Monday, 22 May, 2017 | ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |
সংবাদ শিরোনাম
বিয়ানীবাজার পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরদের শপথ গ্রহণ  » «   জাফংলয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় মা ও ছেলে নিহত  » «   বিয়ানীবাজারে ধর্ষণে অভিযুক্ত প্রবাসীর স্ত্রী বললেন ভিন্ন কথা  » «   সিলেটে যেভাবে ধরা পড়লো ভয়ংকর প্রতারক চক্র  » «   বাহুবলে বাস উল্টে নিহত ১ জন আহত অন্তত ২০ জন  » «   বিচারহীনতার সংস্কৃতি আমাদের অগ্রগতি থামিয়ে দিচ্ছে : রিয়াজুল হক  » «   বিয়ানীবাজারে শিশু ধর্ষণের অভিযোগে প্রবাসী আটক  » «   পুলিশী তল্লাশী ও ভাংচুর অপরাজনীতির বহিঃপ্রকাশ: কাহের শামীম  » «   সিলেটে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট স্থগিত  » «   শাবি ছাত্রলীগ সভাপতিসহ তিন জনকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ  » «   পবিত্র মাহে রমজান মাস উপলক্ষে সিসিকের মতবিনিময় সভা  » «   সিলেটে চলছে পরিবহন ধর্মঘট চরম দুর্ভোগে সাধারণ নাগরিক  » «   রবিবার থেকে সিলেটে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘটের ডাক  » «   জৈন্তাপুরের ওসিকে প্রত্যাহারের দাবীতে ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম  » «   সিলেটে পড়তে আসবে ভারতের শিক্ষার্থীরা : মেয়র আরিফ  » «  
Advertisement
Advertisement

হার্ট অ্যাটাকের ইনজেকশন এখন বিনামূল্যে

দৈনিকসিলেটডেস্ক:কারো হার্ট অ্যাটাকের পর ধমনীতে জমাট রক্ত গলিয়ে দিতে বিশেষ ইনজেকশন দিতে হয় যার নাম স্ট্রেপটোকাইনেজ। হার্ট অ্যটাকের কারণে জমাটবদ্ধ রক্ত তরল করে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক করে হার্টকে সচল করতে এটি বেশ কার্যকর। এর বিকল্প চিকিৎসা পদ্ধতি হলো প্রাইমারি পিসিআই। হার্ট অ্যাটাকের পর শিরাপথে স্ট্রেপটোকাইনেজ যত দ্রুত দেওয়া সম্ভব হবে রোগীর হার্টের পেশী ক্ষতি হওয়া থেকে তত রক্ষা পাবে। আগে এই ওষুধ বাইরে থেকে ৫/৬ হাজার টাকায় কিনতে হয়। তবে এখন থেকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে (এনআইসিভিডি) হার্ট অ্যাটাকের রোগীরা বিনামূল্যে পাচ্ছেন জরুরি জীবন রক্ষাকারী এ ওষুধ।

জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক আফজালুর রহমান জানান, জরুরি পরিস্থিতিতে ইনজেকশনটি মধ্যবিত্ত ও উচ্চবিত্তরা কিনতে পারলেও গরিব-অসহায় রোগীদের জন্য বিরাট বোঝা। মূলত তাদের কথা বিবেচনা করে হাসপাতালের নিজস্ব বরাদ্দ থেকে সম্প্রতি কেনা হয়েছে এই ওষুধ।

তিনি জানান, হাসপাতালের ভেতরে বিনামূল্যে এটি প্রয়োগ করতে প্রয়োজনীয় আদেশ জারি করে বলা হয়েছে, এখন থেকে কোনো নার্স বা চিকিৎসক রোগীদের দিয়ে বাইরে থেকে এটি কিনে আনার পরামর্শ দিলে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

হাসপাতালের পরিচালক আরো জানান, হার্টের রোগীদের উন্নত সেবা দিতে ও বিড়ম্বনা কমাতে গত জানুয়ারিতে পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যেই জরুরি বিভাগে ইকোকার্ডিওগ্রাম মেশিন স্থাপন করা হয়েছে। পাশাপাশি ইসিজি, কার্ডিয়াক মনিটর, ডি-ফেব্রিলেটর ইত্যাদি যন্ত্র বসিয়ে জরুরী বিভাগকে একটা মিনি সিসিইউতে (করোনারি কেয়ার ইউনিট) পরিণত করা হয়েছে।

Developed by: