Thursday, 19 July, 2018 | ৪ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

Advertisement

ডায়রিয়া ‘অসুখ নয়’, বলছে নতুন গবেষণা

দৈনিকসিলেটডেস্ক:পেটের ব্যারামে গড়পড়তা বাঙালি অভ্যস্ত। নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায় বিরচিত টেনিদা-সাগরেদ প্যালারামই হোক বা সুকুমার রায়ের ‘সৎপাত্র’ গঙ্গারাম, আমাশয়, ডায়রিয়া থেকে পিলের অসুখের ছড়াছড়ি বাংলা সাহিত্যে।

ডায়রিয়া নামে অসুখটি দীর্ঘদিন ধরে ভোগালেও এটা আদৌ অসুখ কি না, তা নিয়ে সম্প্রতি কিছু নতুন তথ্য পেশ করেছেন আমেরিকার বস্টনের ব্রিগাম অ্যান্ড উইমেন’স হসপিটালের একটি গবেষক দল। তাদের মতে, ডায়রিয়া আদতে ক্ষতিকারক জীবাণু বা ‘প্যাথোজেন’ শরীর থেকে বার করে আমাদের রোগপ্রতিরোধক্ষমতাকে সচল রাখতেই সাহায্য করে।

ওই গবেষণার ফল গত বুধবার প্রকাশিত হয়েছে ‘সেল হোস্ট অ্যান্ড মাইক্রোব’ পত্রিকায়। তাতে বলা হয়েছে, শরীরের নিজস্ব রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বা ‘ইমিউন মেকানিজমে’র জন্যই ডায়রিয়া হয়।

আমাদের অন্ত্রের দেওয়ালে থাকা কোষগুলির মধ্যে ছোট ছোট ফাঁক এবং গর্ত থাকে। পুষ্টিকর পদার্থ, জল, আয়ন এবং বর্জ্য এগুলির মধ্যে দিয়েই অন্ত্রের এক অংশ থেকে আরেক অংশে যায়। ওই গবেষক দলের পরীক্ষায় ধরা পড়েছে, অন্ত্রে সংক্রমণ ঘটলে এই ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র গর্তগুলির ভেদ্যতা অনেকাংশে বেড়ে যায়। এটা ঘটায় ‘ক্লডিন ২’ নামে প্রোটিন। এই ভেদ্যতাবৃদ্ধির ফলে অন্ত্রে সোডিয়াম এবং জল ঢুকে সেখান থেকে প্যাথোজেন বার করে দেয়। এর ফলেই ডায়রিয়া হয়।

জেরল্ড টার্নারের নেতৃত্বে গবেষণার ফলাফল গত বুধবার প্রকাশিত হয়েছে ‘সেল হোস্ট অ্যান্ড মাইক্রোব’ পত্রিকায়। তাতে বলা হয়েছে, ডায়রিয়া প্রকৃতই খাদ্যনালী থেকে রোগসৃষ্টিকারী জীবাণু বার করে কি না, তা নিয়ে বহুদিন ধরেই বিজ্ঞানীদের সংশয় ছিল।

গবেষণাগারে ইঁদুরের মধ্যে পরীক্ষামূলকভাবে ‘সিট্রোব্যাক্টার রোডেনশিয়াম’ জীবাণুর (ই কোলাই জীবাণুর সঙ্গে তুল্য) সংক্রমণ ঘটিয়ে ওই গবেষকেরা দেখেছেন ইঁদুরের অন্ত্রও কীভাবে ডায়রিয়ার মাধ্যমে ওই জীবাণু শরীর থেকে বার করে দেয়। টার্নার জানিয়েছেন, ইঁদুরের উপরে পরীক্ষা করে তাঁরা এই সিদ্ধান্তে পৌঁছলেও তাঁদের দৃঢ় বিশ্বাস, মানুষের ক্ষেত্রেও যে এমনটাই হয়।

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
দৈনিক সিলেট ডট কম
২০১১

সম্পাদক: মুহিত চৌধুরী
অফিস: ২৬-২৭ হক সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজার সিলেট
মোবাইল : ০১৭১ ২২ ৪৭ ৯০০,  Email: dainiksylhet@gmail.com

Developed by: