12

Thursday, 23 February, 2017 | ১১ ফাল্গুন ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |
সংবাদ শিরোনাম
সুস্থ খাদিজা এখন বাড়ি ফেরার অপেক্ষায়  » «   বিএনপি সন্ত্রাসী সংগঠন: কানাডার আদালত  » «   ডিজিটালের ছোয়া লাগেনি সিলেট সাবরেজিস্ট্রি অফিসে  » «   নিরাপত্তা হেফাজতে সিলেটের আবিদা  » «   বাংলাদেশ উন্নতির মহাসড়কে এগিয়ে চলেছে:অর্থমন্ত্রী  » «   নিবন্ধন নিয়ে সিলেটে বনপার জরুরী সভা  » «   সৌদি থেকে ফিরলেন নবীগঞ্জের সেই ‘গৃহকর্মী’  » «   বিআরটিএ অফিসে দুদক আতঙ্ক!  » «   যুক্তরাষ্ট্রে যেতে দেওয়া হলো না বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ নাগরিককে  » «   সিলেটে দশদিনব্যাপী বেঙ্গল সংস্কৃতি উৎসব শুরু হচ্ছে আজ  » «   চুরি হতে পারে আপনার আঙুলের ছাপ!  » «   এ কেমন শ্রদ্ধা?  » «   আরিফুল হক চৌধুরীকে নিয়ে সিসিক কাউন্সিলরদের শ্রদ্ধা নিবেদন  » «   কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের শ্রদ্ধা জ্ঞাপন  » «   বিনম্র শ্রদ্ধা ও ভালবাসায় সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মানুষের ঢল  » «  





ফ্রান্সেও কি প্রবেশ নিষিদ্ধ হচ্ছে মুসলিমদের?

w1দৈনিকসিলেটডেস্ক:মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মুসলিম নাগরিকদের প্রবেশ নিষিদ্ধ নীতি নিয়ে যত সমালোচনাই হোক না কেন, ফ্রান্সের মেরিন লো পেন কি বললেন জানেন?

সূত্রের খবর, মেরিন লো পেন যদি নির্বাচনে জয়ী হন, তাহলে ট্রাম্পকে অনুসরণ করবেন। ফ্রান্সে অভিবাসীদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করতে পারেন তিনি। অর্থাৎ, নির্বাচনে জয়ী হলে, মুসলিম দেশের নাগরিকদের ফ্রান্সে প্রবেশ নিষিদ্ধ করতে পারেন পেন।

পেনের দাবি, যে ৬টি বা ৭টি দেশের নাগরিকদের ফ্রান্সে প্রবেশ নিষিদ্ধ হতে পারে, সেই দেশগুলি থেকে সন্ত্রাস চোখ রাঙানি দেয় প্রতিনিয়ত। আর সেই কারণে তিনি জিতলে ওই মুসলিম দেশের নাগরিকদের ফ্রান্সে প্রবেশ নিষিদ্ধ হতে পারে।

শুধু তাই নয়, ‘ওনলি ফ্রান্স’ স্লোগান দিয়ে ইতিমধ্যেই নির্বাচনের ময়দান দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন পেন। তবে, মুসলিম দেশের নাগরিকদের এভাবে প্রবেশ নিষিদ্ধ করলে, বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা মুসলিম নাগরিকদের ওপর হামলার ঘটনা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে।
এদিকে, মুসলিম নাগরিক ও শরণার্থীদের নিষিদ্ধ করতে চাইছে ইউরোপের আরো কয়েকটি দেশও। সম্প্রতি এক সমীক্ষায় এমনই তথ্য উঠে এসেছে। যা দেখে চোখ কপালে উঠছে বিভিন্ন মহলের।

পরিসংখ্যান বলছে, ইউরোপের ৫৫% মানুষ চাইছেন যে মুসলিম দেশ থেকে ইউরোপে শরণার্থীদের ঢোকা বন্ধ করে দেয়া হোক। তবে সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, ওই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছেন ইউরোপের ২০% মানুষ। আর ২৫% মানুষ জানিয়েছেন, এ বিষয়ে তারা কিছু জানেন না।
অর্থাৎ, মুসলিম দেশের নাগরিকদের মার্কিন মুলুকে প্রবেশ নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প যে নিষেধাজ্ঞা জারি করতে চাইছেন, এবার সেই পথ নিতে পারে ফ্রান্সও। এমনই আশঙ্কা দেখা দিয়েছে বিভিন্ন মহলে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

Developed by: