Monday, 20 August, 2018 | ৫ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

Advertisement

লন্ডনে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন

দৈনিকসিলেটডটকম:গত ১২জানুয়ারী শুক্রবার পুর্ব লন্ডনের একটি রেস্টুরেন্টে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১৯৭২সালের ঐতিহাসিক ১০ই জানুয়ারী স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস যথাযোগ্য মর্যাদার সাথে সর্ব ইউরোপীয় বঙ্গবন্ধু পরিষদের উদ্দ্যোগে এক আলোচনা সভার সাথে পালিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ঠ রাজনীতিক ও সংগঠনের সহ সভাপতি জনাব সাবেক টাওয়ার হ্যামলেটস্্ এর মেয়র সেলিম উল্লাহ এবং সভা পরিচালনা করেন সাধারন সম্পাদক ডা. ফয়জুল ইসলাম ফজলু। সভার কাজ পবিত্র কোরান তেলাওয়াতের মাধ্যমে শুরু হয় এবং এক দাঁড়িয়ে জাতির জনক সহ সকল বীর শহীদানদের আত্মার শান্তির জন্য নিরবতা পালন করেন।
সভার প্রারম্ভে সঞ্চালক সাবেক ছাত্রনেতা ডা. ফয়জুল ইসলাম অনুষ্ঠানের মাহাত্ম্য বর্ননা করে সকলকে স্বাগত জানান। তিনি উপস্থিত সকলকে বলেন আজ আমরা অত্যন্ত আনন্দিত এবং গর্বিত যে আমাদের মহান নেতা হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী ১৯৭১রে যার নেতৃত্বে দীর্ঘ ৯মাসের রক্তক্ষয়ী পাক দখলদার বাহিনীর সাথে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি। তাঁকে বন্দি করে পাকিস্তানের অন্ধকার কারা প্রকোষ্টে ফাঁসির কনডেম সেলে রেখেছিল কিন্তু ১৯৭১রের ১৬ই ডিসেম্বর পাক বাহিনী মিত্র ও মুক্তিবাহিনীর হাতে অস্ত্র ত্যাগ করে আত্মসমর্পণ করলে ও বিশ্ববাসীর চাপের কাছে মাথা নত আমাদের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ১৯৭২ সালের ৮ই জানুয়ারী রাওয়ালপিন্ডী থেকে পিআইয়ের একটি বিমানে করে মুক্তি দিয়ে লন্ডনে পাঠিয়ে দেয়। লন্ডন থেকে রয়েল এয়ারলাইন্সের একটি চার্টার ফ্লাইট নিয়ে ৯ তারিখ ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়ে দীল্লি হয়ে ১০ই জানুয়ারী ঢাকার কুর্মিটোলা বিমানবন্দরে অবতরণ করলে লক্ষ লক্ষ জনতা অত্যন্ত আবেগের সাথে স্বাগত জানায়। তিনি যদি কোন কারনে পাকিস্তানের বন্দিদশা থেকে ফিরে না আসতেন তাহলে আমাদের দেশের অবস্থা কি যে হত কল্পনা করাও যেত না। দেশ আবারও বিশৃঙ্খলার আবর্তে ডুবে যেত আর বিদেশী শক্তি সুযোগ নিত। তাই সত্যিকারভাবে দেশ স্বাধীন হয়েছিল যেদিন বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানের কারগার থেকে মুক্ত হয়ে দেশে ফিরে আসেন।

সভায় অন্যান্যদের মধ্যে ঐতিহাসিক ১০ই জানুয়ারী বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের উপর তাদের অভিজ্ঞতা এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বক্তব্য রাখেন সর্বজনাব, সেলিম উল্লাহ, আফজাল হোসেন ছিদ্দিক মিয়া, কয়ছর উদ্দিন জালাল, বাবুল হোসেন, এসএম মোস্তাফিজুর রহমান, মো ফিরুজ মিয়া, এহসান আহমদ, ফারুক আহমদ, আফসার উদ্দিন আহমদ, আমিনুল হক জিলু, সৈয়দ গোলাব আলী, ইসলাম ঊদ্দিনও সাদেক কোরেশী প্রমুখ।
দ্বীতিয় পর্বে সাধারন সম্পাদক ডা. ফয়জুল ইসলাম নতুন সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন হওয়া সকলেব নাম পড়ে শোনান। তারপর তিনি সভাপতির অনুমতি নিয়ে ২০১৮-২০২০ সালের জন্য সর্ব ইউরোপীয় বঙ্গবন্ধু পরিষদের নতুন কার্যকরী কমিটির খসড়া উপস্থাপন করেন এবং সকলের অভিমত প্রার্থনা করেন। এতে সকলেই কন্ঠভোটে এই খসড়া কমিটিকে অনুমোদন করেন। তিনি স্বল্প সময়ের জন্য এ মাসে ব্যাক্তিগত কাজে দেশে যাচ্ছেন এসময় যুগ্ন সম্পাদক ও সম্পাদকগন সভাপতি সাহেবের সাথে পরামর্শ করে কর্মসুচী গ্রহন করার জন্য অনুরোধ করেন।
এরপরে সভার সভাপতি উপস্থিত সকলকে সহযোগিতা করার জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপণ করেন এবং আগামী ১৭ই মার্চ জাতির জনকের ৯৮তম জন্ম বার্ষিকী পালন করার জন্য বিস্তারিত কর্মসুচী গ্রহন করার জন্য অনুরোধ করেন। পরিশেষে সকলের মধ্যে সর্ব ইউরোপীয় বঙ্গবন্ধু পরিষদের পক্ষ থেকে রাতের খাবার পরিবেশন করে অনুষ্ঠানের পরিমাসমাপ্তী হয়।

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
দৈনিক সিলেট ডট কম
২০১১

সম্পাদক: মুহিত চৌধুরী
অফিস: ২৬-২৭ হক সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজার সিলেট
মোবাইল : ০১৭১ ২২ ৪৭ ৯০০,  Email: dainiksylhet@gmail.com

Developed by: