12

Monday, 27 February, 2017 | ১৫ ফাল্গুন ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |
সংবাদ শিরোনাম
ছাতকে ওয়াজ মাহফিল নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ১, পুলিশসহ দু’শতাধিক আহত  » «   সিলেটে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে দুর্বৃত্তদের হামলা ও ভাঙচুর  » «   নবীগঞ্জ থানার কনস্টেবল নীলাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা  » «   ওসমানীনগরে নির্বাচনী সংঘর্ষে আরেকজনের মৃত্যু  » «   ভোটারদের মন জয় করতে নানা কৌশল প্রার্থীদের  » «   জগন্নাথপুরে সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত ২৫  » «   ভালোবাসার সম্পর্কের কথা খাদিজা অস্বীকার করলেন  » «   দ্বিতীয়বার ক্ষমা চাইলেন বেঙ্গল চেয়ারম্যান লিটু  » «   হবিগঞ্জে ২ শিশু হত্যার দায়ে ৩ জনের মৃত্যুদণ্ড  » «   মহাজনপট্টি থেকে ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার  » «   ওসমানীনগরে নির্বাচনী সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৩০  » «   ফুলকলিতে মেয়াদ উত্তীর্ণ খাদ্য, ২০ হাজার টাকা জরিমানা  » «   ‘আমার ফাঁসি হোক, ‘সুখী হও খাদিজা,  » «   সিলেটবাসীর কাছে দুঃখ প্রকাশ করলেন বেঙ্গলের লিটু  » «   বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, যুক্তিতর্ক উপস্থাপন ১ মার্চ  » «  





সিলেট জেলা পরিষদে এড.লুৎফুর রহমানের বিজয় নিশ্চিত করুন

lutffদৈনিকসিলেটডটকম: ”আগামী ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য সিলেট জেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্ষীয়ান রাজনীতিবীদ সাবেক গণপরিষদ সদস্য ও সিলেট জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট লুৎফুর রহমানের সমর্থনে শনিবার সকাল ১১টায় সিলেট নগরীর মির্জাজাঙ্গালস্থ প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে সিলেট জেলার ১৩টি উপজেলার আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের নিয়ে প্রতিনিধি সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় বক্তারা ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে সারাদেশের মতো সিলেট জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এডভোকেট লুৎফুর রহমানের আনারস প্রতীকের বিজয় সুনিশ্চিত করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবান জানিয়েছেন।
নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহবায়ক সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান এর সভাপতিত্বে ও সিলেট জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান চৌধুরীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত নীতিনির্ধারনী এ সভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, জাতির জনকের কন্যা বাংলাদেশের সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকারের নেতৃত্বে সারাদেশে এখন গণতন্ত্র, শান্তি ও উন্নয়ন বিরাজমান। সার্বিক ক্ষেত্রে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। চলমান শান্তি ও উন্নয়নের অভিযাত্রায় আওয়ামী লীগ মনোনীত, পরীক্ষিত ও প্রবীণ জননেতা এডভোকেট লুৎফুর রহমানের আনারস প্রতীকের বিজয়ের কোনো বিকল্প নেই।
নেতৃবৃন্দ বলেন, এবারের জেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটারগণ প্রত্যেকেই জনগণের ভোটে নির্বাচিত প্রতিনিধি এবং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বশীল ব্যক্তি। তাদের প্রত্যক্ষ ভোটেই জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও মেম্বারগণ নির্বাচিত হবেন। কাজেই তাদের পবিত্র আমানত তাঁরা কোনোদিন কোনো সময়ই অসৎভাবে ব্যবহার বা প্রয়োগ করবেন না বলে সভায় আশা প্রকাশ করেন তারা।
সভায় নেতৃবৃন্দ সিলেটের উন্নয়নকে আরো বেগবান করতে সকল ভেদাভেদ ভুলে আগামী ২৮ ডিসেম্বর চেয়ারম্যান পদে এডভোকেট লুৎফুর রহমানকে আনারস মার্কায় ভোট দিয়ে তাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করার জন্য সকল ভোটারদের প্রতি আহবান জানান।
সভায় এডভোকেট লুৎফুর রহমানের সমর্থনে প্রতিটি উপজেলায় ১টি করে উপজেলা ভিত্তিক টিম করে আগামী দুইদিন জোরালো তৎপরতা চালানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।
সভায় বক্তরা বলেন, সিলেট জেলা পরিষদ নির্বাচনে অপর একজন প্রার্থী নিজেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে বিভিন্ন এলাকায় প্রচারণা চালাচ্ছেন বলে শোনা যাচ্ছে। এর প্রেক্ষিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, ওই ব্যক্তি আওয়ামী লীগের কিছুই নয়, কখনো কোনো কার্যক্রম বা দায়িত্বে ছিলেন না। এডভোকেট লুৎফুর রহমান শেখ হাসিনা তথা আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী।
অপপ্রচারে কেউ বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহবান জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, যারা দলীয় পরিচয়ে এ সকল অপতৎপরতায় জড়িত থাকবেন-তাদেরকে চিহ্নিত করে রাখা হবে বলে হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন তাঁরা।
সভায় নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, জাতিসংঘ বাংলাদেশ মিশনের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি, প্রফেসর এমিরেটাস ড. এ.কে আব্দুল মোমেন, সিলেট জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ও জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট লুৎফুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান চৌধুরী, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ। সভায় সিলেট জেলা, মহানগর ও উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন- সিলেট সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, সুয়েব আহমদ চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালিক, অ্যাডভোকেট শাহ ফরিদ আহমদ, অ্যাডভোকেট নিজাম উদ্দিন, বিজিত চৌধুরী, অধ্যক্ষ সুজাত আলী রফিক, অধ্যাপক জাকির হোসেন, অ্যাডভোকেট নাসির উদ্দিন খান, শফিউল আলম চৌধুরী, মোহাম্মদ আলী দুলাল, কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ, হুমায়ুন ইসলাম কামাল, সায়ফুল আলম রুহেল, কবির উদ্দিন আহমদ, নাজনীন হোসেন, অ্যাডভোকেট মাহফুজুর রহমান মাহফুজ, অ্যাডভোকেট রনজিত সরকার, ডা. আরমান আহমদ শিপলু, অ্যাডভোকেট আব্দুর রকিব জন্টু, এম.এ মোমিন চৌধুরী, নুরুল আমিন, সাবেক চেয়ারম্যান মইনুল ইসলাম, মো. ইব্রাহীম, আজহার উদ্দিন জাহাঙ্গীর, নুরুল ইসলাম, পুতুল, অ্যাডভোকেট শেখ মজলু মিয়া, অ্যাডভোকেট ফখরুল ইসলাম, মকসুদ আহমদ মকসুদ, মোস্তাকুর রহমান মফুর, গোলম কিবরিয়া হেলাল, নিজাম উদ্দিন চেয়ারম্যান, আপ্তাব আলী কালা, ফজলুর রহমান নাজলু, অ্যাডভোকেট আফছর আহমদ চেয়ারম্যান, রফিক আহমদ, কাওছার আলী, মো. লিয়াকত আলী, লোকমান উদ্দিন চৌধুরী, সানী আমজাদ, সাইফুল আলম, আব্দুল হানিফ মানিয়া, আতাউর রহমান, মো. আব্দুল্লাহ, মতিউর রহমান, জাবেদ সিরাজ, আলম খান মুক্তি, মোশফিক জায়গীরদার, মবশ্বির আলী, এম. রায়হান চৌধুরী প্রমুখ।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

Developed by: