Saturday, 24 June, 2017 | ১০ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |
সংবাদ শিরোনাম
দক্ষিণ সুরমায় ৪ জুয়াড়ি আটক  » «   গোলাপগঞ্জে যুবককে কুপিয়ে হত্যা  » «   সিলেটে আন্তর্জাতিক পাবলিক সার্ভিস দিবসে জেলা প্রশাসকের র‌্যালী ও আলোচনা  » «   সিলেটে আ. লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন  » «   সিলেটের ডাক বন্ধে অনলাইন প্রেসক্লাবের উদ্বেগ  » «   বালাগঞ্জ-ওসমানীনগরে পানিবন্দি দুই লক্ষাধিক মানুষ  » «   গৌরবের ৬৯ বছরে আওয়ামী লীগ  » «   মানে নয়, নামেই গলা কাটছে আড়ং  » «   রথযাত্রা উপলক্ষে সিসিকের ৬ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা অনুদান প্রদান  » «   সিলেটে পৃথক অভিযানে ছিনতাইকারীসহ ৯ জুয়াড়ি আটক  » «   পবিত্র শবে কদর আজ  » «   ৬৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সিলেট আওয়ামী লীগের কর্মসূচী  » «   বিশ্বনাথে নিহত মকরমের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম  » «   সমালোচিত অর্থমন্ত্রীর পক্ষ নিলেন তোফায়েল  » «   ঈদকে ঘিরে সিলেটে তিন স্তরের নিরাপত্তা  » «  
Advertisement
Advertisement

ধর্ষক নাঈমকে ১০ দিনের রিমান্ডে চায় পুলিশ

দৈনিকসিলেটডেস্ক: রাজধানীর বনানীতে রেইনট্রি হোটেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রী ধর্ষণ মামলার অন্যতম আসামি আবদুল হালিম ওরফে নাঈম আশরাফের ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার নাঈম আশরাফকে আদালতে পাঠানো হবে। রাজধানীর মিন্টো রোডে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম এসব তথ্য জানান।

মনিরুল ইসলাম জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নাঈম ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে।

এর আগে বুধবার রাতে মুন্সিগঞ্জের লৌহজং থেকে গ্রেপ্তার করা হয় নাঈম আশরাফকে। এ নিয়ে বনানী থানায় ধর্ষণ মামলার এজাহারভুক্ত পাঁচ আসামির সবাই গ্রেপ্তার হলেন।

এই মামলার প্রধান আসামি শাফাত আহমেদ ও সাদমান সাকিফকে ১১ মে সিলেট থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর গত সোমবার ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার হন মামলার চার ও পাঁচ নম্বর আসামি শাফাতের গাড়িচালক বিল্লাল ও দেহরক্ষী রহমত আলী।

মামলাটি তদন্ত করছে ঢাকা মহানগর পুলিশের উইমেন সাপোর্ট অ্যান্ড ইনভেস্টিগেশন ডিভিশন। তবে গ্রেপ্তার আসামিদের ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের দপ্তরে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

গত ২৮ মার্চ রেইনট্রি হোটেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে ৬ মে বনানী থানায় মামলা হয়। আদালতে দেয়া জবানবন্দিতে দুই ছাত্রী জানান, ২৮ মার্চ বনানীর রেইনট্রি হোটেলে জন্মদিনের অনুষ্ঠানে দাওয়াত দিয়ে তাদের নেয়া হয়। সেখানে ধর্ষণের শিকার হন তারা।

Developed by: