Home Home Page Rank NTV ONLINE ETV ONLINE BANGLA  VISION ONLINE CHANEL I ONLINE EKATTOR TV ONLINE
১৯-০৪-২০১৪ শনিবার

 ভিজিট করুন মোবাইল ভার্সন:  m.dainiksylhet.com 

 

 
 
 
মোবাইল ভার্সনে যারা আছেন
Free Global Counter
 
এই জনপদ
 
 
 
 
 

ছাতক প্রতিনিধিঃ
ছাতকে গলায় ফাঁস লাগিয়ে হালিমা বেগম (২৫) নামের এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে। শুক্রবার সকালে পৌর শহরের মন্ডলীভোগ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। হালিমা নোয়ারাই ইউনিয়নের জোড়াপানি গ্রামের বাবুল মিয়ার স্ত্রী। মন্ডলীভোগের ভাড়াটে বাসায় স্বামীর অবর্তমানে সকালে তীরের সাথে ওড়না পেছিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে হালিমা। ভেতর থেকে দরজা বন্ধ থাকায় লোকজন বসতঘরের বেড়ার ফাঁক দিয়ে ঝুলন্ত লাশ দেখে স্থানীয় কাউন্সিলর তাপস চৌধুরীকে ঘটনাটি অবগত করেন। পরে পুলিশ এসে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ মর্গে প্রেরন করে। এ ঘটনায় থানায় ইউডি মামলা রুজু করা হয়েছে।

 
 
 
 
 
 
 

এ,বি,এম,বুলবুল:
গত ১২ ই এপ্রিল সিলেটের মিরবক্সটুলায় দৈনিক সিলেটের ডাকের চীপ রিপোর্টার এডভোকেট তাজ উদ্দীনের উপর সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে সৌদী আরব জালালাবাদ এসোসিয়েশন। সংক্ষিপ্ত বার্তায় সংগঠনের সভাপতি মোহাম্মদ কাপ্তান হোসেন, সাধরণ সম্পাদক আব্দুর রহমান  চৌধুরী ও আরব বাংলা দর্পণ এর প্রধান সম্পাদক এ,বি,এম বুলবুল আহমদ এডভোকেট তাজ উদ্দীনের উপর হামলাকারীদের গ্রেফতার ও শাস্হির দাবী জানান । প্রবাসীরা সব সময় দেশের উন্নয়ন ও শান্তি চান,যখনই তারা দেশের আইন সৃংখলার অবনতি ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পত্র-পত্রিকায় দেখেন তখনই তারা দেশে ইনভেষ্ট করতে ভয় পান এবং আইন শৃংখলা উন্নতীর জন্য প্রশাষনকে আরো কঠোর হওয়ার আহ্বান জনান।               

 
 
 
 
 
 
 

সিলেট, ১৭ এপ্রিল  :
প্রতিহিংসা ও বিভেদ সংঘাতের রাজনীতি পরিহার করে এবং জাতীয় ঐক্য ও সংহতি জোরদার করে ইতিবাচক-কল্যাণমুখী রাজনীতি জোরদার করার লক্ষ্যে মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী ও আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী’র অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তির দাবী করেছেন সিলেটের ১০১ জন বিশিষ্ট আলেম।
বৃহস্পতিবার এক যৌথ বিবৃতিতে সিলেটের আলেমগণ বলেন, মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী ও আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী দেশের শীর্ষ স্থানীয় আলেম ও খ্যাতিমান ইসলামী চিন্তাবিদ। তারা দুইজন একাধিকবার জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। মাওলানা নিজামী সততা ও যোগ্যতার সাথে মন্ত্রীত্বের দায়িত্ব পালন করেছেন। জামায়াতে ইসলামীর আমীর ও নায়েবে আমীর হিসেবে তারা আন্তর্জাতিক অঙ্গণেও পরিচিত ইসলামী ব্যক্তিত্ব। আল্লামা সাঈদী দীর্ঘ ৩ যুগেরও বেশী সময় দেশের আনাচে-কানাচে এবং বর্হিবিশ্বে পবিত্র কোরআনের তাফসির করে আসছেন। ইসলামী সভ্যতা সংস্কৃতিক বিকাশে তাদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। কিন্তু দুর্ভাগ্যের বিষয় এই মহান দুই নেতাকে মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যমূলক অভিযোগের ভিত্তিতে বিগত ৪ বছর ধরে কারাগারের অন্ধকার প্রকোষ্ঠে আটকে রেখে ফাঁসি দেয়ার চক্রান্ত করা হচ্ছে।
আলেমগণ হিংসা-বিদ্বেষ, অনৈক্য ও সংঘাতের রাজনীতি পরিহার করে অবিলম্বে মাওলানা নিজামী ও আল্লামা সাঈদীর নিঃশর্ত মুক্তির দাবী করেন। পাশাপাশি ইসলাম ও আলেম-উলামাদের বিরুদ্ধে অবস্থান গ্রহণ না করতে সরকারের প্রতি আহবান জানান তারা।
বিবৃতি প্রদান করেন প্রখ্যাত আলেমে-দ্বীন  মাওলানা আব্দুল মালিক চৌধুরী, মাওলানা মো: লুৎফুর রহমান, মাওলানা আবু তায়্যিব সৎপুরী, মাওলানা আব্দুস সালাম আল মাদানী, হাফিজ মিফতাহুদ্দিন আহমদ, হাফিজ মাওলানা আব্দুল হালিম, মাওলানা মুফতি ফয়জুল হক জালালাবাদী, মাওলানা আব্দুল মতিন চৌধুরী শাহবাগী, মাওলানা সৈয়দ ফয়জুল্লাহ বাহার, মাওলানা মুফতি আব্দুর রহমান, মাওলানা মো: কমর উদ্দিন, মাওলানা আবুল কালাম আজাদ, মাওলানা আব্দুন নুর, মাওলানা মাহবুবুর রহমান, মাওলানা হাবিবুল্লাহ, মাওলানা মুফতি সৈয়দ আলী হায়দার, মাওলানা আলাউদ্দিন, মাওলানা সাইদুর রহমান, মাওলানা ছালিক উদ্দিন, মাওলানা শফিকুল ইসলাম, মাওলানা হাফিজ মাহবুবুর রহমান, মাওলানা তোফায়েল আহমদ, মাওলানা নূর উদ্দিন, মাওলানা লুৎফুর রহমান শাহ নূর, মাওলানা হাবিবুর রহমান, মাওলানা আব্দুল বাছিত, মাওলানা আজিজুর রহমান, মাওলানা ফখরুল ইসলাম, মাওলানা শওকত আলী, মাওলানা আব্দুশ শাকুর, মাওলানা নেছার আহমদ, মাওলানা ফয়জুর রহমান, মাওলানা আসাদুর রহমান, মাওলানা আশরাফুজ্জামান, মাওলানা লুৎফুর রহমান খান, মাওলানা আব্দুস সামাদ, মাওলানা আবু সালেহ মুছা, মাওলানা শামসুল ইসলাম, মাওলানা তোফাজ্জুল হোসাইন, মাওলানা মতিউর রহমান, মাওলানা রুস্তম আলী, মাওলানা মুজিবুর রহমান, মাওলানা কামাল উদ্দিন, মাওলানা শরীফ উদ্দিন, মাওলানা আকমল হোসেন, মাওলানা আব্দুল খালেক, মাওলানা ক্বারী এখলাছুর রহমান, মাওলানা সজিব আলী, মাওলানা আব্দুল কাদির, মাওলানা বদরুল ইসলাম, মাওলানা সোহেল আহমদ, মাওলানা মুশতাক আহমদ, মাওলানা আব্দুল হক, মাওলানা আব্দুল হাফিজ, মাওলানা হেলাল আহমদ চৌধুরী, মাওলানা আব্দুল করিম, মাওলানা সাইফুল্লাহ, মাওলানা হাফিজ মশাহিদ আহমদ, মাওলানা মুজিবুর রহমান, মাওলানা মাহমুদুর রহমান, মাওলানা সাইদুর রহমান, মাওলানা আব্দুর রউফ,  মাওলানা খন্দকার আব্দুল ওয়াদুদ, মাওলানা হাফিজ আব্দুল গফুর, মাওলানা আব্দুল কাইয়ুম, মাওলানা নুরুল ইসলাম, মাওলানা আশিকুর রহমান, মাওলানা মাহমুদুর রহমান দিলওয়ার, মাওলানা আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ, মাওলানা শিকান্দর আলী, মাওলানা মনছুর আহমদ, মাওলানা মখছুছুর রহমান, মাওলানা আব্দুল মান্নান, মাওলানা আলীম উদ্দিন,  মাওলানা আব্দুল্লাহ, মাওলানা সোলেমান আহমদ, মাওলানা রেজাউল কবির, মাওলানা খলিলুর রহমান, মাওলানা বদরুল ইসলাম, মাওলানা ক্বারী আনসারুল্লাহ, মাওলানা আব্দুল মজিদ, মাওলানা ক্বারী আব্দুল মুছাব্বির, মাওলানা এমদাদুল হক জুবায়ের, মাওলানা রুহুল আমীন, মাওলানা সাব্বির আহমদ, মাওলানা আব্দুল হাকিম খান, মাওলানা জাহিদুর রহমান, মাওলানা কাজিম উদ্দিন, মাওলানা কামারুজ্জামান, মাওলানা হুজাজ মহসিন, মাওলানা আব্দুল মালেক, মাওলানা রশিদ আহমদ, মাওলানা মাসুক আহমদ, মাওলানা আব্দুস সাগর, মাওলানা ওয়াছির আহমদ, মাওলানা মকবুল আহমদ, মাওলানা আলতাফ হোসেন, মাওলানা হাফিজুর রহমান, মাওলানা শরফ উদ্দিন, মাওলানা জামাল উদ্দিন খান, মাওলানা মুফতি আব্দুল করিম, মাওলানা আব্দুল লতিফ, মাওলানা তাজুল ইসলাম প্রমুখ।
               

 
 
 
 
 
 
 

ছাতক প্রতিনিধিঃ       
ছাতকে রাজু ডাকাতের সহযোগী ডাকাত মিজাজুল ইসলাম (৩২)কে গ্রেফতার করেছে থানা-পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে তাকে সুনামগঞ্জ জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে। বুধবার গভীর রাতে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ইছাকলস ইউনিয়নের পারকুল এলাকার সুরমা নদীতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ডাকাত মিজাজুল সিলেটের জালালাবাদ থানার হেংলাকান্দি গ্রামের মৃত আব্দুস সোবহানের পুত্র। ডাকাত সর্দার রাজুর স্বীকারোক্তি অনুযায়ী গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ছাতক থানার অফিসার্স ইনচার্জ শাহজালাল মুন্সিসহ একদল পুলিশ পারকুল এলাকায় পৌছলে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাত মিজাজুল সুরমা নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়ে। পুলিশ নদী থেকে তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। তার বিরুদ্ধে ছাতক, কোম্পানীগঞ্জসহ বিভিন্ন থানায় ডজনখানেক মামলা রয়েছে। এ ব্যাপারে ওসি শাহজালাল মুন্সি জানান, দুর্ধর্ষ ডাকাত রাজুর সহযোগী মিজাজুলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের গ্রেফতার করতে পুলিশকে সুরমা নদীতে ঝাপ দিতে হয়েছে। পানিতে ঝাপ দিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় তাকে গ্রেফতার করা হয়।
               

 
 
 
 
 
 
 

ছাতক প্রতিনিধিঃ        
ছাতকে সার্ভে আমিন সমিতির নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে স্থানীয় কমিউনিটি সেন্টারে ছাতক টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের সিনিয়র ইন্সট্রাক্টর সুব্রত শেখর শুভ’র সভাপতিত্বে ও ইন্সট্রাক্টর মাজহারুল ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত এক সভায় আমিন সমিতির নতুন কমিটি ঘোষনা করা হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, কলেজের অধ্যক্ষ ইঞ্জিনিয়ার জমিউল আক্তার খন্দকার। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, ইন্সট্রাক্টর প্রশান্ত কুমার সিংহ, এএইচএম ফিরোজ, ইন্সট্রাক্টর মাহবুবুর রহমান। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, হাসান তানভির। সভার শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন, কলেজ ছাত্র মুজাহিদ হোসেন। সভায় হাসান তানভির পাপ্পুকে সভাপতি, মাজহারুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদ ও রতন দেবনাথকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ১৫সদস্য বিশিষ্ট সার্ভে আমিন সমিতির নাম ঘোষনা করা হয়। সমিতির অন্যান্যরা হলেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি সালেহ আহমদ, সহ-সভাপতি শেখ চান মিয়া, যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল আউয়াল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সবুজ মিয়া, প্রচার সম্পাদক আবু বকর আহমদ, সহ-প্রচার সম্পাদক জামাল উদ্দিন, দপ্তর সম্পাদক মাহমুদুল হাসান, অর্থ সম্পাদক রুহুল আমীন, প্রশিক্ষণ সম্পাদক এএইচএম ফিরোজ, সদস্য এহসান মিয়া। এরআগে ১৪জন প্রশিক্ষনার্থীকে ৩ মাসব্যাপী অনুষ্ঠিত প্রশিক্ষন শেষে গত শনিবার আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের মধ্যে সনদপত্র বিতরন করা হয়।
               

 
 
 
 
 
 
 

অত্যন্ত আনন্দঘন এবং পারিবারিক পরিবেশে বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন সিলেট বিভাগীয় কমিটির ফ্যামিলি নাইট ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। বুধবার দুপুর থেকে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে এসোসিয়েশনের সদস্যরা বঙ্গবীর ওসমানী শিশু পার্কে স্বপরিবারে উপস্থিত হন । ফটো সাংবাদিকদের চিত্ত বিনোদনের জন্য এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
সন্ধ্যায় নগরীর একটি অভিজাত হোটেলে আয়োজন করা হয় এক মনোমুগ্ধকর সঙ্গীত সন্ধ্যা। ফটো সাংবাদিকদের পদচারণায় পুরো অনুষ্ঠানটি ছিল উৎসবমুখর। অনুষ্ঠানে র‌্যাফল ড্র অনুষ্ঠিত হয়। ফ্যামিলি নাইটে আসা প্রত্যেক শিশুদেরকে আকর্ষণীয় পুরস্কার প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠান চলে সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। তিনি বলেন, ফটো সাংবাদিকতা একটি ঝুঁকিপূর্ণ পেশা। ফটো সাংবাদিকরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ছবি তোলেন।  তাদের ছবির মাধ্যমে সমাজের বিভিন্ন দুর্নীতি ফুটে উঠে। তাদের ছবি দেখে মানুষের বিবেক জাগ্রত হয়। তাদের মেধা ও ত্যাগের মাধ্যমে দেশের অনেক কল্যাণ সাধিত হয়।
বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন সিলেট বিভাগীয় কমিটির সভাপতি শেখ আশরাফুল আলম নাসিরের সভাপতিত্বে অনুূষ্ঠান পরিচালনা করেন নির্বাহী সদস্য মোঃ দুলাল হোসেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি একেএম মহসিন, সাধারণ সম্পাদক মীর আহাম্মদ মীরু। এছাড়াও অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, সিলেট প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী, বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন সিলেট বিভাগীয় কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আতউর রহমান আতা, সিলেট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য তকুল রানা, সিনিয়র সহ-সভাপতি ইকবাল মনসুর, সহ-সভাপতি নাজমুল কবির পাবেল, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আশকার ইবনে আমীন লস্কর রাব্বি, কোষাধ্যক্ষ এ.এইচ. আরিফ, ক্রীড়া ও সাংগঠানিক সম্পাদক কয়েস আহমদ, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য কুমার গনেশ পাল, এসনিকের সাধারণ সম্পাদক জুরেজ আবদুল¬াহ গুলজার, বিপিজেএ’র নির্বাহী সদস্য আব্দুল বাতিন ফয়সল, মামুন হাসান, সদস্য এস, সুটন সিংহ, আনিস রহমান, ইকবাল মুন্সি, আনিস মাহমুদ, আবদুল মজিদ, শংকর দাস, এফ এ মুন্না, মোঃ শাহিন আহমদ, মাহমুদ হোসেন, নূরুল ইসলাম, সুব্রত দাস, এসএম রফিকুল ইসলাম সুজন, শিপন আহমদ প্রমুখ।
প্রধান অতিথি আরো বলেন, সিলেটের ফটো সাংবাদিক পরিবারের সাথে অনেক আগে থেকে আমার সম্পৃক্ততা। বিগত সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ফটো সাংবাদিকদের সবচেয়ে পরিশ্রম মানুষের মনে দাগ কেটেছে। সিলেটের মানুষকে উজ্জিবিত করেছে তাদের ছবি। এইজন্য তাদের প্রতি আমি চির কৃতজ্ঞ।

বিপিজেএ’র সিলেট বিভাগীয় কমিটির ফ্যামিলি নাইট ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান
বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মহসিন বলেন, ফটোসাংবাদিকতা একটি মহৎ পেশা। এই পেশার মাধ্যমে অনেক সৃজনশীল কাজ সাধিত হয়। তারা জীবনের ঝুকি নিয়ে ক্যামেরায় ছবি ধারণ করে। ফটো সাংবাদিকদের পরিবার থেকে যথেষ্ট সাপোর্ট থাকতে হবে। তাদের পরিবার থেকে সহযোগীতা ও উৎসাহ না থাকলে এগিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়।
বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন সাধারণ সম্পাদক মীর আহাম্মদ মীরু বলেন, পৃথিবীর আন্তর্জাতিক ভাষা হলো ছবি। সেই ছবি তোলার মহৎ পেশায় নিয়োজিত আছেন ফটো সাংবাদিকরা। দেশ জাতির কল্যাণে তারা গণমাধ্যমে কাজ করে যাচ্ছে। সাংবাদিকদের জীবনে অনেক সময় বড় ধরনের দুর্যোগ চলে আসে। সেগুলোকে মোকাবেলা করে এগিয়ে যেতে হবে।

               

 
 
 
 
 
 
 

সিলেট ১৭ এপ্রিল:
বাংলা নববর্ষ ১৪২১ উদযাপন উপলক্ষে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে চিত্রাংকন ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতা আগামীকাল শুক্রবার অনুষ্টিত হবে। আবৃত্তি প্রতিযোগিতা শুক্রবার সকাল ৯টায় সারদা হল প্রাঙ্গনে এবং চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা শুক্রবার সকাল ৯টায় রিকাবীবাজারস্থ মোহাম্মদ আলী জিমনেসিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে। দুটি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহনকারী প্রত্যেককে পুরস্কার এবং সনদপত্র প্রদান করা হবে।
চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা তিনটি গ্রুপে অনুষ্ঠিত হবে। ‘ক’ গ্রুপ (নার্সারী থেকে তৃতীয় শ্রেনী পর্যন্ত), চিত্রাংকনের বিষয় : ইচ্ছেমতো, মাধ্যম : ইচ্ছেমতো। ‘খ’ গ্রুপ (চতুর্থ থেকে ৭ম শ্রেনী পর্যন্ত), চিত্রাংকনের বিষয় : বৈশাখী মেলা, মাধ্যম : জলরং। ‘গ’ গ্রুপ (অষ্টম থেকে দশম শ্রেনী পর্যন্ত) চিত্রাংকনের বিষয় : বৈশাখী, মাধ্যম : জলরং/পেন্সিল স্কেচ। চিত্রাংকনের জন্য কাটিজ পেপার সিলেট সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে সরবরাহ করা হবে এবং অন্যান্য জিনিসপত্র প্রতিযোগিকে আনতে হবে।
আবৃত্তি প্রতিযোগিতা তিনটি গ্রুপে অনুষ্ঠিত হবে। ‘ক’ গ্রুপ  ( প্লে গ্রুপ থেকে দ্বিতীয় শ্রেনী পর্যন্ত) কবিতা : রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘বৃষ্টি পড়ে টাপুর টুপুর’ (প্রথম ১৬ লাইন)। ‘খ’ গ্রুপ (তৃতীয় শ্রেনী থেকে পঞ্চম শ্রেনী পর্যন্ত) কবিতা : আমিরুল ইসলামের ‘বোশেখী’। ‘গ’ গ্রুপ (ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেনী পর্যন্ত) কবিতা : রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘বৈশাখী’ (প্রথম ২৫ লাইন)। আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহনে আগ্রহীরা নিজের নাম ও গ্রুপ লিখে মোবাইল ফোনে এস এম এস এর মাধ্যমে নাম তালিকাভুক্ত করতে পারবেন। এসএমএস পাঠানোর জন্য মোবাইল ফোন নম্বর হচ্ছে : ০১৬১০০০১৭০০। 
               

 
 
 
 
 
 
 

ছাতক প্রতিনিধিঃ  
ছাতক উপজেলা যুবদল নেতা, ছৈলা-আফজলাবাদ ইউনিয়ন যুবদলের সাধারণ সম্পাদক এমরান আহমদ পবিত্র ওমরা হজ পালন শেষে সৌদি আরব থেকে বৃহস্পতিবার দেশে ফিরবেন। ওমরা হজ শেষে তার দেশে ফেরা উপলক্ষে বুধবার সৌদি আরবের জেদ্দা আল-হারামাইন আঞ্চলিক বিএনপির উদ্যোগে তাকে এক সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। আঞ্চলিক বিএনপির আহবায়ক শহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও আলমগীর হোসেনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত এ সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জেদ্দা মহানগর বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শেখ মুস্তাক আহমদ। বক্তব্য রাখেন, সাংগঠনিক সম্পাদক কামাল হোসেন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক বেলায়েক হোসেন মিঠু, মাছনা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান চৌধুরী, হাবিবুর রহমান, রিয়াদ বিএনপি নেতা মনির হোসেনসহ বিএনপি, যুবদল নেতৃবৃন্দ। সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্যে ছাতক উপজেলা যুবদল নেতা এমরান আহমদ সকল প্রবাসী বিএনপি নেতৃবৃন্দের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তিনি বিএনপির কেন্দ্রিয় নেতা, সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক, ছাতক-দোয়ারাবাজার নির্বাচনী এলাকার সাবেক সংসদ সদস্য কলিম উদ্দিন আহমদ মিলনের পক্ষ থেকে সকল প্রবাসী নেতৃবৃন্দকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, প্রবাসে থেকেও দেশের রাজনীতিতে যারা স¤পৃক্ত এবং দেশের জন্য নিজেদের শ্রম, মেধা ও অর্থ ব্যয় করছেন তাদের অবদানের কথা কখনো ভুলার নয়। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের নামে যে প্রহসন হয়েছে এমন দৃশ্য পৃথিবীর কোথাও ঘটেনি। উপজেলা নির্বাচনের নামে ভোট ডাকাতি, কেন্দ্র দখল, জাল ভোট ও ব্যালট ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। বিজয়ীদের বিজয় ছিনিয়ে নিয়ে সরকারদলীয় নির্ধারিত প্রার্থীকে বিজয়ী ঘোষনা করা হয়েছে। তিনি বলেন, ছাতক উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। নির্বাচনে প্রায় ৩৫হাজার ভোট পেলেও তার প্রাপ্ত ভোট দেখানো হয়েছে ২১হাজার ৫শ’২৯। এভাবেই বিজয়ী প্রার্থীদের জোর করে কন্ট্রোল রুমে পরাজিত করা হয়েছে। সরকারি বা বে-সরকারি যেকোন সংস্থার তদন্তে এসব জাল-জালিয়াতি অবশ্যই ধরা পড়বে। তিনি অবৈধ এ সরকার পতনের সকল আন্দোলন সংগ্রামে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য সকল প্রবাসী বিএনপি নেতৃবৃন্দের প্রতি আহবান জানান।
               

 
 
 
 
 
 
 

ছাতক প্রতিনিধিঃ  
ছাতকে দিন-দুপুরে দুঃসাহসিক চুরি সংঘটিত হয়েছে। বুধবার দুপুরে পৌর শহরের বাগবাড়ি মসজিদ সংলগ্ন হলিডে হাউজ’র দু’তলায় শহিদুল ইসলামের ভাড়াটে বাসায় এ দুঃসাহসিক চুরি সংঘটিত হয়। চোরেরা তালাবদ্ধ বাসার তালা ভেঙ্গে প্রবেশ করে ঘরের মালামাল তছনছ, আলমিরা, ওয়াড্রপ ভেঙ্গে ১২ভরি ওজনের স্বর্ণালংকারসহ প্রায় ৭লক্ষাধিক টাকা মুল্যের মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়।
               

 
 
 
 
 
 
 

দৈনিক সিলেটের ডাক পত্রিকার ডেপুটি চীফ রিপোর্টার মোহাম্মদ তাজ উদ্দিন এর উপর হামলাকারী সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও শাস্তির দাবীতে দক্ষিণ সুরমা প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ  বুধবার বেলা ১১টায় সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন।
পুলিশ কমিশনার মিজানুর রহমান স্মারকলিপি গ্রহণ করে এ ব্যাপারের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপ-পুলিশ কমিশনার (নর্থ) এজাজ আহমদকে নির্দেশ দেন। নেতৃবৃন্দ পুলিশ কমিশনারকে সার্বিক সহযোগিতার অনুরোধ জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ সুরমা প্রেসক্লাবের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মুসিক, প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক এম. আহমদ আলী, সিনিয়র সহ-সভাপতি চঞ্চল মাহমুদ ফুলর, সাধারণ সম্পাদক আজমল খান, সহ-সাধারণ সম্পাদক শাহ সুহেল আহমদ। বিজ্ঞপ্তি
           

 
 
 
জনমত জরিপ

সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ১৮ দলীয় জোটের বিজয় জাতীয় রাজনীতিতে কোনো প্রভাব ফেলবে কি?

 
হ্যাঁ না
 
 

ফলাফল দেখুন

 
 

সিলেট, ১৮এপ্রিল:
আবৃত্তি ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণের মাধ্যমে শেষ হলো সিলেট সিটি কর্পোরেশন আয়োজিত ৫দিনব্যাপী বর্ষবরণ অনুষ্ঠানমালা ১৪২১। শুক্রবার সকাল ৯টায় রিকাবীবাজারস্থ মোহাম্মদ আলী জিমনেসিয়ামে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা এবং সারদা হল প্রাঙ্গনে আবৃত্তি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। দুটি বিভাগেই বিপুল সংখ্যক প্রতিযোগী অংশ নেয়। প্রতিযোগিতা শেষে শুক্রবার সন্ধ্যায় সারদা হল প্রাঙ্গনে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
বিজয়ীদের হাতে এবং অংশগ্রহনকারী প্রত্যেকের হাতে পুরস্কার তুলে দেন সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। এসময় সমাপনী বক্তব্যে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বর্ষবরণ অনুষ্ঠানমালায় সম্পৃক্ত সকল মহলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
এসময় মঞ্চে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মেয়রের সহধর্মিনী সামা হক চৌধুরী, বরেণ্য সংগীত শিল্পী চন্দ্রাবতী রায় বর্মন, ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্যানেল মেয়র রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, ১৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর এবিএম জিল্লুর রহমান উজ্জল, ২১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুর রকিব তুহিন, ২২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সৈয়দ মিসবাহ উদ্দিন, সংরক্ষিত মহিলা আসনের কাউন্সিলর জাহানার খানম মিলন, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা: সুধাময় মজুমদার।
অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আমিনুল ইসলাম চৌধুরী লিটন এবং ফলাফল ঘোষনা করেন করেন বিশিষ্ট আবৃত্তি শিল্পী মোকাদ্দেস বাবুল ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শামসুল বাসিত শেরো।
চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার ‘ক’ গ্রুপে প্রথম স্থান অধিকার করে শেখ ফারিয়া সুলতানা রুশনী, দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে তাসাউফ রহমান লাবিব, তৃতীয় স্থান অধিকার করেছে যৌথভাবে দেওয়ান তাসিন রাজা শাফী ও আওসাফ আফিফা। ‘খ’ গ্রুপে প্রথম স্থান অধিকার করেছে অভিনন্দন কুন্ডু, দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছে সৌম্য দাশ অর্নব, তৃতীয় স্থান অধিকার করেছে ফারহানা ইসলাম। গ’ গ্রুপে প্রথম স্থান অধিকার করেছে আইরিন শর্মী, দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছে রুবাইয়া রফিকী চেলসি, তৃতীয় স্থান অধিকার করেছে হামিদুর রহমান রাহী। চিত্রাংকন প্রতিযোগিতায় বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন অরবিন্দ দাশ গুপ্ত, সামসুল বাসিত শেরো এবং ডা: সুধাময় মজুমদার।
আবৃত্তি প্রতিযোগিতার ক গ্রুপে প্রথম হয়েছে রুম্মান সাদ আহমেদ, দ্বিতীয় হয়েছে মৌমিতা মজুমদার, তৃতীয় স্থান অধিকার করেছে যৌথভাবে আদ্রিজা সাহা রাই ও প্রজ্ঞা পারমিতা ঘোষ। খ গ্রুপে প্রথম হয়েছে ছালওয়া মেহরীন, দ্বিতীয় হয়েছে তানজিম আহমেদ আরিয়ান, তৃতীয় স্ধান অধিকার করেছে যৌথভাবে নুজহাত তাবাসসুম ও জারিন তাসনিম অথৈ। গ গ্রুপে প্রথম হয়েছে ফারজানা রিফাত রাহা, দ্বিতীয় হয়েছে জুবায়ের মোহাইমিন সাব্বিব, তৃতীয় হয়েছে ঐন্দ্রিলা মজুমদার অর্ণব। আবৃত্তি প্রতিযোগিতার বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন শামীমা চৌধুরী, আমিনুল ইসলাম চৌধুরী লিটন ও মোকাদ্দেস বাবুল। পুরস্কার বিতরণ শেষে অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
               

 
 
 
 

সিলেট,১৮ এপ্রিল:
অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি বলেছেন, দেশে বিগত তিন মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিশাল পরির্বতন এসেছে। দেশে সুশাসন ও স্থিতিশীলতা বিরাজ করছে। ২০১৩ সালে দেশের অবস্থা খুব খারাপ ছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, তখন রাস্তাঘাটে, হাটে-বাজারে মানুষের জীবন বিপন্ন ছিল। এটা রাজনীতির কাজ নয়।
শুক্রবার বিকালে সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে রত্ম ফাউন্ডেশন আয়োজিত শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, সিলেটীরা কেবল শুধু সিলেটের নয়। সারা বাংলাদেশের রত্ম হতে হবে। সিলেটীরা অতীতে স্বাধীনতা যুদ্ধে, শিক্ষা, সাহিত্যসহ সর্বক্ষেত্রে যে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছিল তা আগামীতেও রাখতে হবে।

দেশের উন্নয়নে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, উন্নয়নের কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে না পারলে আমাদের সবার পরিশ্রম বৃথা যাবে।

সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার ছহুল হোসাইনের সভাপেিত্ব অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সাবেক মন্ত্রী ও দৈনিক মানবকন্ঠ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক জাকারিয়া খান চৌধুরী, রূপালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান ড. আহমদ আল কবির, এনআরবি ব্যাংকের পরিচালক ও আল হারামাইন গ্রুপের চেয়ারম্যান মাহতাবুর রহমান নাসির প্রমুখ।       

 
 
 

ঢাকা ১৮এপ্রিল:
“অনলাইন পত্রিকার লাইসেন্স ফি পাঁচ লাখ টাকা” শিরোনামে বুধবার বিডিনিউজ,কালেরকন্ঠ অনলাইন,বার্তা ২৪ ডটকম ডট বিডি , প্রিয়ডটকমসহ বেশ কয়েকেটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে সংবাদ প্রচারিত হওয়ায় অনলাইন নীতিমালা বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক মোস্তাফা জব্বার ও বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এ্যাসোসিয়নের সভাপতি  শামসুল আলম স্বপন তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন। যৌথভাবে এক প্রতিবাদ লিপিতে উল্লেখ করেন কোন দায়িত্বশীল সংবাদপত্র ও নিউজ পোর্টাল এমন ভুঁয়া, বিভ্রান্তিকর, উদ্দেশ্য প্রণোদিত সংবাদ প্রচার করতে পারে না। বাংলাদেশ কম্পিউটার  সমিতির সভাপতি মোস্তাফা জব্বার বলেন, আমরা গত ১৮ ফেব্রুয়ারী  অনলাইন লাইন নীতিমালা কমিটির চুড়ান্ত বৈঠক করি। ওই সভায় বনপা’র সভাপতি শামসুল আলম স্বপন প্রস্তাব করেন অনলাইন নিউজ পোর্টাল রেজিষ্ট্রেশন নিতে নাম মাত্র ফি (টোকেন মানি) ধার্য করা হোক। তার প্রস্তাবই কমিটি অনুমোদন করে। অনলাইন নীতিমালার তৈরীর কাজ প্রায় চুড়ান্ত।  কিন্তু একটি মহল নীতিমালা নিয়ে মিথ্যা সংবাদ প্রচার করে পোর্টাল মালিকদের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টির চেষ্টা করছে। তিনি বলেন, ওই রিপোর্টে আমার নাম ব্যবহার করা হলেও আমার সাথে কোন সাংবাদিক কথা বলেনি। তিনি ওই সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানান ।
বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এ্যাসোসিয়ন (বনপা)’র সভাপতি শামসুল আলম স্বপন প্রকাশিত সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, “এক শ্রেনীর সংবাদ মাধ্যম ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করার পায়তারা করছে। বিভ্রান্তি ছড়িয়ে তারা ফায়দা হাসিলের চেষ্টা করছে। তিনি বলেন, পোর্টাল মালিকদের স্বার্থে বনপা’র প্রস্তাবে  অনলাইন নীতিমালা অনেক সহজ করা হয়েছে। এই নীতিমালা পাস হলে সকল পোর্টাল মালিকগণ বিজ্ঞাপনসহ বেশ কিছু সরকারি সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে পারবে। তিনি বলেন, অনলাইন নিউজ পোর্টাল রেজিষ্ট্রেশন নিতে নীতিমালাতে পাঁচ লাখ টাকা কেন পাঁচ টাকার কথাও উল্লেখ করা হয়নি। বনপা থেকে প্রস্তাব করা হয়েছে “নাম মাত্র ফি” যা অনলাইন নীতিমালা বাস্তবায়ন কমিটি গ্রহন করেছে। কিন্তু দেশের নামী দামি কয়েকটি নিউজ পোর্টাল মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করে তথ্যমন্ত্রণালয় তথা সরকারের বিরুদ্ধে উস্কানিমুলক কর্মকান্ড চালিয়েছে যা দু:খজনক। অনলাইন নীতিমলার কমিটির সদস্য ও বনপা’র সভাপতি শামসুল আলম স্বপন দায়িত্বহীন সংবাদ পরিবেশন না করার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান। সেই সাথে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রকাশের বিরুদ্ধে দেশের পোর্টাল মালিক, সম্পাদক ও সাংবাদিকদের ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান।
উল্লেখ্য, গত ১২ সেপ্টেম্বর অনলাইন গণমাধ্যম পরিচালনা (খসড়া) নীতিমালা ২০১২ ঘোষণা করার পর “বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এ্যাসোসিয়ন (বনপা)” সর্বপ্রথম ওই নীতিমালার বিরোধীতা করে আন্দোলনে ডাক দেয় । বনপা’র উদ্যোগে একই সালের ১৫ অক্টোবর জাতীয় জাদুঘর মিলনায়তনে দেশের অনলাইন নিউজ পোর্টাল মালিক-সম্পাদকদের নিয়ে জাতীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু ও তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান উপস্থিত হয়ে অনলাইন নিউজ পোর্টালের পক্ষে অবস্থান নেন। তথ্যমন্ত্রী পরে অনলাইন নীতিমালা বাস্তবায়ন কমিটি গঠন করেন।

 
 
 

সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ-লন্ডন থেকে
আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম আজ লন্ডনে ঐতিহাসিক মুজিবনগর সরকার দিবসের আলোচনায় বলেছেন, অনেকেই অনেক কথা বলছেন, অনেক বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন। কেউ বলছেন বিপ্লবী সরকার, কেউ বলছেন অস্থায়ী সরকার। সবই ভুল। কেননা বাংলাদেশের অস্তিত্বের সাথে ওতপ্রোতভাবে ঐতিহাসিক মুজিব নগর সরকার জড়িত। “এই সরকার আমাদের আত্মপরিচয়- আমাদের অস্তিত্বের প্রথম ঐতিহাসিক প্রকাশ যা সারা বিশ্বের সকল ইতিহাসবিদ, রাষ্ট্রনায়ক, দার্শনিক, রাজনীতি বিজ্ঞানীদের দ্বারা স্বীকৃত”।

সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম আরো বলেন, ১৯৭০ সালের বঙ্গবন্ধু মোট পাঁচ ভাগ ভোটের মধ্যে চার ভাগের উপরে ভোট পেয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জনের মধ্যদিয়ে সর্বপ্রথম আইনীভাবে বৈধ নির্বাচিত নেতার মর্যাদা যেমন লাভ করেন, একইভাবে নির্বাচিত বৈধ জনপ্রতিনিধিরাই ১০ই এপ্রিল ১৯৭১ সালে প্রথম স্বাধীন সার্বভৌম নামক রাষ্ট্রের ঘোষণা দেন।

সৈয়দ আশরাফ স্পষ্টভাবে বলেন, মুজিব নগর সরকারের এই ঘোষণার মধ্যদিয়ে তখনকার সাড়ে সাতকোটি বাংলাদেশীদের পক্ষ থেকে বাঙালিদের অবিসংবাদিত নেতা হিসেবে বঙ্গবন্ধু ১৯৭১ সালের ২৬ শে মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা দেন-সেটা পরিষ্কারভাবেই ঘোষণাতে বলা আছে, যা কোন সরকারই এমনকি আওয়ামীলীগ, বিএনপি, এরশাদের সরকার সহ বিশ্বের কোন ঐতিহাসিকগণ অস্বীকার করেননি কিংবা পরিবর্তন করেননি।

মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম জিয়াউর রহমানের সাথে যুদ্ধের স্মৃতিচারণ করে বলেন, আন্তর্জাতিক আইন সহ জাতি সংঘের সনদে বলা আছে, জনগণের প্রতিনিধি কিংবা অবিসংবাদিত নেতা ছাড়া কেউ স্বাধীনতা ঘোষণা করতে পারেননা। বিএনপি নেতাদের ও তারেক রহমানের ও খালেদা জিয়ার নামোল্লেখ না করে সাম্প্রতিক বক্তব্যের ইঙ্গিত করে বলেন কে কি বললো তাতে কি আসে যায়।লোকে জানে এসব পাগলের প্রলাপ।

সৈয়দ আশরাফ মুক্তিযুদ্ধের নানান পটভূমি ও আইনি ব্যাখ্যা দিয়ে বলেন, বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ঘোষক এবং প্রথম রাষ্ট্রপতি- এটা স্বীকৃত প্রতিষ্ঠিত আইনি সত্য।

মন্ত্রীর যুক্তরাজ্য সফর উপলক্ষে যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ আয়োজিত ঐতিহাসিক মুজিব নগর দিবসের আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব জালাল উদ্দিন। সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুকের সঞ্চালনায় সভায় অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন আওয়ামীলীগ নেতা শাহ শামীম, আলহাজ্ব শামসুদ্দিন খান, আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, নঈম উদ্দিন রিয়াজ, ব্যারিস্টার আবুল কালাম চৌধুরী সহ আরো অনেকেই।
               

 
 
 

সিলেট, ১৮এপ্রিল:
যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার সামছুল ইসলাম বাচ্চু বলেছেন, বিশ্বের মানচিত্রে মাতৃভাষা বাংলা ও বাংলাদেশ বেঁচে থাকবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ততদিন স্বমহিমায় ভাস্কর হয়ে থাকবেন। দেশের প্রয়োজনে সঠিক দিক নির্দেশনা দিয়ে একটি জাতিকে বেচে থাকার যে প্রেরণা দেখিয়েছিলেন তা যুগ যুগান্তরে চিরঅক্ষয় হয়ে থাকবে। বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও তার পুত্র তারেক রহমান ইতিহাস বিকৃতির যে লীলা খেলায় মেতে উঠেছেন তা এ দেশের জনগণ কখনো মেনে নিবে না। নির্লজ্জ মিথ্যাচার চালিয়ে জাতিকে বিভ্রান্ত করার যে অপপ্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছেন তার দাতভাঙ্গা জবাব দিতে আওয়ামীলীগ ও তার অঙ্গসংগঠন সমূহের নেতাকর্মীরা প্রস্তুত। তিনি ইতিহাস বিকৃতিকারীদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার জন্য দলীয় নেতাকর্মীদের আহ্বান জানান এবং অবিলম্বে ইতিহাস বিকৃতির দায়ে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।
তিনি শুক্রবার বিকেলে সিলেট নগরীর উপশহরস্থ এবিসি পয়েন্টে সিলেট মহানগর ২২নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের উদ্যোগে বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি নিয়ে তারেক রহমান ও বেগম খালেদা জিয়ার নির্লজ্জ মিথ্যাচার ও ইতিহাস বিকৃতির তীব্র প্রতিবাদ এবং সরকারের কাছে বিচারের দাবীতে আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি কামাল উদ্দিন সভাপতিত্বে, ২২নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মশাহিদ খানের পরিচালনায় প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি রাহাত তরফদার, মহানগর শ্রমিক লীগের যুগ্ম সম্পাদক শামীম ইকবাল, ২২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাহের ইজু। বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সদস্য আব্দুর রশিদ রাশেদ, মহানগর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি জিয়াউল হক জিয়া, আওয়ামী প্রজন্ম লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুফিয়ান আহমদ পান্না, মহানগর যুবলীগ নেতা জাকিরুল আলম জাকির, ২২নং ওয়ার্ড প্রজন্মলীগ নেতা এনাম আহমদ, ছাত্রলীগ নেতা রুহুল আলম চৌধুরী উজ্জ্বল, মিন্নত চৌধুরী, অনুর চৌধুরী, এইচ আর সুমন, ইসমাঈল হোসেন পাপলু, দেলওয়ার হোসেন, হোসেন খান শুভ প্রমুখ। সমাবেশ পূর্বে এক বিক্ষোভ মিছিল উপশহর এলাকার সবক’টি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। বিজ্ঞপ্তি
               

 
 
 

কাজী জমিরুল ইসলাম মমতাজ ,সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিছবাহ উদ্দিন সিরাজ বলেছেন, স্বাধীনতার ইতিহাস নিয়ে প্রতিনিয়ত যারা মিথ্যাচার করছে তারা পাকিস্থানের চর হিসেবে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়া বাংলাদেশে ও তারেক রহমান সম্প্রতি লন্ডনে বসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে অবৈধ রাষ্ট্রপতি বলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু ঢাকার সরোওয়ার্দী উদ্দ্যানে ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চের জনসভায় যে ভাষন দিয়েছিলেন সেখানেই স্বাধীনতার ঘোষনা প্রকাশ পেয়েছিল। তারা দেশকে আফগানিস্থান কিংবা পাকিস্থান বানানোর জন্য স্বাধীনতা বিরোধীদের পক্ষ অবলম্বন করে শেখ হাসিনার সরকারের উন্নয়নের ধারাকে ব্যাহত করতে নতুন করে মিথ্যাচার ও ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহবান জানান।
তিনি বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ কর্তৃক সুনামগঞ্জের কৃতি সন্তান ও জেলা আওয়ামীলীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা সুনামগঞ্জ ও মৌলভীবাজার সংরক্ষিত আসনে মহিলা সংসদ সদস্য এডভোকেট শামছুন নাহার বেগম শাহানাকে দেয়া সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
সংবর্ধিত অতিথি এডভোকেট শামছুন নাহার বেগম শাহানা তাকে সংরক্ষিত মহিলা সংসদ সদস্য নির্বাচিত করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে আবেক আপ্লুত কন্ঠে বলেন আমি সুনামগঞ্জবাসীর ভালবাসার কাছে চিরদিনের জন্য ঋনী হয়ে গেছি। তিনি আরো বলেন জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের উন্নয়ন,সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে মহান জাতীয় সংসদে দাবী আদায়ের জন্য সংগ্রাম করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি এডভোকেট আপ্তাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব নুরুল হুদা মুকুটের সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন,জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি এডভোকেট রইছ উদ্দিন,মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান,বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভেকেট আলী আমজদ,জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক এডভোকেট হায়দার চৌধুরী লিটন,বিজয় তালুকদার বিজু,বাংলাদেশ কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় নেত্রী এডভোকেট শামীমা শাহারিয়া,জেলা কৃষকলীগের সাধারন সম্পাদক করুনা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল,জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি মোঃ ফজলুল হক,ছাতক উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবরু মিয়া,জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক রনজিৎ চৌধুরী রাজন,পৌর যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান মিজান,জেলা সৈনিকলীগের সাধারন সম্পাদক রিংকু চৌধুরী,জেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি সুব্রত সরকার প্রমুখ।
এদিকে সন্ধ্যা ৭টায় সুনামগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজের পক্ষ থেকে নবনির্বাচিত মহিলা সংসদ সদস্য এডভোকেট শামছুন নাহার বেগম শাহানাকে এক সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খায়রুল হুদা চপলের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিছাবাহ উদ্দিন সিরাজ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চেম্বারের সিনিয়র সহ সভাপতি আমিনুল ইসলাম,সহ সভাপতি সজীব রঞ্জন দাস,পরিচালক দিলীপ রায়,শংকর দাস,অমল কর,পৌরসভার সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়র নুরুল ইসলাম বজলু,সাংবাদিক লতিফুর রহমান রাজু প্রমুখ। পরিশেষে চেম্বার অব কমার্সের পক্ষ থেকে নবনির্বাচিত মহিলা সংসদ সদস্যকে ক্রেষ্ট প্রদান করা হয়। 
               

 
 
 

সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ-লন্ডন থেকে
লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশ আজকে জানিয়েছে, টাওয়ার হ্যামলেটস মেয়রের বিরুদ্ধে আনীত আর্থিক অনিয়ম ও বাংলাদেশীদের গ্র্যান্ট দেয়ার ব্যাপারে আধিক্য, মিস-ম্যানেজম্যান্টের ব্যাপারে কাউন্সিলের গুরুত্বপূর্ণ তিনটি ফাইল পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পরীক্ষা করে দেখার পরেও  এ ব্যাপারে কোন তথ্য প্রমাণ তারা পায়নি।

মেট্রোপলিটন পুলিশ তাদের ভাষায় বলছে- “নো নিউ ক্রেডিবল এভিডেন্স অব ক্রিমিন্যালিটি “।

পুলিশ বলছে বিবিসি প্যানোরামাতে চ্যারিটির আর্থিক অনিয়ম প্রদানের অভিযোগের প্রেক্ষিতে ডিপার্টম্যান্ট কমিউনিটি এন্ড লোকাল গভর্ণম্যান্ট এর পক্ষ থেকে তাদেরকে তিনটি ফাইল প্রদান করা হয় তদন্ত করে দেখার জন্যে।

পুলিশ সেই তিনটি ফাইল খতিয়ে দেখে কোন অনিয়ম পায়নি।

পুলিশ জানিয়েছে, “এখন আর নতুন করে তদন্তের প্রয়োজন নেই”।

স্কটল্যান্ড ইয়ার্ডের স্পেশাল টিম ফাইলগুলো রিভিউ করেছে এবং তাতেও কোন অনিয়ম পাওয়ার তথ্য নেই। এর বাইরেও এরিক পিকলের পাঠানো তদন্ত দল- প্রাইস ওয়াটার হাউস কোপার্স এলএলপি তদন্ত দলের মাধ্যমে ফাইল জব্ধ করে খতিয়ে দেখা হয়।

স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড বলছে “গত ছয়দিন ধরে তারা সমন্বিতভাবে সেই ফাইলগুলো পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেখেছেন, তাতে কোন অনিয়ম পাওয়া যায়নি”।

“উল্লেখ্য মেয়র লুতফুর রহমান এর আগে এরিক পিকলের তদন্তকারী দলকে স্বাগত জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছিলেন”।

টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের মুখপাত্র বলছেন, তারা মেট্রোপলিটন পুলিশের তদন্ত দলকে সহায়তা করছেন এবং আউট কামকে স্বাগত জানিয়েছেন এবং সকল সময় অডিটর,পুলিশ ও ডিপার্টম্যান্টের সাথে সহযোগিতামূলক যৌথভাবে কাজ করবেন।

সূত্রঃবিবিসি নিউজ               

 
 
 

ঢাকা, ১৭ এপ্রিল:
শহরতলীর বটেশ্বর বাজার এলাকায় বিকাশ কর্মকর্তা গৌতম কুমার পালকে আহত করে ৫ লক্ষ টাকা নিয়ে গেছে ছিনতাইকারীরা। এ সময় ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে তিনি গুরুতর আহত হন। বর্তমানে তিনি সিলেট ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। শাহপরান থানার এস আই রেনু দেব ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সুবিদবাজার এলাকার মৃত গৌরাঙ্গ কুমার পালের পুত্র গৌতম পাল (২৮) মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান বিকাশের একজন মার্কেটিং অফিসার।বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটার দিকে বটেশ্বর থেকে টাকা সংগ্রহ করে স্থানীয় ট্রাস্ট ব্যাংকের উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলেন। কিন্তু বটেশ্বর বাজার এলাকায় রিকসা যোগে আসামাত্র তিনটি মোটরসাইকেল যোগে কয়েকজন ছিনতাইকারী তার গতিরোধে করে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে সাথে থাকা ৫ লক্ষ টাকা নিয়ে যায়। এ সময় তিনি টাকার ব্যাগটি রাখার চেষ্টা করলে ছিনতাইকারীরা তার শরীরের বিভিন্ন অংশে ছুরিকাঘাত করে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে চলে যায়। পরে স্থানীয় লোকদের সহযোগিতায় তাকে সিলেট এম এ জি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। খবর পেয়ে শাহপরান থানার এস আই বেনু দেব ঘটনাস্থলে ছুটে যান। তবে রাত সাড়ে ১০টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত কাউকে আটক করতে পারেনি। আহত গৌতম কুমার পালের চাচাতো ভাই প্রণব জ্যোতিপাল জানান, গৌতমকে হাসপাতালে ৩য় তলার ৯ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তার শরীরে বেশ কয়েকটি আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে তিনি জানান। শাহপরান থানার এস আই বেনু দেবের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আহত ব্যক্তির কাছ থেকে বিস্তারিত জেনে তদন্ত চালানো হবে। এদিকে, এলাকায় দিন দুপুরে এ ধরণের ছিনতাইয়ের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।                

 
 
 

ঢাকা: বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসানের স্বামী আবু বকর সিদ্দিককে অপহরণের প্রায় ৩৫ ঘণ্টা পর ছেড়ে দিয়েছে অপহরণকারীরা।।
বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে রাজধানীর কলাবাগান মাঠ এলাকায় সিএনজিতে তল্লাশি চালানোর সময় পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। পরে তাকে ধানমন্ডি থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

ধানমন্ডি থানার এএসআই বাবুল জানিয়েছেন, কলাবাগান এলাকায় চেকপোস্টে তল্লাশি চালানোর সময় একটি সিএনজিতে ছেড়া শার্ট গায়ে একজন যাত্রীকে দেখতে পেয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার সময় পুলিশ জানতে পারে যে তিনি মি: সিদ্দিক, যিনি নারায়ণগঞ্জ থেকে অপহৃত হয়েছিলেন। এরপর তাকে ধানমন্ডি থানা হেফাজতে নিয়ে যাওয়া হয় ও তার পরিবারকে অবহিত করা হয়।

থানায় বসে আবু বকর সিদ্দিক সাংবাদিকদের বলেন, ওরা আমাকে চোখ বাঁধা অবস্থায় ফেলে রেখে গেছে। চোখ খুলে দেখি মিরপুরের পাইকপাড়া আনসার ক্যাম্পে। ছেড়ে দেওয়ার সময় অপহরণকারীরা বাসায় ফেরার ভাড়া বাবদ তাকে তিন’শ টাকাও দিয়ে দিয়েছে। এরপর শেওড়াপাড়া থেকে তিনি রিকশায় ওঠেন, কিছু পরে একটি সিএনজি ভাড়া করেন তার বাসা সেন্ট্রাল রোডের উদ্দেশে।

তিনি আরো জানান, অপহরণের পর থেকে ছেড়ে দেওয়ার আগ পর্যন্ত প্রায় ৩৫ ঘণ্টা তার চোখ বাঁধা অবস্থাতেই ছিল। তবে তার উপর কোনো ধরনের অত্যাচার করা হয়নি।

খবর পেয়ে রাতেই রিজওয়ানা হাসানসহ পরিবারের সদস্যরা থানায় ছুটে যান। বাসার ফেরার সময় রিজওয়ানা হাসান সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। তবে সিদ্দিককে কারা এবং কেন অপহরণ করেছিল সে বিষয়ে কোনো তথ্য জানা যায়নি।

আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্নের জন্য আবু বক্কর সিদ্দিককে শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে নারায়ণগঞ্জ কোর্টে নিয়ে যেতে হবে বলে জানা গেছে। সেখানে ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে থেকে নিজেদের কাছে নিয়ে আসা হবে বলে জানান পরিবারের সদস্যরা।

উল্লেখ্য, গত বুধবার দুপুর আড়াইটর দিকে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডে ভুঁইয়া ফিলিং স্টেশনের সামনে থেকে একদল সশস্ত্র দুর্বৃত্ত অপহরণ করে রিজওয়ান হাসানের স্বামী আবু বকর সিদ্দিককে। এরপর থেকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তার খোঁজে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায়।
           

 
 
 

ঢাকা, ১৭ এপ্রিল  :
নিখোঁজ বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসিনা রুশদীর লুনা বলেছেন, স্বামী নিখোঁজ হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমার সন্তানদের নিয়ে দেখা করেছিলাম। তিনি আমাদের তাকে ফিরেয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছিলেন। দুই বছর পার হয়েছে, তার আশ্বাস শুধু আশ্বাসই রয়ে গেছে।
বৃহস্পতিবার দুপুর ১টা ৪০ মিনিটে বনানীর সিলেট হাউসে নিজ বাসভবনে কান্নাজড়িত কণ্ঠে এভাবেই নিখোঁজ স্বামী ইলিয়াস আলীকে ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্বাসের কথা সাংবাদিকদের সামনে উপস্থাপন করেন তিনি।
এখনও স্বামী ফিরে আসবে, এ আশায় বুক বেঁধে আছি উল্লেখ করে তাহসিনা রুশদীর বলেন, যতক্ষণ বেঁচে থাকব ততক্ষণই এ আশা করব। তিনি অভিযোগ করেন, রাষ্ট্রের কাছে যদি সহযোগিতা না পাই তাহলে আর কার কাছে পাব। আল্লাহর প্রতি বিশ্বাস আছে। তিনি আমার স্বামীকে ফিরিয়ে দেবেন।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, গত দেড় বছর প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমার পরিবারের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করা হয়নি। কিংবা তার উদ্ধারের কোনো অগ্রগতি সম্পর্কে আমাদের জানানো হয়নি।
ইলিয়াস আলীর গুমের বিষয়ে পাশের রাষ্ট্রের কোনো সংস্থা জড়িত কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কে বা কারা জড়িত তা আমি বলতে পারব না। তবে এটুকু বলতে পারব রাজনৈতিক কারণেই তাকে গুম করা হয়েছে।
ইলিয়াস আলীর গুমের বিষয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সংস্থা উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। এরপরও কোনো ফল পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ করেন তাহসিনা রুশদীর। তিনি বলেন, দেশে প্রতিনিয়তই এ ধরনের ঘটনা ঘটছে। বিএনপির অনেক নেতাই গুম হচ্ছেন। ইলিয়াস আলী কোনো অপরিচিত লোক ছিলেন না। বিএনপির মতো একটি বড় ও জনপ্রিয় দলের নেতা ছিলেন।
তিনি প্রশ্ন রাখেন, সাধারণ মানুষের ক্ষেত্রে এ ধরনের ঘটনা ঘটলে তারা কোথায় যাবে?
তাহসিনা রুশদীর লোনার সঙ্গে এ সময় বড় ছেলে অর্নব আবরার ইলিয়াস উপস্থিত ছিলেন।উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল রাজধানীর বনানী থেকে গাড়িচালক আনসার আলীসহ অপহৃত হন ইলিয়াস আলী। রাস্তায় পড়ে থাকা তার গাড়ি উদ্ধার করে বনানী থানার পুলিশ। কয়েকটি সূত্র জানিয়েছে, মাইক্রোবাস ও জিপ নিয়ে আসা একদল লোক ওই দুজনকে ধরে নিয়ে গেছে। গত দুই বছরে তদন্তে পাওয়া এটুকু তথ্যই গণমাধ্যম জানতে পেরেছে। বৃহস্পতিবার ইলিয়াস আলী নিখোঁজের দুই বছর পার হয়।
সংবাদ সম্মেলন পরবর্তী সময়ে ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসিনা রুশদীর লুনার বাসায় গিয়ে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। দুপুর ২টায় তিনি ইলিয়াস আলীর বনানী পুরাতন ডিওএইচএস’র বাসায় যান । সেখানে প্রায় আধাঘণ্টা অবস্থান করেন। এসময় তিনি ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসিনা রুশদীর লুনা ও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন এবং তাদের প্রতি সমবেদনা জানান।
এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব আমান উল্লাহ আমান, সালাহ উদ্দিন আহমেদ, বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নাজিম উদ্দিন আলম, বিএনপির সহ-দফতর বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল লতিফ জনি প্রমুখ।               

 
 
 

সিলেট, ১৭ এপ্রিল  :
সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেছেন, সততা ও নিষ্ঠার সাথে ব্যবসা পরিচালনা করলে সফলতা অর্জন করা সম্ভব। একজন সফল ব্যবসায়ী নিজ পরিবার ও দেশের জন্য মঙ্গল বয়ে আনতে পারে। ব্যবসায়ীরা দেশের অর্থনীতিকে শক্তিশালী করে। বৃহস্পতিবার নগরীর সুবিদবাজার এলাকায় আনাস এন্টারপ্রাইজ যতুন পেইন্টস এর শোরুম উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র আরিফ উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
আনাস এন্টারপ্রাইজ এর স্বত্ত্বাধিকারী মোঃ কবির মাসুক এর সভাপতিত্বে ও সেলস্ ম্যানেজার জুবায়ের আহমদ এর পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন যতুন পেইন্টস এর সাউথ ইস্ট এশিয়া প্যাসিফিক এলাকার রিজিওনাল ভাইস প্রেসিডেন্ট মার্টিন চিউ- সিঙ্গাপুর, বাংলাদেশের জেনারেল ম্যানেজার শফিক সিদ্দিকী- ইন্ডিয়ান, যতুন পেইন্টস এর সাউথ ইস্ট এশিয়া প্যাসিফিক এলাকার রিজিওনাল ফিনান্স ডিরেক্টর কেম সিং- মালেশিয়া। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন হামদান রেস্টুরেন্টের স্বত্ত্বাধিকারী মোঃ আব্দুল কাইয়ূম, ফখরুল ইসলাম, আব্দুল জাহির, আব্দুল কাদির, লুৎফুর আহমদ, সাদিক আহমদ, জিয়াউল হক, মহিন মিয়া, আব্দুল করিম, আব্দুল আলিম, বেলাল আহমদ, আব্দুল আওয়াল প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি
               

 
 
 
 
 
কবিতা
শিল্প-সাহিত্
মিডিয়া
ইসলাম
Image Missing
 
 
বিনোদন
বিনোদন
বিচিত্রা
বিচিত্রা
মুক্তমঞ্চ
Image Missing
 
 
খেলাধুলা
খেলাধুলা
স্বাস্থ্য
স্বাস্থ্য
তথ্য-প্রযুক্তি
তথ্য-প্রযুক্তি
 
 
সংবাদদাতা
জীবন সদস্য
সম্পাদক
 
দেশ বিদেশ
 
 
 

চট্টগ্রাম : গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী। মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে মিরসরাই থেকে উপজেলা ভিত্তিক সর্বোচ্চ সংখ্যক মুক্তিযোদ্ধা অংশগ্রহণ করেছে। মিরসরাইসহ সারা দেশকে কলঙ্কমুক্ত করতে যুদ্ধপরাধীদের বিচার কাজ চলছে। আগামী দুই একদিনের মধ্যে যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর চূড়ান্ত রায় হবে।

শুক্রবার বিকেলে চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার মিঠানালা রামদয়াল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী আরো বলেন, মিঠানালা স্কুলে জরাজীর্ণ ভবন ভেঙে চারতলা নতুন ভবন করা হবে। মিরসরাই উপজেলাতে পৃথক দু’টি আবাসন স্থাপন করা হবে।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা মো. মোয়াজ্জেম হোসেনের সঞ্চালনায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও মিঠানালা রামদয়াল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি শরীফ উদ্দিন শোভনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন জনতা ব্যাংকের চেয়ারম্যান ড. আবুল বারাকাত, বসুন্ধরা গ্রুপের পরিচালক রফিকুল ইসলাম, জনতা ব্যাংকের ডিএমডি মো.  ইফতেখারজুজ্জামান, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রাণালয়ের উপ-সচিব আবুল কালাম আজাদ, সুপ্রিম ট্রেডিং কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান আবুল হোসেন মো. ফিরোজ।               

 
 
 
 
 
 

জিয়া তালুকদার, বার্মিংহাম:
বার্মিংহামের পিকাডেলী ব্যানকুইটিং হলে গত ১৪ এপ্রিল সোমবার বিকাল ৭টার সময় সকল অশুভ শক্তির বিনাশ ও  সকলের জন্য সুন্দর সুস্থ ভবিষ্যত কামনা করে মঙ্গল প্রদীপ জ্বালিয়ে উৎসবের সূচনা করা হয়।
 এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের সহকারী হাইকমিশনার ফয়সল আহমেদ। সংগঠনের সভাপতি এলাহি হক সেলুর সভাপতিত্বে  ও আশরাফুল ওয়াহিদ দুলাল এর প্রানবন্ত উপস্থাপনায় বৈশাখী মেলাকে  উজ্জীবিত করে তুলে।

অনুষ্ঠানে তিনজন বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গকে সমাজে তাদের গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়। তারা হলেন- ইবরাহিম আলী, কমরেড মসুদ আহমদ ও মো. কবির উদ্দিন। এ সময় বার্মিংহামের সহকারী হাইকমিশনার ফয়ছল আহমেদ, সংগঠনের সভাপতি এলাহি হক সেলু ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান বাসিক সম্মাননাপ্রাপ্ত গুণীজনদের বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা উপহার দেন।

প্রায় পাচ  শতাধিক দ্র্শকের এই উৎসবে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ইবরাহিম আলী, কমরেড মসুদ আহমদ, ফয়জুর রহমান চৌধুরী এমবিই, এনামুল হক খান নেপা, নুরুল ইসলাম কিছলু, আব্দুস শুকুর এছাড়াও অতিথি হিসেবে মেলায় উপস্থিত ছিলেন বার্মিংনহাম আওয়ামিলীগ সভাপতি  কবির উদ্দিন,  ইব্রাহিম আলী, আলী ইসমাইল,মুক্তিযোদ্বা আব্দুল  হামিদ,যুক্তরাজ্য  আওয়ামিলীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মিছবাহুর রাহমান মিছবাহ, ,  ফখরুল ইসলাম, নাসির আহমেদ শ্যামল,  শেখ মো. আব্দুল গফুর, হবিগঞ্জ সোসাইটি ইউকের সেক্রেটারি এম এ মুন্তাকিম,  প্রমুখ।

 চিরসবুজ বাংলার নতুন

 প্রজন্মের মাঝে  আমাদের সংস্কৃতি  কে  ছড়িয়ে দিতে প্রবাসে বৈশাখী উৎসবের এই আয়োজন।


মেলায় বি

ভিন্ন রকমের স্টলের পাশাপাশি শিশু-কিশোরদের জন্য বাউন্সি ক্যাসলের ব্যবস্থা ছিল। অনুষ্ঠানএ     সংগীত  পরিবেশনা করেন   সুমিত, অমিত দে, রোজী সরকার, শেফালী ও ঝুমাসহ বিভিন্ন শিল্পীরা।

 

               

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ১৮ এপ্রিল: প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপের কারণেই বেলার প্রধান নির্বাহী রিজোয়ানার স্বামী অপহরণ হওয়ার পর ফিরে এসেছেন। তাহলে তো এটা স্পষ্ট যে, চৌধুরী আলম ও ইলিয়াস আলী গুম হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী তাদের উদ্ধারের জন্য কোনো পদক্ষেপ নেননি এমন মন্তব্য করলেন নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

শুক্রবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে নাগরিক ঐক্য আয়োজিত প্রয়াত সাংবাদিক ও কলামিস্ট এ বি এম মূসার স্মরণসভায় তিনি এ কথা বলেন।

স্বামীকে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপের কারণে ফিরে পেয়েছেন রিজোয়ানার গণমাধ্যমে বলা এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, গুম হওয়া অন্যদের ক্ষেত্রে এই ভূমিকা নিলে তাদেরকেও ফিরে পাওয়া যেত।

মান্না আরও বলেন, রিজোয়ানার স্বামী আবু বকর সিদ্দিকীকে অপহরণ করার পর আবার ফিরিয়েও দেওয়া হলো কিন্তু ঠিক কি কারণে কারা তাকে অপহরণ করলো তা এখনও স্পষ্ট নয়।

আইন ও সালিশ কেন্দ্রের তথ্য মতে, গত চার বছরে সাড়ে ৪’শ এর উপর মানুষ অপহৃত হয়েছে বলেও জানান তিনি।

নিউ এজ পত্রিকার সম্পাদক নুরুল কবির বলেন, সামাজিকভাবে সর্বস্তরের মানুষ রিজোয়ানার স্বামী অপহরণের বিরুদ্ধে প্রতিক্রিয়া দেখানোর কারণে অপহরণকারীরা বুঝতে পেরেছে এই বিষয়টিকে তারা সামলাতে পারবে না। তাই তাকে ছেড়ে দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী যদি এক্ষেত্রে হস্তক্ষেপ করে থাকেন তবে তাকে অবশ্যই ধন্যবাদ জানাতে হবে। কিন্তু কি কারণে রিজোয়ানার স্বামী অপহৃত করা হলো তা বের করা একান্ত প্রয়োজন।

কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, অপহরণকারীরা রিজোয়ানার স্বামীকে অপহরণের পর ছেড়ে দিয়েছে। আবার তার পকেটে ৩’শ টাকাও দিয়েছে। তাই সন্তুষ্ট হয়ে অপহরণকারীদের ভালো মানুষ হিসেবে আখ্যা দিয়ে বিষয়টিকে চাপা দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর উচিত তিনি ঠিক কি কারণে অপহৃত হয়েছেন তা সঠিক তদন্তের মাধ্যমে বের করা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল এ বি এম মূসা সম্পর্কে বলেন, হুমায়ুন আহমেদের বইয়ে বলা তুই রাজাকারের মত করে মূসা সাহেব এই সরকারকে ‘তুই চোর’ বলে সম্বোধন করেছেন। এই কারণে সরকারের ভেতরকার চোরেরা মূসা সাহেবকে জড়িয়ে নানা কুৎসা রটনা করেছে। তাকে রাজাকার বলার চেষ্টাও করেছে। এমন কি মৃত্যুর পর তাকে প্রাপ্য সম্মানটুকু পর্যন্ত দেয়নি।

মাহমুদুর রহমান মান্নার সভাপতিত্বে এ সময় স্মরণসভায় আরও উপস্থিত ছিলেন- দৈনিক মানবজমিনের সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী, সুশাসনের জন্য নাগরিক সুজনের সাধারণ-সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার, গণফোরামের সাধারণ-সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু প্রমুখ।               

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ১৮ এপ্রিল: বেলার প্রধান নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ রিজওয়ানা হাসান বলেছেন, আমরা পরিবারের কেউই নিরাপত্তা বোধ করছি না। তিনি বলেন, আমার স্বামীকে কি কারণে অপহরণ করা হয়েছে তা এখনো পরিষ্কার নয়। এটা কি পরিকল্পিত নাকি অপরিকল্পিত সেটা বুঝতে সময় লাগবে। পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট যে তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছে তারা তদন্তের পর এটা বের হয়ে আসবে।

স্বামী আবু বক্কর সিদ্দিকীর অপহরণ থেকে মুক্তি লাভের পর শুক্রবার বিকালে রাজধানীতে নিজ বাসায় আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে রিজওয়ানা বলেন, আমার স্বামীকে ফিরে পাওয়াতে দেশবাসীর কাছে আমরা ঋণী। সবাই আমাদের সহযোগিতা করেছে। ফেসবুক, টুইটারে আমরা সব মানুষের উৎকন্ঠা দেখেছি।

রিজওয়ানা বলেন, আমি স্বামী উদ্ধার হওয়ায় সহযোগিতা ও সহমর্মিতা প্রকাশের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ সবাইকে তাদের আন্তরিকতার জন্য আমার কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, গণমাধ্যমকে ধন্যবাদ। আপনারা সহযোগিতা করায়। এটা আরো সহয হয়ে উঠেছে। গণমাধ্যম ও আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার সমন্বয়ে আজকে এটা সম্ভব হয়েছে।

তিনি বলেন, আগের অপহরণ ঘটনাগুলোর বিচার হলে এ ঘটনা ঘটত না। আমি চাইব এটিই শেষ ঘটনা হোক।

তার স্বামীর অপহরণ ঘটনা পরিকল্পিত কি অপরিকল্পিত, সেটা তিনি জানেন না উল্লেখ করে রিজওয়ানা বলেন, কেন তাকে ধরে নেয়া হলো, সে বিষয়ে তিনি (সিদ্দিক) স্পষ্টভাবে কোনো ধারণা করতে পারেননি। তবে এবি সিদ্দিককে যেখানে আটকে রাখা হয়েছিল, সেখানকার লোকজনের কথাবার্তায় মনে হয়েছে, সেখানে এ ধরনের ঘটনা আরো ঘটেছে বা ঘটে। শুধু তার (সিদ্দিক) ফিরে আসাতে দেশবাসী আশ্বস্ত হতে পারছে না। নাগরিক নিরাপত্তার স্বার্থেই এই ঘটনার রহস্য উদঘাটিত হওয়া উচিত।

বেলার নির্বাহী পরিচালক বলেন, অপহৃত হওয়ার শুরু থেকে ছাড়া পাওয়া পর্যন্ত বিস্তারিত আদালতে দেয়া জবানবন্দিতে জানিয়েছেন তার স্বামী। তাকে আটক রাখার জায়গারও একটা আনুমানিক বর্ণনা দিয়েছেন তিনি। আইন প্রয়োগকারী সংস্থার পাঁচ সদস্যের যে কমিটি হয়েছে, তারা এবি সিদ্দিকের জবানবন্দির ওপর নির্ভর করে এগোতে পারে।

রিজওয়ানা বলেন, তার কর্মকান্ডের কারণে কোনো মহল ক্ষুব্ধ হয়ে থাকতে পারে। এমন সম্ভাব্যদের পরিচয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে জানানো হয়েছে। তাদের সবাই প্রভাবশালী। গণমাধ্যমে তাদের নাম উল্লেখ করলে তারা প্রভাব খাটিয়ে ঘটনা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করতে পারে। এ জন্য ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তাদের নাম-পরিচয় প্রকাশ করতে চান না তিনি।

সমপ্রতি ধানমন্ডিতে মাঠ দখলের বিরুদ্ধে যে আন্দোলন হয়েছে, তা নিয়ে শেখ জামালের সভাপতি মনজুর কাদেরসহ অন্যদের কাছ থেকে কোনো চাপ রিজওয়ানার পরিবারের প্রতি ছিল কি না, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, গণমাধ্যমে শালীনতার মাত্রা অতিক্রম করে কথা বলা অগ্রহণযোগ্য একটি কাজ। যেমন একজনকে গালি দেয়া কি ঔদ্ধত্যপূর্ণ কাজ না? সেটা আমাদের বাস্তবতায় প্রেশার হতেও পারে। ওই মুহূর্তে আমি কোনো প্রেশার ফিল করিনি। কারণ আমি ভেবেছি তার স্বার্থে আমার বক্তব্য আঘাত লেগেছে। কিন্তু যখন অপহরণ হয়ে যায়, তখন এ ঘটনাগুলোই কিন্তু আমার সামনে চলে আসে। কে কখন আমাকে অপমান করার চেষ্টা করেছে, কে কখন হেয় করার চেষ্টা করেছে, অনাবশ্যক অপ্রাসঙ্গিক আমাকে রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত করার চেষ্টা করেছে। তখন এসব বিষয় ফ্যাক্টর হয়ে যায়। প্রেশার হয়তো বা না।
 
আরেক প্রশ্নের জবাবে রিজওয়ানা বলেন, এই অপহরণের ঘটনা আমাকে আমার কাজ থেকে দূরে রাখার কৌশল হতে পারে। হয়তো বা এমনও হতে পারে, এই পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে আগামী এক মাস কোনো কাজই করতে পারব না। এ জন্য যে আমি ভয় পেয়ে বেলার কার্যক্রম গুটিয়ে নেব, এটা হতেই পারে না।

তিনি বলেন, এর আগে দেশে যেসব গুম-অপহরণের ঘটনা ঘটেছে, এই ৩৫ ঘণ্টায় তাদের স্বজনদের কষ্ট বোঝার চেষ্টা করেছি। আগের ঘটনাগুলোর বিচার হলে এ ঘটনা (এ বি সিদ্দিক অপহরণ) ঘটত না। আমি চাইব, এটিই শেষ ঘটনা হোক।

এ বি সিদ্দিককে অপহরণে উদ্বেগ ও তাকে উদ্ধারে সহযেগিতার জন্য প্রধানমন্ত্রী, বিএনপির চেয়ারপাসন খালেদা জিয়া, এইচ এম এরশাদ ও রওশন এরশাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান রিজওয়ানা।

রিজওয়ানা হাসান বলেন, আমার স্বামীকে অপহরণের পর থেকে গণমাধ্যম আমাদের সর্বোচ্চ সহায়তা দিয়েছে। সাংবাদিকদের কাছে আমরা কৃতজ্ঞ। গণমাধ্যম ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহযোগিতা ছাড়া তাকে ফেরত পাওয়া সম্ভব হতো না। রাজনীতিবিদরা সবকিছুর ঊর্ধ্বে উঠে বিষয়টি মানবিকভাবে দেখেছেন। একই সঙ্গে তিনি দেশবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, আমি দেশবাসীর কাছে সাংঘাতিকভাবে ঋণী।
               

 
 
 
 
 
 

তেহরান, ১৭ এপ্রিল:
মা’য়ের তুলনাতো শুধুই মা। চোখ বেঁধে আসামীকে দাঁড় করানো হয়েছে ফাঁসির বেদিতে, গলায় গলানো হয়েছে ফাঁসির দড়ি। আর সে দৃশ্য ‘মা’ আর সইতে পারলেন না। দ্রুত আসামী ঐ ছেলের কাছে গিয়ে তাকে ক্ষমা করে দিলেন। আর মৃত্যুর কাছ থেকে ফিরত আসলেন বিলাল। খবর দ্য গার্ডিয়ান।

সাত বছর আগে ২০ বছর বয়সী বেলাল তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে ছুরির আঘাতে কেড়ে নিয়েছিলেন ১৮ বছর বয়সী আবদুল্লাহ হোসেনজাদেহর প্রাণ। ইরানের মাজানদারান প্রদেশের ছোট্ট শহর রোয়ানে এ ঘটনায় তোলপাড় শুরু হয়। পুলিশের হাতে ধরা পড়েন বেলাল। বিচার শুরু হয় তার। অপরাধ প্রমাণ হওয়ায় ফাঁসির রায় হয়। দেশের আইন অনুযায়ী ফাঁসি হবে প্রকাশ্য এবং তা কার্যকরের ঘটনায় অংশ নিতে হবে নিহতের পরিবারকেও।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত বেলালকে চোখ বাঁধা অবস্থায় গলায় ফাঁসির দড়ি পরানোর পর কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে আবদুল্লাহর পরিবারের কোন সদস্যকে গিয়ে তার পায়ের নিচ থেকে চেয়ারটা সরিয়ে দেওয়ার কথা। রায় কার্যকরের পূর্ব মুহূর্তে ফাঁসি-কাষ্ঠের দিকে এগিয়ে যান নিহত আবদুল্লাহর মা। তিনি গিয়ে ছেলের খুনি বেলালকে একটা চড় মেরে কান্নায় ভেঙে পড়েন। আর পেছনে দাঁড়ানো আবদুল্লাহর বাবা ছেলের খুনির গলা থেকে খুলে নেন ফাঁসির দড়ি।

ছেলের খুনিকে ক্ষমা করে নিহত আবদুল্লাহর মা যখন নেমে আসছেন ফাঁসির বেদি থেকে, তখন বেলালের মা এগিয়ে এসে জড়িয়ে ধরলেন তাকে। এক মা কাঁদলেন ছেলে হারানোর বেদনায়, আরেক মা কাঁদলেন ছেলের প্রাণ বেঁচে যাওয়ায়। দুই মায়ের কান্না একটা ঢেউয়ের মতোই ছড়িয়ে পড়েছিল ফাঁসি দেখতে আসা শত মানুষের মধ্যে।               

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ১৭ এপ্রিল: চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও আন্দোলনের পরবর্তী করণীয় ঠিক করতে ১৯ দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে করেছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় চেয়ারপারসনের গুলশানস্থ রাজনৈতিক কার্যালয়ে শুরু হওয়া এ বৈঠক শেষ হয় রাত পৌনে ১২ টায়।
বৈঠকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জামায়াতের কর্মপরিষদ সদস্য আবদুল হালিম, এলডিপির সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরউত্তম, জাতীয় পার্টির (জাফর) সভাপতি কাজী জাফর আহমেদ, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মে. জে. (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতীক, বিজেপির চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ, ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী, খেলাফত মজলিসের সভাপতি সৈয়দ মজিবুর রহমান, জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, এনপিপির সভাপতি শেখ শওকত হোসেন নীলু, এনডিপির চেয়রাম্যান খন্দকার গোলাম মর্তুজা, লেবার পার্টির সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ইসলামীক পার্টির সভাপতি আবদুল মবিন, ন্যাপের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি, মুসলিম লীগের চেয়ারম্যান এএইচএম কামরুজ্জামান খান, পিপলস লীগের সভাপতি গরীবে নেওয়াজ, ন্যাপ ভাসানীর চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম, জমিয়তে ওলামায়ে ইসলামের সভাপতি মুফতি মুহাম্মদ ওয়াক্কাস, ডেমোক্রেটিক লীগের সভাপতি সাইফুদ্দিন মনি উপস্থিত ছিলেন।
               

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ১৭ এপ্রিল :
বেসিক ব্যাংকে একের পর এক অনিয়ম-দুর্নীতির ঘটনা ঘটছে। এর প্রেক্ষিতে ব্যাংকের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ডিএমডি)সহ ছয় শীর্ষ কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে ব্যাংকটির পরিচালনা পর্ষদ।
বেসিক ব্যাংক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। সূত্রটি জানায়, দীর্ঘদিন ধরে বেসিক ব্যাংকের বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতি, ঋণ জালিয়াতি ও বেনামি ঋণ বিতরণসহ বিভিন্ন ধরণের অভিযোগ করা হচ্ছে। এর প্রেক্ষিতে গত মঙ্গলবার ব্যাংকটির পরিচালনা পর্ষদ অভ্যন্তরীন বৈঠক করে। এতে ব্যাংকটির উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুনায়েম খান, মহাব্যবস্থাপক জয়নাল আবেদীন, শামীম হাসান ও মোহাম্মদ আলী, উপ-মহাব্যবস্থাপক সেতার আহম্মেদ ও ডেপুটি ম্যানেজার জাহিদ হাসানকে সাময়িক বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
 বৃহস্পতিবার এ সম্পর্কিত একটি প্রজ্ঞাপণ জারি করে শীর্ষ ছয় কর্মকর্তাকে বরখাস্তের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।
                               

 
 
 
 
 
 

ঢাকা: বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান বলেছেন, স্বামী আবু বকর সিদ্দিককে অপহরণের পরে তাকে দুবার হুমকি দেয়া হয়েছে। তবে তদন্তের স্বার্থে এ বিষয়ে তিনি বিস্তারিত কিছু বলতে চাননি।
 বৃহস্পতিবার স্বামীর উদ্ধারের ব্যাপারে সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কার্যালয়ে যান। তিনি স্বামীকে উদ্ধারের ব্যাপারে ডিবির সহায়তা চান। পরে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।
রিজওয়ানা বলেন, “স্বামীকে উদ্ধারের ব্যাপারে আমি আশাবাদী। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর লোকজন এ বিষয়ে আমাদের সঙ্গে কথা বলেছে। আমার সন্দেহের তালিকায় ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। আমাদের আইনগত কর্মকাণ্ডের কারণে যারা অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তারাই এ কাজ করেছে।”
তিনি বলেন, “আমার স্বামীর ব্যক্তিগত, পারিবারিক, সামাজিক শত্রু নেই। আমার কাজ পরিবেশ আইন নিয়ে। এগুলো যাদের আঘাত করেছে তারাই এ কাজ করেছে।”
স্বামীকে উদ্ধারের ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী আত্মবিশ্বাসী উল্লেখ করে রিজওয়ানা বলেন, “তারা সময় চেয়েছে। তারা বলছেন, তাদের কাছে কোনো ক্লু নেই। এ কারণে তারা সময় চেয়েছেন। তিনি স্বামীকে উদ্ধার করার ব্যাপারে দেশবাসীর সহায়তা চান।”
বুধবার বেলা আড়াইটার দিকে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের ভূঁইয়া ফিলিং স্টেশনের সামনে থেকে একদল দুর্বৃত্ত অস্ত্রের মুখে সৈয়দা রিজওয়ানা হাসানের স্বামী আবু বকরকে অপহরণ করে। রিজওয়ানা হাসান এ ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা করেছেন। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত আবু বকরের কোনো খোঁজ মেলেনি। পুলিশ ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কসহ বিভিন্ন সড়কে চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি করছে।
               

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ১৭ এপ্রিল  :
দেশে বর্তমানে গণতন্ত্রের নামে ফ্যাসিজম চলছে। আওয়ামী লীগ নামের সরকারটি শুরু থেকেই ফ্যাসিবাদী আচরণ করছে। তারা মুখে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বললেও কার্যকলাপে মূল চেতনার পরিপন্থী। এই ফ্যাসিজম কেবল  হিটলার ও মুসলিনীর সময়কালের তুলনা চলে।
বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক বাংলাদেশ আয়োজিত ‘গণতান্ত্রিক সংকট : উত্তরণের উপায়’ শীর্ষক গোলটেবিলে আলোচনায় বিশিষ্টজনরা এ সব কথা বলেন।
রাষ্ট্র ও সমাজ চিন্তক কবি ফরহাদ মজহার বলেন, দেশে গুম, অপহরণের ঘটনা ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে। যারা বর্তমান সরকারকে সমর্থন করছেন তাদের পরিবারের কেউ নিরাপদ নয়।
তিনি বলেন, আমরা অদ্ভুত এক দেশে বাস করছি যেখানে বিদেশি গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা আরেক দেশের লোককে তুলে নিয়ে তাদের দেশে চলে যাচ্ছে। স্বাধীন কোনো দেশে এটা চলতে পারে না। কেউ এখানে নিরাপদ নয়। রিজওয়ানার স্বামীকে অপহরণের ঘটনা আমাদের চরমভাবে মর্মাহত করেছে।

ফরহাদ মজহার বলেন, লুটপাট ছাড়া কিছুই করতে পারেনি এই সরকার। দেশে-বিদেশের কেউ এ সরকারকে গণতান্ত্রিক সরকার বলে মনে করে না। রাশিয়াসহ কিছু আন্তর্জাতিক সম্পর্ক দেশের অভ্যন্তরীণ সম্পর্ককে নষ্ট করছে। তাই সবাইকে দল মতের ঊর্ধ্বে উঠে গণতন্ত্রের জন্য কাজ করতে হবে। প্রবাসীদেরকে নির্দলীয় অবস্থান থেকে গণতন্ত্রকে পক্ষে ভূমিকা রাখতে হবে। সমাজের বিভাজনগুলো কাটিয়ে উঠতে হবে। প্রতিটি মানুষের কথা বলার অধিকার রক্ষা করা আমাদের গণতান্ত্রিক দায়িত্ব।

মানবাধিকার লঙ্ঘনে সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, কিছু মানবাধিকার সংগঠন সরকারের অধীনে কাজ করছে। আর যারা সরকারের পক্ষে কাজ না করে, মানবাধিকারের পক্ষে কাজ করে তাদেরকে ধরে নিয়ে নির্যাতন করা হচ্ছে। আজকে যারা রাষ্ট্র নিয়ে সমাজ নিয়ে মানবাধিকার নিয়ে কাজ করে, তারা গণতান্ত্রিক অধিকার নিয়ে সোচ্চার তারা আজ শঙ্কায় আছে। তাদের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত।

বর্তমান সংবিধানকে ফ্যাসিস্ট আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, প্রথমে সংবিধান পরিবর্তন করতে হবে। কারণ একজন ব্যক্তির বক্তৃতা সংবিধানের মধ্যে ঢুকে গেছে। এটা কখনো সংবিধান হতে পারে। সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও ইনসাফ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে নতুন সংবিধান প্রণয়ন করে রাষ্ট্রকে গণতান্ত্রিক করতে হবে।

গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, সাড়ে ৩ বছর ক্ষমতায় থাকলেও শেখ মুজিব মেহেরপুরের মুজিবনগরে একদিনের জন্যও যায়নি। এটা নিয়ে নতুন বিতর্ক চলছে। জাতীয় সংসদে দেশ ও জনগণের উন্নয়ন নিয়ে কথা না বলে কে কার বিরুদ্ধে কতোটুকু কুৎসা রটনা করতে পারে সেটি চলছে।

এ সময় তিনি বর্তমান সংসদে ৫৬ ঘণ্টার ৪০ ঘণ্টাই গালিগালাজ করা হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন।

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) নবনির্বাচিত সভাপতি ও জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি শওকত মাহমুদ বলেন, দেশে বর্তমানে শুধু গণতান্ত্রিক সংকট নয়, রাষ্ট্রীয় সংকট চলছে। বর্তমান সরকার ফ্যাসিবাদের চরম রূপ দেখিয়েছে। মানুষের সমাধানের জন্য নয়, সমস্যা জিইয়ে রাখার জন্য ক্ষমতায় থেকে কাজ করছে সরকার। আদালতের স্বাধীনতার জন্য আমরা লড়াই করলেও আদালত গণমাধ্যম ও বিশিষ্ট নাগরিকদের হেয় প্রতিপন্ন করছে।

তিনি বলেন, জাতীয় ঐক্যমতে না পৌঁছার কারণ জাতীয় ঐক্যের সরকারকে জনগণ বাধ্য করতে পারছে না। এজন্য জনগণকে রাস্তায় নামতে হবে। দৈনিক আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমান বর্তমানে জেলে। সরকার নিজে অথবা আদালতকে দিয়ে গণমাধ্যম বন্ধ করছে।

জাস্ট নিউজের সম্পাদক মুশফিকুল ফজল আনসারী বলেন, আমরা স্বাধীনভাবে কথা বলার ও মত প্রকাশ করার অধিকার হারিয়ে ফেলেছি। শাষক গোষ্ঠী যেকোনো মূল্যে ক্ষমতায় আঁকড়ে থাকতে চায়। আজকে দেশের এই চরম সংকটাপন্ন অবস্থায় প্রবাসীরাও দুশ্চিন্তায় রয়েছেন। সংকট উত্তরণে অবিলম্বে মানুষের ভোটারিধাকার প্রয়োগের নির্বাচনের মাধ্যমে জনপ্রতিনিধি নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে।

মূল প্রবন্ধে সাপ্তাহিক বাংলাদেশ সম্পাদক ডা. ওয়াজেদ এ খান বলেন, প্রকাশনার দীর্ঘ ১৬ বছরে ‘সাপ্তাহিক বাংলাদেশ’ যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশিদের তথ্য জানার অধিকার নিশ্চিত করার মাধ্যমে জন্মভূমির সঙ্গে তাদের সেতুবন্ধন হিসেবে কাজ করছে। বাংলাদেশের শ্বাশত সংস্কৃতি ইতিহাস, ঐতিহ্য, সমাজ, রাষ্ট্র, গণতন্ত্র, নাগরিক অধিকার, মানবাধিকার, আইনের শাসন ইত্যাদি বিষয় তুলে ধরার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের মেইনস্ট্রীমের সংবাদ পরিবেশন করে সমানতালে ভূমিকা রেখে চলেছে। বিশেষ করে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত নতুন প্রজন্মের মাঝে আমাদের পারিবারিক, সামাজিক ও ধর্মীয় মূল্যবোধ অক্ষুণ্ন রাখতে সচেতনতা সৃষ্টি করছে সাপ্তাহিক বাংলাদেশ।

আলোচনায় অন্যদের মধ্যে অংশ নেন- ফোবানা নিউইয়র্ক-২০১৪ এর আহ্বায়ক হাসানুজ্জামান হাসান, পরিবেশ সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি কামরুল ইসলাম খান, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা অধ্যাপক ডা. রফিক চৌধুরী।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সহ-সভাপতি এম আব্দুল্লাহ।
               

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ১৭ এপ্রিল  : একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় ফরিদপুরের নগরকান্দা পৌরসভার মেয়র পলাতক জাহিদ হোসেন খোকনের মামলার রায় যেকোনো দিন ঘোষণা করা হবে। বৃহস্পতিবার মামলাটির যুক্তিতর্ক (আর্গুমেন্ট) উপস্থাপনের মাধ্যমে বিচারিক প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। জাহিদ হোসেন খোকন পলাতক রয়েছেন।

চতুর্থ ও শেষ দিনের মতো যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন রাষ্ট্রপড়্গের প্রসিকউটর মোখলেছুর রহমান বাদল। এরপর জাহিদ হোসেন খোকনের পড়্গে রাষ্ট্র নিয়োজিত আইনজীবী আব্দুশ শুকুর খান যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ করেন।

পরে আনত্মর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বাধীন ৩ সদস্যের বেঞ্চ মামলাটি রায়ের জন্য অপেড়্গমাণ (সিএভি) রেখে দেন।

গত বছর ২১ নভেম্বর থেকে ২ এপ্রিল পর্যনত্ম তদনত্ম কর্মকর্তা সত্যরঞ্জন দাশসহ জাহিদ হোসেন খোকনের বিরম্নদ্ধে সাড়্গ্য দেন ২৪ জন সাড়্গী।

প্রসঙ্গত, গত বছর ৯ অক্টোবর মানবতাবিরোধী অপরাধে জাহিদ হোসেন খোকনের বিরম্নদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন ট্রাইব্যুনাল। এতে তার বিরম্নদ্ধে ১৬ নারী ও শিশুসহ ৫০ জনকে হত্যা, ৩ জনকে পুড়িয়ে হত্যা, ২ জনকে ধর্ষণ, ৯ জনকে ধর্মানত্মরিত করা, ২টি মন্দিরসহ ১০টি গ্রামের বাড়িঘরে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ, ৭ গ্রামবাসীকে সপরিবারে দেশানত্মরে বাধ্য করা এবং ২৫ জনকে নির্যাতনসহ সুনির্দিষ্ট ১১টি অভিযোগ আনা হয়।               

 
 
 
 
যোগাযোগ করুন..
01712 247 900

dainiksylhet@yahoo.com