Tuesday, 22 August, 2017 | ৭ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |
সংবাদ শিরোনাম
“কৃষি অর্থনীতির ন্যায্য অধিকার আদায়ের দাবিতে সিকৃবিতে মানববন্ধন”  » «   সুনামগঞ্জে রুপচাঁনকে বিদেশী রিভলবারসহ গ্রেফতার  » «   নূর-তারেকসহ ১৫ জনের মৃত্যুদণ্ড বহাল  » «   আ. লীগকে নিশ্চিহ্ন করতেই ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলা: কামরান  » «   কিংবদন্তি অভিনেতা নায়করাজ রাজ্জাক আর নেই  » «   শাবির নতুন ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিনের যোগদান  » «   মুহিত চৌধুরীর মায়ের শয্যাপাশে কামরান  » «   হবিগঞ্জে পৃথক স্থানে পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু  » «   বিয়ানীবাজারে আলোচিত ধর্ষন মামলায় ৫ জনের যাবজ্জীবন  » «   প্রধানমন্ত্রীকে হত্যাচেষ্টা মামলায় ১০ জনের মৃত্যুদণ্ড  » «   সুবিদ বাজারে নিজ দলের কর্মীদের পিটিয়েছে ছাত্রলীগ  » «   বিয়ানীবাজার উপজেলা বিএনপি’র যুগ্ম সম্পাদক গ্রেফতার  » «   স্বেচ্ছাসেবক দলের ৩৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত  » «   নগরীর তালতলায় শিবির নেতাকে কুপালো ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা  » «   ব্রিটিশ হাইকোর্টে প্রথম বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বিচারপতি  » «  
Advertisement
Advertisement

প্রেমিকের বাড়িতে ইউপি মেম্বর প্রিয়সীর আমরণ অনশন

দৈনিকসিলেটডেস্ক:দুই সন্তানের মা, ত্রিশ বছর বয়সী ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বর নাজমিন সুলতানা প্রিয়সী। প্রেমিকের জন্য স্বামীকে তালাক দিয়েছেন। এখন প্রেমিকের বাড়িতে আমরণ অনশন করছেন তিনি। দাবি, প্রেমিকের স্ত্রীর স্বীকৃতি! ঘটনাটি ঘটেছে ঢাকার ধামরাইয়ের সুয়াপুর ইউনিয়নে।

প্রিয়সী সুয়াপুর ইউনিয়নের সংরক্ষিত আসনের নারী সদস্য। প্রেমিক ব্যবসায়ী আব্দুল আলিম পলাশ। বয়স তেইশ। তিনি একই ইউনিয়নের শিয়ালকুল গ্রামের সুরুজ মিয়ার ছেলে। স্বামী সন্তান রেখে প্রেমের টানে প্রেমিকের বাড়িতে গত দুইদিন ধরে অনশন করছেন এই নারী। বিয়ের স্বীকৃতি না পাওয়া পর্যন্ত তিনি ওই বাড়িতেই অবস্থান করবেন বলে জানিয়েছেন।

জানা গেছে, আব্দুল আলিম পলাশের সঙ্গে এক বছর আগে থেকে প্রেম করে আসছিলেন নাজমিন সুলতানা প্রিয়সী। ওইসময় প্রেমিকের প্রলোভনে স্বামী সন্তান রেখে তার সঙ্গে প্রিয়সীর অভিসার শুরু। পরে পলাশ তাকে তার স্বামী পিন্টু মিয়ার কাছ থেকে সরিয়ে ধামরাই সদরে বাসা ভাড়া করে দেন। সেই বাসায় নিয়মিত আসা যাওয়া করতেন পলাশ। তাদের মধ্যে দৈহিক সর্ম্পক তৈরি হয় বলে জানান অনশনকারী নারী সদস্য।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, পলাশ আমাকে গত ২০ এপ্রিল ধামরাই পৌর এলাকার কাজী অফিসে গিয়ে ১০ লাখ টাকা কাবিন করে বিয়ে করেছে। আমি তার কথায় গত তিন মাস আগে আগের স্বামী পিন্টুকে তালাক দিয়েছি। এখন কেন পলাশ ও তার পরিবার আমাকে মেনে নিচ্ছে না।

তিনি অরোও বলেন, ‘আমাকে তারা মেনে না নেয়া পর্যন্ত আমি এই বাড়িতেই অবস্থান করব। আর তা না হলে আত্মহত্যার পথ বেঁছে নেয়া ছাড়া আমার কোন উপায় থাকবে না।’

আব্দুল আলিম পলাশের চাচা চান মিয়া বলেন, ‘আমার ভাতিজা বিয়ে করে থাকলে প্রিয়সীকে পলাশের স্ত্রী হিসেবে মেনে নেয়া হবে। এতে আমাদের কোন আপত্তি নেই।’ এদিকে, আব্দুল আলিম পলাশ বিয়ের কথা অস্বীকার করেছেন। তবে, প্রিয়সীর সঙ্গে তার সম্পর্ক ও ধামরাই বাসায় যাওয়ার কথা স্বীকার করেছেন।

এ বিষয়ে ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রেজাউল করিম দিপু বলেন, এই ঘটনার এখনো কোন অভিযোগ পাইনি, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সুত্র:এমটিনিউজ

সর্বশেষ সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
দৈনিক সিলেট ডট কম
২০১১

উপদেষ্টা: ড.এ কে আব্দুল মোমেন
সম্পাদক: মুহিত চৌধুরী
অফিস: ২৬-২৭ হক সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজার সিলেট
মোবাইল : ০১৭১ ২২ ৪৭ ৯০০,  Email: dainiksylhet@gmail.com

Developed by: