় ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতাল নির্মাণের কাজ শীঘ্রই শুরু করা হবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, ২০১২ সালেই নির্ধারিত হয়েছে ‘আবুসিনা ছাত্রাবাসস্থলে’ সিলেট জেলা হাসপাতাল নির্মাণ করা হবে। যারা হাসপাতালের বিরোধিতা করছে তারা আগে কিছু বলে নাই এখন নতুন এক বাহানা শুরু করেছে। তারা কখনই এধরনের হাসপাতালে যায় না। তিনি বলেন এটা সিলেটবাসীর জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর একটা উপহার।

গত ১৪ মার্চ সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত আশফাক আহমদের নির্বাচনী গণসংযোগ শেষে খাদিমনগরে সাংবাদকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন,সিলেটে পরিত্যক্ত আবুসিনা ছাত্রাবাসের স্থলে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতাল নির্মাণ করা হবে।
তিনি বলেন ১৯৩৬ সালে যেখানে হাসপাতাল ছিল।সেই হাসপাতাল টি ই ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতাল নির্মাণ করছে সরকার ।
সুতরাং আজকে যারা আবুসিনা ছাত্রাবাসকে সংরক্ষণের দাবি তুলে হাসপাতাল নির্মাণ বানচাল করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।
তিনি বলেন, ষড়যন্ত্রকারীরা কোনোভাবেই হাসপাতাল নির্মাণ বন্ধ করতে পারবে না।

মধ্যখানে হাসপাতাল বিরোধীরা সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত কে নিয়ে এসে তাঁর নামে জাদুঘর নির্মাণের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। সাবেক অর্থমন্ত্রী তাদের এই প্রস্তাবে সবুজ সংকেত নাকি দিয়েছেন। গত ১৭ মে সিলেট উন্নয়ন ও ঐতিহ্যের স্মারক সংরক্ষণ পরিষদ দ্রুত হাসপাতাল নির্মাণের দাবী নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন এমপি, সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত এবং সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় এর প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ এর সাথে হাফিজ কমপেল্সয়ে দেখা করতে গেলে সাবেক অর্থমন্ত্রীসহ সকলেই হাসপাতাল নির্মাণের পক্ষে তাদের শক্ত অবস্থানের কথা জানান।

ওসমানী মেডিকেল কলেজের আবু সিনা ছাত্রাবাসকে ভেঙ্গে ফেলে সিলেট জেলা হাসপাতাল নির্মাণ করা এবং এটিকে ঐহিত্য হিসেবে সংরক্ষণ করা নিয়ে সিলেটে চলছে তুমুল বিতর্ক, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও চলছে বিস্তর কথাবার্তা। যে কারণে সিলেট জেলা হাসপাতালের কাজ সাময়িকভাবে বন্ধ ছিলো।

যারা হাসপাতালের বিরোধিতা করছেন তারা বলছেন আবুসিনা ছাত্রাবাস ভবন ঐতিহ্যের অংশ তাই এই ভবনটি সংরক্ষণ করা উচিত। তবে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় এর প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ এমপি তাদের এই দাবীকে নাকচ করে দিয়েছেন। গত ১৭ মে সিলেট নগরীর চৌহাট্টাস্থ পরিত্যক্ত, জরাজীর্ণ আবু সিনা ছাত্রাবাস পরিদর্শন করে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় এর প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ এমপি বলেছেন, সিলেটের আবুসিনা ছাত্রাবাস ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা হিসেবে ঘোষণা করার আইনত কোন সুযোগ নেই। কেননা উক্ত স্থাপনা নির্মাণের এখনও একশত বছর হয়নি। দেশে একশত বছরের পুরনো অনেক স্থাপনা রয়েছে যেগুলা ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা হিসেবে এখনও ঘোষণা করা হয়নি। আর এটা তো একশত বছরই হয়নি, তো এটাকে ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা হিসেবে কিভাবে ঘোষণা করা হবে। তাছাড়া এই ভবন খুবই জরাজীর্ণ ও অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ, এটাকে ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা হিসেবে সংরক্ষণ করা যাবেনা। প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, সিলেটের মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করার জন্য এখানেই হাসপাতাল নির্মাণ করা উচিত।

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
দৈনিক সিলেট ডট কম
২০১১

সম্পাদক: মুহিত চৌধুরী
অফিস: ২৬-২৭ হক সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজার সিলেট
মোবাইল : ০১৭১ ২২ ৪৭ ৯০০,  Email: dainiksylhet@gmail.com

Developed by: