12

Monday, 27 February, 2017 | ১৫ ফাল্গুন ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |
সংবাদ শিরোনাম
ছাতকে ওয়াজ মাহফিল নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ১, পুলিশসহ দু’শতাধিক আহত  » «   সিলেটে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে দুর্বৃত্তদের হামলা ও ভাঙচুর  » «   নবীগঞ্জ থানার কনস্টেবল নীলাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা  » «   ওসমানীনগরে নির্বাচনী সংঘর্ষে আরেকজনের মৃত্যু  » «   ভোটারদের মন জয় করতে নানা কৌশল প্রার্থীদের  » «   জগন্নাথপুরে সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত ২৫  » «   ভালোবাসার সম্পর্কের কথা খাদিজা অস্বীকার করলেন  » «   দ্বিতীয়বার ক্ষমা চাইলেন বেঙ্গল চেয়ারম্যান লিটু  » «   হবিগঞ্জে ২ শিশু হত্যার দায়ে ৩ জনের মৃত্যুদণ্ড  » «   মহাজনপট্টি থেকে ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার  » «   ওসমানীনগরে নির্বাচনী সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৩০  » «   ফুলকলিতে মেয়াদ উত্তীর্ণ খাদ্য, ২০ হাজার টাকা জরিমানা  » «   ‘আমার ফাঁসি হোক, ‘সুখী হও খাদিজা,  » «   সিলেটবাসীর কাছে দুঃখ প্রকাশ করলেন বেঙ্গলের লিটু  » «   বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, যুক্তিতর্ক উপস্থাপন ১ মার্চ  » «  





ধর্ম ব্যবসা: কঙ্কাল চুরি করে মাজার নির্মাণ

w1শফিকুল ইসলাম শফি: বগুড়ার শেরপুর পৌরসভার দুবলাগাড়ি হাসপাতাল রোড কবরস্থান থেকে চুরি হওয়া কঙ্কালের সন্ধান মিলেছে। কবর থেকে মৃতদেহের হাড়গোড় চুরি করে প্রায় ৩ কিলোমিটার দূরে গাড়িদহ ইউনিয়নের বনমরিচা গ্রামে নির্মাণ করা হয়েছে দরবেশ আশরাফী আল মাজারি পাগল চিশতি নামের মাজার শরীফ।

গত রোববার রাতে শেরপুর পৌরশহরের হাসপাতাল রোডের কবরস্থান থেকে একটি লাশের কঙ্কাল চুরি হয়। এ খবর মানবজমিনসহ বগুড়ার আঞ্চলিক পত্রিকায় প্রকাশ হলে টনক নড়ে শেরপুর প্রশাসনের। জানা গেছে, চুরি হওয়া কঙ্কালটি প্রয়াত মতিয়ার রহমানের। তিনি ২০১৫ সালের ১৭ই মার্চ বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান। এরপর তাকে শেরপুর পৌরসভার হাসপাতাল রোড কবরস্থানে দাফন করা হয়। মৃত ব্যক্তির লাশ কবর থেকে উত্তোলন করে স্থানান্তরের জন্য গত ৫ই জানুয়ারি শেরপুর পৌরসভার মেয়র বরাবর একটি আবেদন শেরপুর থানায় দেখা গেছে। ওই আবেদনটি তার স্ত্রী মরিয়ম বেওয়া স্বাক্ষর করেছেন। এ ব্যাপারে শেরপুর পৌরসভার মেয়রের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আবেদনটি বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নিতে আইনগত ব্যাখ্যা দেয়া হয়েছে। তখন অবস্থা বেগতিক দেখে জনৈক জামাল নামের এক মহুরির সহায়তায় নিকট আত্মীয় একজন পুলিশ কর্মকর্তার নাম সুপারিশে শেরপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র নাজমূল আলম খোকন ওই আবেদনটি গত ৭ই জানুয়ারি অনুমোদন দেন।

এদিকে দীর্ঘ ২২ মাস পর রাতের আঁধারে শেরপুর পৌর কবরস্থান থেকে মতিয়ারের কঙ্কাল দিয়ে মাজার শরীফ নির্মাণ করা হয়েছে। পৌর মেয়র আব্দুস সাত্তার আরো জানান, কবর থেকে লাশ উত্তোলন করতে জেলা প্রশাসকের অনুমতির প্রয়োজন হয়। সেক্ষেত্রে আমার পক্ষে এটা আইনগত বাধা থাকায় আমি অনুমোদন দিতে পারি নাই। প্রয়াত মতিয়ার রহমানের স্ত্রী মরিয়ম বেওয়া জানায়, আমার স্বামী মৃত্যুর সময় আমাকে বলেছিল আমার জন্য একটা চিশতিয়া পাগলা মাজার শরীফ করার জন্য। তাই বনমরিচা গ্রামে দেড়শতক জমি ক্রয় করে সেখানে তার নামে মাজার শরীফ করা হয়েছে। মরিয়ম বেওয়া বলেন, কবরস্থান থেকে লাশ তুলতে দিনের আলোয় লোকজনের ঝামেলা এড়াতে রাতের আঁধারে লাশ স্থানান্তর করা হয়েছে।

মতিয়ারের তিন কন্যার মাঝে বড় মেয়ে গত বৃহস্পতিবার ঢাকা থেকে শেরপুরে এসেছে তার বাবার কবর স্থানান্তর করার জন্য। ছোট মেয়ে হ্যাপী ও মানি চট্টগ্রামে স্বামীর সংসারে অবস্থান করছেন। তাদের মতে, মতিয়ার রহমান একজন আওলিয়া ভক্ত ছিলেন। কিন্তু তার নিজস্ব জায়গা জমি না থাকার কারণে বারবার ঘুমের ঘরে স্বপ্নে দেখানোর পরেও কবরটি স্থানান্তর করা সম্ভব হয়নি। তাই আগামী ১৭ই মার্চ পিতার মৃত্যুবার্ষিকীতে উরসের আয়োজন করা হতে পারে।-মানবজমিন

সংবাদটি শেয়ার করুন:

Developed by: