Home Home Page Rank NTV ONLINE ETV ONLINE BANGLA  VISION ONLINE CHANEL I ONLINE EKATTOR TV ONLINE
২৪-১১-২০১৪ সোমবার

 দৈনিক সিলেট ডটকম সিলেট বিভাগের সর্বাধিক জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল-আমাদের সাথে থাকুন, নিজেকে আপডেট রাখুন...   

 
 
এই জনপদ
 
 
 
 
 

নিউজডেস্ক: হবিগঞ্জ সদর উপজেলার রাজিউড়া ইউনিয়নের কাটাখালী-জয়রামপুর গ্রামে কাটাখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে দুই লম্পট। মেয়েটির পারিবারিক সূত্র জানায়, শনিবার দুপুরে ওই গ্রামের আব্দুল হকের পুত্র অভি রহমান (১৮) ও তার সহযোগী আয়াত আলীর পুত্র কাজল মিয়া (১৭) মেয়েটিকে বাড়িতে একা পেয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরে মেয়েটির শোর চিৎকারে এলাকার লোকজন এসে ধর্ষণের আলামত দেখতে পায়। পরবর্তীতে গ্রাম্য মাতব্বররা ঘটনাটি শালিসে নিষ্পত্তির জন্য মেয়েটির বাবার কাছে যান। মেয়েটির বাবা মান সম্মানের ভয়ে শালিসে সম্মতি দেন। এদিকে ধর্ষণের শিকার হয়ে মেয়েটি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে গতকাল সকালে তাকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল রাতে এ খবর পেয়ে হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার এসআই মিন্টু দে হাসাপাতালে গিয়ে মেয়েটিকে দেখে আসেন। এসআই মিন্টু দে মেয়েটির পিতাকে আশ্বাস দেন ঘটনাটি তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। কিন্তু মেয়েটির বাবা জানান, বিষয়টি নিষ্পত্তির লক্ষ্যে আজ গ্রাম্য শালিসের আয়োজন করা হয়েছে।               

 
 
 
 
 
 
 

সিলেট, ২৩ নভেম্বর
২০ দলীয় জোটের শীর্ষনেতা, হেফাজতে ইসলাম এর কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর ও জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ এর  মহাসচিব, সাবেক ধর্মপ্রতিমন্ত্রী মুফতী মুহাম্মদ ওয়াক্কাস বলেছেন, জাতি আজ কঠিন সময় অতিক্রম করছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব আজ হুমকির সম্মুখিন। ইসলামী রাজনীতি বন্ধের নামে দেশ থেকে ইসলাম মুক্ত করার ষড়যন্ত্র চলছে। ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে সকল ষড়যন্ত্র উলামায়ে কেরাম ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রতিরোধ করতে হবে। তিনি বলেন, জাতির এই ক্লান্তিকালে উলামায়ে কেরামকে সাংগঠনিক শক্তি অর্জন করতে হবে।  এক্ষেত্রে হক্কানী উলামায়ে কেরামের আর্দশ পুষ্ঠ সংগঠন জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের পতাকাতলে সকলকে সমবেত হতে হবে। জালেমের বিরুদ্ধে ঈমানের পতাকা হাতে নিয়ে ময়দানে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে।
তিনি রোববার সন্ধ্যায় ২ দিনের এক সংক্ষিপ্ত সফরে সিলেট আগমনকালে ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে পৌছলে তার সম্মানে সিলেট জেলা জমিয়ত আয়োজিত সংবর্ধনার জবাবে ভিআইপি লাউঞ্জে উপস্থিত দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে এসব কথা বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম সিলেট জেলা সহ-সভাপতি মাওলানা খলিলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আতাউর রহমান, সিলেট মহানগর জমিয়তের সহ-সভাপতি প্রিন্সিপাল মাওলানা মাহমুদুল হাসান, জেলা সহ-সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুল আজিজ, মহানগর যুগ্ম সম্পাদক মাওলানা আব্দুল মালিক চৌধুরী, জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা নজরুল ইসলাম, মাওলানা আলী নূর, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা তৈয়্যীবুর রহমান চৌধুরী, যুব বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা ওলিউর রহমান, ছাত্র বিষিয়ক সম্পাদক মাওলানা সাইফুর রহমান, জেলা যুব জমিয়তের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুখতার আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মদ আলী, মাওলানা ইলিয়াস আহমদ, মাওলানা সদরুল আমীন, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক জমিয়তের আহবায়ক মাওলানা সালেহ আহমদ শাহবাগী, যুবনেতা মাওলানা ফয়সল আহমদ, মাওলানা এমাদ উদ্দিন সালিম, মাওলানা রুহুল আমীন নগরী, জেলা ছাত্র জমিয়ত সেক্রেটারী মুহাম্মদ লুৎফুর রহমান, হাফিজ মাওলানা মিছবাহ উদ্দিন, রেজাউল করিম রাজু, হাকিম শিহাব উদ্দিন, হাফিজ শাহিত হাতিমী, আতিকুর রহমান মাহফুজ, মাওলানা আব্দুল কাদির সহ বিপুল সংখ্যক জমিয়ত নেতাকর্মী।
আজ ২৪ নভেম্বর সোমবার সন্ধ্যায় কোম্পানীগঞ্জে একটি ইসলামী মহাসম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখবেন। রাতে মাওলানা শাহীনূর পাশা চৌধুরীর প্রতিষ্ঠিত জামিয়া দারুল কুরআন সিলেটে অবস্থান করবেন। আজ সকাল ১০ টায় সিলেট জেলা জমিয়ত নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করবেন এবং দুপুর ১২ ঘটিকায় জগন্নাথপুরের উদ্দেশ্যে সিলেট ত্যাগ করবেন।

               

 
 
 
 
 
 
 

সিলেট, ২৩ নভেম্বর:
সিলেট সদর উপজেলার ৬নং টুকেরবাজার ইউনিয়ন বিএনপির ওয়ার্ড কমিটি গঠনের লক্ষ্যে রোববার বিকেলে দলের অস্থায়ী কার্যালয়ে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়।
উপজেলা বিএনপির সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি ইউনিয়ন বিএনপির আহ্বায়ক আলহাজ্ব শহিদ আহমদ চেয়ারম্যানের সভাপতিত্বে ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ কে এম তারেক কালামের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপি নেতা সাবেক ভাইস চেয়রম্যান মোঃ আবুল কাসেম, আব্দুস সালাম, হাজী আব্দুর রশিদ, সৈয়দ জয়নুল হক, শাহজাহান, আবুল হাসনাত, এনাম হোসেন মেম্বার, মালেক মেম্বার, শফিকুর রহমান মেম্বার, রাজু মিয়া, হাজী হাছন আলী, মনু মিয়া, জিতু মিয়া, ইসলাম উদ্দিন, মাসুক আহমদ, জহির উদ্দিন, মোঃ সাহিদুর রহমান, কনা মিয়া, আব্দুল মোমিন, দেলোয়ার হোসেন, আমান মিয়া, সাজ উদ্দিন, লাল মিয়া প্রমুখ।
সভায় এক সপ্তাহের মধ্যে ইউনিয়নের সকল ওয়ার্ড কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। যথাক্রমে ১ ও ২নং ওয়ার্ড ২৫ নভেম্বর, ৩নং ওয়ার্ড ২৬ নভেম্বর, ৪নং ওয়ার্ড ২৭ নভেম্বর, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ড ২৮ নভেম্বর, ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ড ২৮ নভেম্বর। উক্ত ওয়ার্ডগুলোকে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের মাধ্যমে ইউনিয়ন বিএনপিকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান বক্তারা।
           

 
 
 
 
 
 
 

ফেঞ্চুগঞ্জ উজেলার ৬ টি কেন্দ্রে পিএসসি পরীক্ষার ১ম দিন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে। সর্বমোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ২০৬১ জন। ৯৪৪ ছাত্র এবং ১১৭১ জন ছাত্রী। তন্মমধ্যে ২৯ জন ছাত্র ও ১১ জন ছাত্রী অনুপস্থিত ছিল। মোট ৬টি কেন্দ্রে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ১ম দিন বিভিন্ন হল পরিদর্শন করেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ শফিক উদ্দিন এবং ভিজিলেন টিমের সদস্য ফেঞ্চুগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি জিয়া খালেদ।
এ দিকে এবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় মোট ৩ টি কেন্দ্রে। মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৪০৬ জন। তন্মমধ্যে ছাত্র ২১২ জন এবং ছাত্রী ১৯৪ জন। অনুপস্থিত ২৪ ছাত্র এবং ১১ জন ছাত্রী।-বিজ্ঞপ্তি               

 
 
 
 
 
 
 

দক্ষিণ সুরমা উপজেলার মোগলাবাজার - ঢাকাদক্ষিণ পাহাড় লাইন সড়ক সংস্কারের দাবী। উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের মোগলাবাজার - রাখালগঞ্জ সড়কের বিভিন্ন স্থানে পীচ উঠে গিয়ে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এই সড়কের  ইলাগঞ্জ নামক স্থানের অবস্থা খুবই নাজুক। উন্নয়নের নামে গড়িমশি করায় এলাকাবাসী সহ পথচারীরা চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।
দীর্ঘদিন যাবৎ মোগলাবাজার-ঢাকাদক্ষিণ পাহাড় লাইন ত্রিমুখী থেকে রাখালগঞ্জ বাজার পর্যন্ত রাস্তার বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়ে রাস্তা চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এতে রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী যানবাহন সহ পথচারীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এছাড়াও এ রাস্তা দিয়ে মুমুর্ষূ রোগীদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া কষ্ট সাধ্য ব্যবাহার হয়ে দাড়িয়েছে। এই রাস্তা দিয়ে বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, মাদরাসার শত শত শিক্ষার্থীরা যাতায়াত করে থাকেন। একমাত্র এই সড়কটি সংস্কার না হওয়ায় ইউনিয়নবাসীকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এলাকাবাসীর দাবী জনস্বার্থে রাস্তাটি দ্রুত সময়ের মধ্যে সংস্কারের জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানান। 
               

 
 
 
 
 
 
 

এ.জে লাভলু, বড়লেখা প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের বড়লেখা পৌরসভায় তথ্যসেবা কেন্দ্রের উদ্বোধন করা হয়েছে। প্রধান অতিথি হিসেবে তথ্য ও সেবা কেন্দ্রের উদ্বোধন করেন পৌরসভার মেয়র প্রভাষক ফখরুল ইসলাম। রোববার দুপুর সাড়ে ১২টায় পৌরসভা প্রাঙ্গণে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথিরও বক্তব্য রাখেন পৌর মেয়র। কাউন্সিলর আব্দুল মতিনের সভাপতিত্বে ও কাউন্সিলর তাজ উদ্দিনের উপস্থাপনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বড়লেখা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ, কাউন্সিলর জেহিন সিদ্দিকী, সাপ্তাহিক বড়কণ্ঠের বার্তা সম্পাদক সাংবাদিক জালাল আহমদ, কাউন্সিলর আলী আহমদ চৌধুরী, মিজানুর রহমান, কায়সার পারভেজ, আব্দুল হাফিজ ললন। উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর শামীম আহমদ, মো: শাহজাহান, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর সাফিয়া আক্তার, জেবা আক্তার, পৌর সচিব আব্দুল খালিকসহ পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ এবং স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
               

 
 
 
 
 
 
 

বিখ্যাত লোকগবেষক, বড় মাপের প্রাবন্ধিক। নিজের লেখা ও সম্পাদিত বইয়ের সংখ্যা ৪২। শিক্ষাবিদ তো বটেই। আভিজাত্যেরও প্রকাশ ছিল চলনে-বলনে। এমন মানুষটিই আবার অতি সাধারণভাবে সকলের সঙ্গে মিশে যেতেন। আবেগে বুকে জড়িয়ে ধরে অশ্রƒ বিসর্জন করতেন। কাছে টেনে নিতেন ধনী-গরিব, হিন্দু-মুসলমান সকলকে।
শনিবার শিলচরে লোকসংস্কৃতি পরিষদ আয়োজিত শোকসভায় এ ভাবেই সদ্যপ্রয়াত হারূন আকবরের স্মৃতিচারণ করলেন বক্তারা। তাঁরা তাঁর ভাবনাকে ধরে রাখতে পুস্তক প্রকাশ, প্রবন্ধ প্রতিযোগিতা ইত্যাদির প্রস্তাব দেন। সভাপতি অমলেন্দু ভট্টাচার্য বলেন, সবচেয়ে বেশি ফলপ্রসূ হবে, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের লোকসংস্কৃতির প্রতি আকৃষ্ট করা গেলে। কারণ হারূন আকবরের মৃত্যুতে বাংলাদেশের বৃহত্তর অঞ্চলে লোকগবেষণায় বিরাট শূন্যতার সৃষ্টি হয়েছে। বরাক উপত্যকাতেও এই কাজটি করছেন হাতে-গোনা ক-জন মানুষ। তরুণ গবেষকরা এ দিকে আগ্রহী নন।
মহবুবুল বারী, শুভদীপ দত্ত, মিলনউদ্দিন লস্কর, মশহরুল বারী প্রমুখ হারূন আকবরের সঙ্গে তাঁদের ব্যক্তিগত পরিচিতি এবং বিভিন্ন অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরেন। বরাক উপত্যকা বঙ্গ সাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্মেলনের কাছাড় জেলা সমিতির সভাপতি তৈমুর রাজা চৌধুরী বলেন, শেকড় জানার চেষ্টা প্রায় প্রতিটি মানুষ করেন। কিন্তু সঠিক প্রক্রিয়া জানা না-থাকায় তা সম্ভব হয়ে ওঠে না। হারূন আকবরদের মত পণ্ডিত মানুষেরা সে জায়গায় সাধারণ জনতার সহায়ক হন। তাঁর শেকড়সন্ধান ভারত-বাংলার একটি বড় অঞ্চলকে সমৃদ্ধ করেছে বলে মন্তব্য করেন তৈমুরবাবু। একই সুরে হারূন আকবরদের পথ ধরে অতীত জানার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক বরুণজ্যোতি চৌধুরী। সহজে আপনজন হয়ে ওঠা এই মানুষটির উচ্চতা ধরাছোঁয়ার বাইরে বলে মন্তব্য করেন আবিদ রাজা মজুমদার ও সিহাবউদ্দিন আহমদ। তুষারকান্তি নাথের কথায়, হারূন আকবর ছিলেন একজন মুক্ত মনের মানুষ।
জহরকান্তি সেন আক্ষেপের সুরে বলেন, ইতিহাস চর্চা আজ ফুরিয়েই গিয়েছে। যে-টুকু পড়ানো হয়, তা শুধুই রাজনৈতিক ইতিহাস। ওইসব পড়ে কোনও অঞ্চলের মানুষ সম্পর্কে সঠিক ধারণা করা যায় না। লোকগবেষকরা নিষ্ঠাভরে সেই আসল ইতিহাসকে সামনে নিয়ে আসেন। সাংস্কৃতিক সঙ্কটের কথা উল্লেখ করে সৌরীন্দ্রকুমার ভট্টাচার্য জানান, এর আসল কারণ লোকসংস্কৃতি সম্পর্কে জ্ঞানের অভাব। আজকের সমাজে যে নানাদিক থেকে সংশয়ের বাতাবরণ তৈরি হচ্ছে, লোকসংস্কৃতির চর্চাই সাধারণ মানুষকে সে সব থেকে মুক্ত করতে পারে বলে তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করেন প্রবীণ শিক্ষাবিদ সিরাজুল ইসলাম লস্কর।
এক মিনিট নীরবতা পালনের মধ্য দিয়ে হারূন আকবরের আত্মার সদগতি কামনা করেন সভায় উপস্থিত সুধীমণ্ডলী।
               

 
 
 
 
 
 
 

গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের অধিবাসীদের সমন্বয়ে ’কুশিয়ারা বেল্ট উন্নয়ন পরিষদ’ নামে একটি সামাজিক সংগঠনের আত্মপ্রকাশ ঘটেছে। প্রবাসী অধ্যুষিত কুশিয়ারা তীরবর্তী জনপদ গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনতার র্দীঘ দিনের প্রাণের দাবী হলো এসব ইউনিয়নে গ্যাস সংযোগ প্রদান। গ্যাসের দাবীতে এসব এলাকার জনগণ এবার সোচ্চার হয়ে উঠেছেন।
গ্যাস সংযোগের দাবীতে  শনিবার বিকেলে সিলেট নগরীর সোবহানীঘাটস্থ অস্থায়ী কার্যালয় হোটেল মেহেরপুরে গোলাপগঞ্জ উপজেলার বিশিষ্টজনের উদ্যোগে এক সভা অনুষ্ঠিত। বিশিষ্ট মুরুব্বী ইঞ্জিনিয়ার মহিউদ্দীন কলি’র সভাপতিত্বে এবং বুধবারী বাজার ইউপির  সাবেক চেয়ারম্যান শরফ উদ্দীন শরফ এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন, হোটেল বনগাঁও ও আব্দুল খালিক মাষ্টার মা-ও শিশু হাসপাতালের স্বত্তাধিকারী আব্দুল মুমিত ফারুক, সাবেক ব্যাংকার মাহবুবুল হক, হোটেল মেহেরপুরের স্বত্তাধিকারী আলহাজ¦ তেরাব আলী, মাষ্টার আজীজুর রহমান, আলহাজ¦ মাসুক আহমদ, আলহাজ¦ সামসুদ্দীন বানীগ্রামী, সামছুল ইসলাম ছালিক, মনজুর আহমদ, মস্তাক আহমদ, নুরউদ্দীন, লুৎফুর রহমান লুতি, নুরুল হক ইসন, মাওলানা সাইফুর রহমান প্রমুখ। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে ইঞ্জিনিয়ার মহিউদ্দীন কলিকে আহবায়ক, সাবেক চেয়ারম্যান শরফ উদ্দীন শরফকে সদস্য সচিব এবং আলহাজ¦ শামসুদ্দীনকে ক্যাশিয়ার করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট ’কুশিয়ারা বেল্ট উন্নয়ন পরিষদ’ গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার এর আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়।

 
 
 
 
 
 
 

সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি, সাবেক সিটি মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান বলেছেন, সিলেটের মধ্যে সুনাম ধন্য প্রতিষ্ঠান আল হামরা শপিং সিটি। সততা ও নিষ্ঠার সাথে ব্যবসা পরিচালনা করা ইবাদতের শামিল। তিনি আল হামরা শপিং সিটি ব্যবসায়ীদেরকে নিষ্ঠার সাথে ব্যবসা করার আহ্বান জানান। সঠিক ভাবে র‌্যাফেল ড্র এর মাধ্যমে ভাগ্যবান বিজয়ী নির্বাচিত করা হয়েছে। সিলেট সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো যদি এভাবে র‌্যাফেল ড্র-এর ব্যবস্থা করে, তাহলে ক্রেতাগণ উৎসাহিত হবে এবং পাশাপাশি ব্যবসার প্রসার ঘটবে। তিনি এ ধরনের র‌্যাফেল ড্র’র আয়োজন করায় আল-হামরা শপিং সিটি দোকান মালিক ও ব্যবসায়ী সমিতির সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান।
তিনি শনিবার দুপুরে আনন্দঘন পরিবেশে আল হামরা কনফারেন্স হলে আল-হামরা শপিং সিটি দোকান মালিক ও ব্যবসায়ী সমিতি কর্র্তৃক আয়োজত র‌্যাফেল ড্র-২০১৪ এর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বরেন। আল-হামরা শপিং সিটি দোকান মালিক ও ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ সামছুল আলম এর সভাপতিত্বে এবং র‌্যাফেল ড্র পরিচালনা কমিটির সদস্য মোঃ মহসীন আলী, ইশতিয়াক আহমদ সায়েল ও মোঃ ইরশাদ আলীর যৌথ পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী, বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির যুগ্ম মহাসচিব আলহাজ্ব মতছির আলী, সিলেট জেলা ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের সভাপতি আলহাজ্ব শেখ মোঃ মকন মিয়া চেয়ারম্যান, আল হামরা শপিং সিটির নির্বাহী পরিচালক মুসলেহ উদ্দিন চৌধুরী। র‌্যাফেল ড্র পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক মোঃ তাজুল ইসলাম এর স্বাগত ব্যক্তব্যের মাধ্যমে সুচিত অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সমিতির সাবেক উপদেষ্টা আলতাফুর রহমান, সাবেক সভাপতি আব্দুস সালাম, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান রিপন, কোষাধ্যক্ষ মোস্তফা ওয়াহিদুর রহমান লস্কর জুয়েল। শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন ও পরে আল হামরা ইন্টারন্যাশনাল লিঃ এর চেয়ারম্যান মরহুম আব্দুল কাদির চৌধুরীর আত্মার মাগফেরা কামনা করে বিশেষ দোয়া পরিচালনা করেন হাফিজ মাসুদ আহমদ।
র‌্যাফেল ড্র তে প্রথম পুরস্কার ১০ ভরি স্বর্ণের গহনা বিজয়ী নগরীর মেন্দিবাগের আনোয়ারা বেগম, দ্বিতীয় পুরস্কার পাঁচ ভরি স্বর্ণের গহনা বিজয়ী টিলাগড়ের মোঃ মোয়াজেম্ম বখত, তৃতীয় পুরস্কার পালসার মোটর সাইকেল বিজয়ী রায়নগরের বিজয় রায়, চতুর্থ পুরস্কার বিজয়ী ডিস্কোভারী মোটর সাইকেল বিজয়ী পাঠানটুলার নোরা শ্রাবনী, পঞ্চম পুরস্কার ফ্রিডম মোটর সাইকেল বিজয়ী কামালবাজারের মোঃ হেলাল আহমদ, ৬ষ্ঠ পুরস্কার ডায়াং মোটর সাইকেল বিজয়ী নাইওরপুলের এম.এ মনি। প্রায় ২০ লক্ষ টাকার পুরস্কার বিতরণ করেন প্রধান অতিথি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান সহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন। বিজ্ঞপ্তি

               

 
 
 
 
 
 
 

বড়লেখা প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের বড়লেখায় সিদ্দিক আহমদ জুনিয়র বৃত্তি প্রকল্পের আয়োজনে ‘সিদ্দিক আহমদ জুনিয়র (৮ম) বৃত্তি পরীক্ষা-২০১৪ সম্পন্ন, ফলাফল ঘোষণা এবং মেধাবীদের পুরস্কার বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার পৌর শহরের ঐতিহ্যবাহী পিসি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষা শেষে ফলাফল ঘোষণা ও  পরে শিক্ষার্থীদের সনদ ও নগদ অর্থ প্রদান করা হয়। শনিবার দুুপুর ২টায় পিসি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় হলরুমে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম সুন্দর। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও বৃত্তি প্রকল্পের সভাপতি ইসলাম উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও শিক্ষক লুৎফুর রহমান চুন্নুর উপস্থাপনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন বড়লেখা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর আজাদুর রহমান, জুড়ী ফুলতলা-সাগরনাল শাহনিমাত্রা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক জহির উদ্দিন, বৃত্তি প্রকল্পের সদস্য শিক্ষক রিয়াজুল ইসলাম, শিক্ষক বিশ্বতোষ চক্রবর্তী, কাউন্সিলর তাজ উদ্দিন, জেহিন সিদ্দিকী, বৃত্তি প্রকল্পের সদস্য নোমান আহমদ, শিক্ষক মীর হোসাইন আহমদ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ১০৯ জনকে বৃত্তি প্রদান করা হয়।
               

 
 
 
জনমত জরিপ

তিস্তা অভিমুখে লংমার্চ করে বিএনপি কি রাজনৈতিক ভাবে লাভমান হয়েছে?

 
হ্যাঁ না
 
 

ফলাফল দেখুন

 
 

ঢাকা: ধর্মনিয়ে কটুক্তির অভিযোগে নিজের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া বিভিন্ন মামলায় জামিন নিতে হাইকোর্টে গেছেন সাবেক মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী।

সোমবার বেলা সাড়ে ১০টার দিকে তিনি হাইকোর্টে যান। লতিফ সিদ্দিকীর আইনজীবী এডভোকেট নূরুল ইসলাম এ তথ্য জানিয়েছেন।

এর আগে রবিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে এয়ার ইন্ডিয়ার একটি ফ্লাইটে ঢাকা আসেন বিতর্কিত সাবেক এই মন্ত্রী। ঢাকা এসেই তিনি গা ঢাকা দেন। এদিকে ইতোমধ্যেই তাকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে ইসলামী দলগুলো। অন্যথায় কঠোর আন্দোনের হুমকী দিয়েছেন তারা।

প্রসঙ্গত, গত ২৮ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের একটি হোটেলে সেখানকার টাঙ্গাইল সমিতির সদস্যদের সঙ্গে মতবিনিময় করার সময় লতিফ সিদ্দিকী বলেন, ‘আমি কিন্তু হজ আর তাবলিগ জামাতের ঘোরতর বিরোধী। আমি জামায়াতে ইসলামীরও বিরোধী। তবে তার চেয়েও হজ ও তাবলিগ জামাতের বেশি বিরোধী।’

তিনি বলেন, ‘এ হজে যে কত ম্যানপাওয়ার (জনশক্তি) নষ্ট হয়। হজের জন্য ২০ লাখ লোক আজ সৌদি আরবে গিয়েছে। এদের কোনো কাজ নাই। এদের কোনো প্রডাকশন নাই। শুধু রিডাকশন দিচ্ছে। শুধু খাচ্ছে আর দেশের টাকা দিয়ে আসছে।’

ধর্মীয় অনভূতিতে আঘাত হানার অপরাধে মন্ত্রিসভা ও আওয়ামী লীগের দলীয় সদস্য পদ থেকে বাদ পড়েন লতিফ সিদ্দিকী। এছাড়া তার বিরুদ্ধে ঢাকা ও দেশের ১৮টি জেলায় ২২টি মামলা হয়। আদালতে হাজির না হওয়ায় তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানাও জারি হয়।               

 
 
 
 

ঢাকা, ২৪ নভেম্বর :
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে বিচারিক আদালতে অভিযোগ আমলে নেওয়া ও অভিযোগ গঠনের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে করা আবেদন খারিজের বিরুদ্ধে দায়ের করা লিভ টু আপিল খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রীম কোর্টের আপিল বিভাগ।

প্রধান বিচারপতি মো. মোজাম্মেল হোসেনের নেতৃত্বাধীন ৫ সদস্যের আপিল বেঞ্চ সোমবার এ আদেশ দেন।

ফলে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা পরিচালনায় আর কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা।

আদালতে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিচারিক আদালতে অভিযোগ আমলে নেওয়া ও অভিযোগ গঠন বাতিল চেয়ে শুনানি করেন আইনজীবীরা।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় গত ১৯ মার্চ খালেদা জিয়াসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন বিচারক বাসুদেব রায়ের আদালত। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে দুর্নীতির অভিযোগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় মামলাটি করে দুর্নীতি দমন কমিশন।
               

 
 
 

সিলেট, ২৪ নভেম্বর:
আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে অবিলম্বে গ্রেফতার ও তার ফাঁসির দাবিতে সিলেট নগরীর কোর্ট পয়েন্ট এলাকা দখল করে সমাবেশ করেছে সিলেট মহানগর খেলাফতে মজলিস।

রোববার রাত ১২টার দিকে মাওলানা সিরাজুল ইসলাম সিরাজীর নেতৃত্বে কাজিরবাজার মাদ্রাসা থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে নগরীর কোর্ট পয়েন্টে এসে সমাবেশ করে। এ সময় তারা প্রায় ১ ঘণ্ট কোর্ট পয়েন্ট এলাকায় অবস্থান নিয়ে লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে স্লোগান দেয়।

সমাবেশে বক্তব্য দেন, সিলেট মহানগর খেলাফত মজলিসের সভাপতি মাওলানা সিরাজুল ইসলাম সিরাজী, সহ-সভাপতি মাওলানা শাহ মমশাদ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অথবা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কটুক্তি করলে তাকে গ্রেফতার করা হয় কিন্তু লতিফ সিদ্দিকী আমাদের প্রাণপ্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (স.) ও ইসলাম নিয়ে কটূক্তি করেছে কেন তাকে গ্রেফতার করা হলো না? সে কীভাবে দেশে ফিরলো? সমাবেশে বক্তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে অবিলম্বে লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেফতার ও তার ফাঁসির দাবি জানান।

নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্যে আরো বলেন, সোমবার দৌহীদি জনতাকে সঙ্গে নিয়ে খেলাফত মজলিসের পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষাণা করা হবে।

উল্লেখ্য, একাধিক গ্রেফতারি পরোয়ানা মাথায় নিয়ে রোববার রাত ৮টা ৩০ মিনিটে ইন্ডিয়ান এয়ার লাইন্সের একটি বিমানে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান সাবেক ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী।

মহানবী (স.), হজ ও তাবলীগ জামাত নিয়ে কটূক্তি করায় তার বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন স্থানে মামলা হয়েছে। এসব মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।
       

 
 
 

এসএম সুরুজ আলী/মোঃ মামুন চৌধুরী: বাংলাদেশে প্রথম বাতাস চালিত মোটর সাইকেলের উদ্ভাবক, হবিগঞ্জের রিচি গ্রামের বাসিন্দা নুরুজ্জামান আর নেই। গতকাল ররিবার বেলা ২টার দিকে আশুগঞ্জ এলাকায় মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় তার মৃত্যু ঘটে।
নিহত নুরুজ্জামানের বড় বোনের জামাতা কণ্ঠশিল্পী আকরাম আলী জানান, নুরুজ্জামান ঢাকায় একটি মিটিংয়ে অংশ নেয়ার জন্য রবিবার সকালে বাড়ি থেকে বের হয়ে প্রাইভেটকারে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়। দুপুরে কারটি ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের আশুগঞ্জ উপজেলার সোহাগপুরে পৌঁছামাত্র বিপরীত দিকে থেকে আসা বালু বোঝাই ট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ বাধে। এতে ঘটনাস্থলে প্রাইভেট কারের ৩ যাত্রী নিহত হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় নুরুজ্জামানসহ ৪ যাত্রীকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। বিকেল ৩টার দিকে কর্মরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
নিহত নুরুজ্জামান হবিগঞ্জ সদর উপজেলার রিচি গ্রামের কৃষক সৈয়দ আলী ও রোকেয়া বেগমের ছেলে। তিন ভাই বোনের মধ্যে নুরুজ্জামান সবার ছোট। তিনি চট্টগ্রাম শ্যামলী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অটো মোবাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন। তিনি ছিলেন পবিত্র কোরআনের একজন হাফেজ।
নুরুজ্জামানের উদ্ভাবন ঃ চলতি বছরের ৫ মার্চ হবিগঞ্জ টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজে সংবাদ সম্মেলন করে নিজের উদ্ভাবিত বাতাস চালিত মোটর সাইকেল চালিয়ে প্রদর্শন করে হাফেজ নুরুজ্জামান। তার উদ্ভাবিত মোটর সাইকেল চালাতে তেল-পেট্রোল লাগে না। শুধু বাতাসের উপরে ভর করেই চলবে পরিবেশ বান্ধব এ সাইকেল। নুরুজ্জামানের উদ্ভাবনে খবর হবিগঞ্জের দৈনিক খোয়াইসহ অনেক মিডিয়ায় প্রকাশ ও সম্প্রচার হয়। দেশ বিদেশে এ খবর ছড়িয়ে পড়লে নুরুজ্জামানের উদ্ভাবন কাজে লাগাতে বিভিন্ন মোটর সাইকেল কোম্পানী তার সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখে। হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নুরুজ্জামানকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। এছাড়া এ আবিস্কারের জন্য রিচি গ্রামের বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকেও তাকে দেয়া হয়েছিল বিপুল সংবর্ধনা। নিহত নুরুজ্জামান মৃত্যুর পূর্বে দৈনিক খোয়াই’র এ প্রতিনিধির সাথে আলাপচারিতায় বলেছিলেন আমেরিকার এক কোম্পানী তার উদ্ভাবন কাজে লাগাতে বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের মাধ্যমে নিয়মিত যোগাযোগ করছেন। ওই কোম্পানী ৩৫ কোটি টাকাসহ নুরুজ্জামান ও তার পরিবারকে আমেরিকায় নেয়ার অফার দিয়েছিল। নুরুজ্জামান চেয়েছিলেন কোন কোম্পানীর সাথে শেয়ারে তার উদ্ভাবন নিয়ে ব্যবসা করতে। এ লক্ষ্য নিয়ে তিনি কাজও শুরু করেছিলেন।
নুরুজ্জামানের এই উদ্ভাবন নিয়ে দেশব্যাপী আলোচনা ছড়িয়ে পড়লে কোন মোটর সাইকেল কোম্পানীর রোষানলে পড়ে যাতে অকালে প্রাণ হারাতে না হয়, সেজন্য নুরুজ্জামান সবসময় আত্মীয়-স্বজনসহ বন্ধুদের সাথে রাখতেন। কিন্ত বাংলাদেশ তার এক সম্ভাবনাকে ধরে রাখতে পারলো না। সড়ক দুর্ঘটনা তাকে কেড়ে নিয়েছে।
এমপি আবু জাহিরের শোক ঃ হবিগঞ্জের রিচি গ্রামের উজ্জল নক্ষত্র সম্ভাবনাময় বিজ্ঞানী নুরুজ্জামানের মর্মান্তিক মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন এমপি অ্যাডভোকেট মোঃ আবু জাহির। এক শোক বার্তায় তিনি বলেন, নুরুজ্জামান আমাদের নতুন প্রজন্মের কাছে উদাহারণ সৃষ্টি করেছিল, ইচ্ছা থাকলে কোন প্রতিবন্ধকতাই কাউকে দমিয়ে রাখতে পারেনা। নুরুজাজামানের অকাল মৃত্যু দেশের জন্যই বড় ধরনের ক্ষতি। কারণ দেশের উন্নয়নে এমন মেধাবীদের বড় বেশি প্রয়োজন।
জেলা ওলামা লীগের শোক ঃ বাতাসের সাহায্যে চালিত মোটর সাইকেল আবিস্কারক তরুণ বৈজ্ঞানিক, আল কুরআনের হাফেজ নুরুজ্জামানের মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেছেন জেলা ওলামা লীগ সভাপতি মাওলানা আব্দুল মজিদ, সাধারণ সম্পাদক ক্বারী আলহাজ্ব আব্দুল জলিল, সহ-সভাপতি মাওলানা লুৎফুর রহমান হেলালী, সহ-সভাপতি মোঃ খয়ের উদ্দিন, সহ-সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব সৈয়দ মামুনুর রশিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আমিনুল ইসলামসহ নেতৃবৃন্দ।               

 
 
 

নিউজডেস্ক: ইসলাম নিয়ে কটূক্তি করায় মন্ত্রিসভা ও আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত আবদুল লতিফ সিদ্দিকী রোববার হঠাৎ করেই দেশে ফিরলেন। তার দেশে ফেরার পর থেকেই বিএনপিসহ বিভিন্ন ইসলামি দলগুলো ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। দলগুলো বলেছে, তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা থাকলেও দেশে ফেরার পর তাকে এখনো গ্রেফতার করেনি পুলিশ।
জানা গেছে, লতিফ সিদ্দিকী এখন তার ধানমন্ডির বাসায় অবস্থান করছেন।
তবে একটি বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, আজ সোমবার আদালতে আত্মসমর্পণ করতে পারেন লতিফ সিদ্দিকী।
রোববার রাত ৮ টা ৩০ মিনিটে ইন্ডিয়ান এয়ার লাইন্সের একটি বিমানে করে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান তিনি।
এরপর বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জে কিছুক্ষণ অবস্থান করেন।

জানা যায়, ইমিগ্রেশনে তার পাসপোর্ট জব্দের প্রক্রিয়া চললেও শেষ পর্যন্ত তা করা হয়নি।

রাত ৯টা ২৬ মিনিটে তিনি বিমানবন্দরের অভ্যন্তরীণ বিমান পরিবহনের পথ দিয়ে সিলভার কালারের একটি প্রাইভেটকারে বেরিয়ে যান। গাড়ি নম্বর গ-৩৫-৭৭৮৫। বের হওয়ার সময় ভিআইপি লাউঞ্জ ব্যবহার করেননি লতিফ।

বিমানবন্দরের দায়িত্বরত এপিবিএন এর সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) জানান, আমাদের কাছে কোন গ্রেফতারি পরোয়ানা ছিল না এবং উপর থেকে কোন নির্দেশনা ছিল না, তাই আমরা গ্রেফতার করিনি।
   

 
 
 

হাটহাজারী(চট্টগ্রাম): আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেপ্তার করা না হলে ঢাকা ঘেরাও এবং লাগাতার হরতালের মতো কর্মসূচি ঘোষণার হুমকি দিয়েছে হেফাজতে ইসলাম।
লতিফ সিদ্দিকী দেশে ফিরেছেন এমন খবরে হেফাজত আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী ও মহাসচিব আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী রবিবার রাতে দেয়া এক বিবৃতিতে এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।
তারা বলেন, ‘আমরা বিভিন্ন সূত্রে প্রাপ্ত সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী অবগত হয়েছি  ইসলামের মৌলিক ইবাদত হজ নিয়ে কটূক্তি ও মহানবী সম্পর্কে ধৃষ্টতাপূর্ণ মন্তব্যকারী স্বঘোষিত মুরতাদ আবদুল লতিফ সিদ্দিকী ঢাকা বিমানবন্দরে অবতরণ করেছেন।’
‘আমরা সরকার ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষকের উদ্দেশে বলতে চাই, তাকে সেখান থেকেই গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। ধর্ম অবমাননার অপরাধে তাকে মৃত্যুদণ্ড দিতে হবে’ দাবি দুই হেফাজত নেতার।

বিবৃতিতে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলা হয়, আল্লাহ, রাসুল (সা.) ও ইসলামের এই প্রকাশ্য শত্রুকে নিয়ে যদি ইঁদুর বিড়াল খেলা হয় তাহলে দেশের নবীপ্রেমিক মুসলমানরা ঘরে বসে থাকবে না। তাকে কোনো কৌশলে বাঁচানোর চেষ্টা হলে হেফাজত ইসলাম শিগগিরই দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে।

হেফাজত নেতারা বলেন, ‘প্রয়োজনে ঢাকা ঘেরাও এবং লাগাতার হরতাল কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। হেফাজতের পক্ষ থেকে যখন যে কর্মসূচি ঘোষণা করা হয় তা পালনে সর্বস্তরের মুসলমানদের প্রস্তুত থাকার জন্য আমরা আহ্বান জানাচ্ছি।’               

 
 
 

ঢাকা, ২৩ নভেম্বর:
হজ, মহানবী (সা.) এবং তাবলিগ জামায়াত নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করায় মন্ত্রিসভা থেকে অপসারিত এবং আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত আবদুল লতিফ সিদ্দিকী ভারত থেকে দেশে ফিরেছেন।
রবিবার রাত ৮টা ৪০ মিনিটে এয়ার ইন্ডিয়ার একটি ফ্লাইটে তিনি শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান।
রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত লতিফ সিদ্দিকী বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জে অবস্থান করেন। বিমানবন্দরে প্রয়োজনীয় কাজ সারার পরপরই তিনি বিমানবন্দর ত্যাগ করে গাড়িতে ওঠেন বলে বিমান বন্দরের একটি সূত্রে জানা গেছে।পরে সেখান থেকে বেরিয়ে যান। গ্রেপ্তারি পরোয়ানা থাকলেও তাকে গ্রেপ্তারে কোনো পুলিশি তৎপরতা দেখা যায়নি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে নিউ ইয়র্ক সফরে এক অনুষ্ঠানে লতিফ সিদ্দিকী বলেছিলেন, ‘আমি কিন্তু হজ আর তাবলিগ জামাতের ঘোরতর বিরোধী। আমি জামায়াতে ইসলামীরও বিরোধী। তবে তার চেয়েও হজ ও তাবলিগ জামাতের বেশি বিরোধী।’

তিনি বলেন, ‘এই হজে যে কত ম্যানপাওয়ার নষ্ট হয়। হজের জন্য ২০ লাখ লোক আজ সৌদি আরবে গিয়েছে। এদের কোনো কাম নাই। এদের কোনো প্রডাকশন নাই, শুধু রিডাকশন দিচ্ছে। শুধু খাচ্ছে আর দেশের টাকা দিয়ে আসছে।’

এমন মন্তব্যের পর টেলিযোগাযোগমন্ত্রীকে ‘মুরতাদ’ ঘোষণা দিয়ে তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ করে হেফাজতে ইসলাম। তার বিচারের দাবিতে একদিন হরতালও পালন করে সম্মিলিত ইসলামী দলগুলো।

এছাড়া প্রধান বিরোধী দল বিএনপি তার বক্তব্যকে ‘অবমাননাকর’ আখ্যা দিয়ে তাকে বিচারের মুখোমুখি করার আহ্বান জানিয়ে আসছে।

পদত্যাগে অস্বীকৃতি জানানোয় গত ১২ অক্টোবর লতিফ সিদ্দিকীকে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় থেকেও অব্যাহতি দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। এরপর ২৪ অক্টোবর আওয়ামী লীগ থেকে তাকে বহিষ্কার করা হয়।

এ সময় দেশের বাইরে অবস্থান করছিলেন লতিফ সিদ্দিকী। আর হজ, মহানবী (সা.) এবং তাবলিগ জামায়াত নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার অভিযোগে ইতোমধ্যে দেশজুড়ে তার বিরুদ্ধে বহু মামলা হয়েছে এবং এসব মামলার কয়েকটিতে গ্রেপ্তারি পরোয়ানাও জারি করা হয়েছে।

 
 
 

 চট্টগ্রাম: পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে চট্টগ্রামে জিম্বাবুয়েকে ৬৮ রানে হারিয়েছে টাইগাররা। বাংলাদেশের দেয়া ২৫২ রানের টার্গেটে খেলতে ৪৪.৫ ওভার শেষে সবকয়টি উইকেট হারিয়ে ১৮৩ রান সংগ্রহ করে জিম্বাবুয়ে। সিরিজে ২-০ তে এগিয়ে রইলো স্বাগতিক বাংলাদেশ।

জিম্বাবুয়ে ব্যাটসম্যানদের মধ্যে হ্যামিলটন মাসাকাদজা (০), সিকান্দার রাজা (১৬), ভুসিমুজি সিবান্দা (২১), বেন্ডন টেলর (৮), চাকাবা (৩২), চিগাম্বুরা (৩৮), সোলোমোন মোরে (৫০), পানিয়াঙ্গারা (৮), নিয়ম্বু (০), চাতারা (১)*, কামুঞ্জোজি (০) রান করেন।

প্রথম ওভারেই জিম্বাবুয়ের শিবিরে আঘাত হেনেছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকে বোল্ড করে সাজঘরে ফেরত পাঠিয়েছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক। এরপর নিজের চতুর্থ ওভারে এসে ভুসিমুজি সিবান্দাকে একইভাবে বোল্ড করে সাজঘরে পাঠিয়েছেন। পরবর্তীতে পঞ্চম ওভারে সিকান্দার রাজাকে আউট করেন। আরাফাত সানি নেন চতুর্থ উইকেট। পঞ্চম উইকেট নেন আল-আমিন হোসাইন। সাকব নেন ষষ্ঠ উইকেট। সপ্তম উইকেট নেন আরাফাত সানি। অষ্টম উইকেটে চিগুম্বুরাকে সাব্বির রহমান রান আউট করেন। এরপর নবম ও দশম উইকেট নেন আরাফাত সানি।

রবিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।

এদিকে বাংলাদেশ নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৫১ রান সংগ্রহ করে।
 
দুপুরে চমৎকার সূচনার পর বিপর্যয় নামে বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে। দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও এনামুল হক বিজয় মিলে ১৫৮ তুলেন। ৭৫ রান করে তামিম ফিরে যাওয়ার ১ বল পরেই আউট হন আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান সাকিব আল হাসান।
 
অপর ওপেনার বিজয় ফিরে যান দলীয় ১৭৩ রানের মাথায়। আউট হওয়ার আগে ৮০ রান করেন বিজয়। ২ বল পরে আবারও উইকেট পাওয়ার  উল্লাসে মাতেন জিম্বাবুয়ের বোলার পানিয়াঙ্গারা। ২ বল মোকাবেলা শেষে কোনো রান না করেই ফিরে যান আগের ম্যাচে ঝড়ো ইনিংস খেলা সাব্বির।
 
এর পর মুশফিকের সঙ্গে জুটি গড়েন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। তবে বেশিক্ষণ টিকেনি তাদের জুটিও।  কামুঙ্‌গুজির করা ৪৪তম ওভারে পরপর দুই বলে সাজঘরে ফেরেন মাহমুদুল্লাহ ও মুশফিক। বাংলাদেশের রান তখন ২০৪।
 
৪৭তম ওভারের শেষ বলে চাতার মাপা বলে ব্যাট চালিয়ে বোল্ড হন মাশরাফি।
 
মুশফিক আউটের পর উইকেটে আসেন মুমিনুল। তার সঙ্গে রুবেল মিলে ৫০ ওভার ব্যাটিং করে দলের স্কোর ২৫০ পার করান। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৭ উইকেটে ২৫১ রান।
 
১০ ওভার বোলিং করে ২ উইকেট নেওয়া কামুঙ্‌গুজি জিম্বাবুয়ের পক্ষে সফল বোলার। এছাড়া পানিয়াঙ্গারা ২টি, সিবান্দা ও চাতার ১টি করে উইকেট নেন।
 
এর আগে বাংলাদেশের হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উদ্বোধনী জুটির রেকর্ড গড়েন তামিম-এনামুল। সর্বোচ্চ রেকর্ডটি মেহরাব হোসেন ও শাহরিয়ারের। ১৯৯৯ সালের ২৫ মার্চ ঢাকায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এ দুই ব্যাটসম্যান ১৭০ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়েন। এখন পর্যন্ত এটিই বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ওপেনিং জুটি।
 
৮৭ রানে প্রথম ওয়ানডেতে জিতে ১-০ ব্যবধানে সিরিজে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। এর আগে টেস্ট সিরিজে জিম্বাবুয়েকে হোয়াইট ওয়াশ করেছে টাইগাররা।

বাংলাদেশ দল : তামিম ইকবাল, এনামুল হক বিজয়, মুমিনুল হক, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, সাব্বির রহমান, মাশরাফি বিন মর্তুজা, আল-আমিন হোসেন, আরাফাত সানী ও রুবেল হোসেন।

জিম্বাবুয়ে দল : হ্যামিলটন মাসাকাদজা, সিকান্দার রাজা, ভুসিমুজি সিবান্দা, বেন্ডন টেলর, চাকাবা, চিগাম্বুরা, সোলোমোন মোরে, পানিয়াঙ্গারা, নিয়ম্বু, চাতারা, কামুঞ্জোজি।

 
 
 

সিলেট, ২৩ নভেম্বর
নিউজ ডেস্ক: মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আমি হুসাইন মোহাম্মদ সাগর। সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, মাষ্টার্স ১ম বর্ষের একজন ছাত্র। বংশ পরাক্রমায় আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ রাজনীতির সাথে জড়িত। আমি যখন বুঝতে শিখিনি তখনই বাবা-ভাইদের সাথে গ্রামের মেঠো পথ ধরে ‘জয় বাংলা’ স্লোগান দিয়ে ছোট বাজারে যাই। আমার বড় ভাই বর্তমান ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি। আমি যে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি, আমি সে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের প্রস্তাবিত কমিটির সভাপতি।
এ বিশ্ববিদ্যালয়টি মূলত শিবিরের আস্তানা হিসেবে সিলেটে পরিচিত ছিল। যার প্রতিটি সেমিস্টারে ছিল শিবিরের সাংগঠনিক কমিটি। আজ এই ক্যাম্পাসটি শিবিরমুক্ত। আমি, নিহত সুমন চন্দ্র দাস ও ছাত্রলীগের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে আমরা ক্যাম্পাসটি শিবিরমুক্ত করি। যা তখন বিভিন্ন প্রিন্ট মিডিয়ায় এসেছে। সিলেটের আওয়ামী রাজনীতির সিনিয়র নেতৃবৃন্দের কাছে আমাদের আলাদা গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে।

মাননীয় নেত্রী, গত কয়েকদিন পূর্বে শাবিপ্রবিতে হামলার ঘটনা সম্পর্কে আপনি কিছুটা অবগত আছেন। সেদিন সকাল নয়’টার দিকে আমার কাছে খবর আসে, শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি অঞ্জন দাস এর ওপর হামলা হয়েছে। নিজের একজন সহকর্মী ভাইয়ের ওপর হামলার কথা শুনে আমি, সুমন চন্দ্র দাস সহ ১০/১৫ জন তাৎক্ষণিক ছুটে যাই। গিয়ে সেখানে হতবিম্বল হই। সেখানে পূর্বে থেকে ওত পেতে থাকা সন্ত্রাসীরা বৃষ্টির মত গুলি চালায়। ওদের গুলি আমার সামনে থাকা সুমন চন্দ্র দাসের ওপর লাগে। সে তৎক্ষণাৎ মাটিতে লুটে পড়ে। তাকে আনতে গিয়ে একটি গুলি আমার পেটে আঘাত করে। আরোও কয়েকজন বন্ধু গুলিবিদ্ধ হয়। সুমন চন্দ্র দাস হাসপাতালে আনার সাথে সাথে মারা যায়। আমি সহ আরোও কয়েকজন বন্ধু শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি অঞ্জন দাস আজও গুলিবিদ্ধ হয়ে এখনও হাসপাতালের বেডে শুয়ে নিহত সুমনের যাত্রী হওয়ার প্রহর গুনছি। সুমন যেন আমাদেরই ডাকছে। বলছে বাড়ি থেকে মায়ের হাতের নাড়ু এনেছি। আমি কি একা খাবো, তোরা খাবি না? এই অবস্থায় পুলিশ আমাদের গ্রেফতার করে নজরবন্দী করে রাখে।

মাননীয় নেত্রী, গুলিবিদ্ধ হলাম আমরা। এক সহযোদ্ধাকে সারাজীবনের জন্য হারালাম। আমরা আবার গ্রেফতার। তাতেও দুঃখ নেই। এরচেয়ে বড় দুঃখ হচ্ছে আমাদের কেন্দ্রীয় সভাপতি বদিউজ্জামান সোহাগ ভাই সত্যিকার ঘটনা না জেনে (যা পত্রপত্রিকায়ও এসেছে) তথ্য বিভ্রাটে প্ররোচিত হয়ে সংবাদ সম্মেলনে বলেন নিহত সুমন চন্দ্র দাস ছাত্রলীগের কেউ নয়। তখন আর বেঁচে থাকতে ইচ্ছে করে না প্রাণ প্রিয় নেত্রী। সুমন ছিল একজন মুক্তিযোদ্ধা বাবার সন্তান এবং তিন বোনের একমাত্র আদরের ভাই। সে আমাদের প্রায়ই বলত সে ছাত্রলীগের রাজনীতি করে তার মুক্তিযোদ্ধা বাবার ইচ্ছা ও অনুপ্রেরণাতে। সেজন্য সবসময় মিছিলের অগ্রভাগে নেতৃত্ব দিত। তার মৃত্যু হয়েছে সামনে থাকার জন্য।

মাননীয় নেত্রী, আপনার কাছে প্রশ্ন ছাত্রলীগের কমিটিতে কয়জন কর্মীর স্থান আছে? প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের হাজার হাজার, লাখো লাখো কর্মী রয়েছে। আপনি জানেন, অধিকাংশ কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে দশ বছর পর্যন্ত পার হয়ে যায়। তাই সুমন চন্দ্র দাসের মত ত্যাগী কর্মীরা নেতা হতে পারেনা। এরা কর্মী হয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বাঁচিয়ে রাখে। আর সুমনও আমাদের মত কর্মী দিয়ে সোহাগ ভাইরা নেতা। এজন্য সুমন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হয়ে, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ হৃদয়ে ধারণ করে, সন্ত্রাসীদের গুলিতে জীবন দিয়েও ছাত্রলীগের কর্মী হতে পারল না। আমার মনে হয় তার নামের সাথে দাস না থাকলে হয়তো তাকে শিবির বলে চালিয়ে দেওয়া হত। নেত্রী আপনার কাছে আকুল আবেদন হাসপাতালের বেডে শুয়ে, বাঁচবো কিনা মরবো জানিনা। বাঁচলে পুলিশী নির্যাতন কবে বন্ধ হবে জানিনা। কিন্তু আপনার মুখ থেকে শুনতে চাই কমিটির গঠনের দীর্ঘ সূত্রতায় যে লাখ লাখ কর্মী কমিটিতে স্থান পায়না, তারাও ছাত্রলীগের কর্মী। আমার বন্ধু মারা গেছে, আমরা গুলিবিদ্ধ হয়েছি, পুলিশ নির্যাতন চালাচ্ছে, তাতে কষ্ট নেই। আপনি শুধু সোহাগ ভাইকে একবার বলুন আমরা ছাত্রলীগের কর্মী, বঙ্গবন্ধুর সৈনিক। আমাদের সেই অধিকারটুকু যাতে উনি কেড়ে না নেন।

বিনীত
হুসাইন মোহাম্মদ সাগর
ছাত্রলীগের একজন কর্মী।

 
 
 

সিলেট, ২৩ নভেম্বর:
হাফিজ মজুমদার শিক্ষা ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান সাবেক সংসদ সদস্য হাফিজ আহমদ মজুমদার বলেছেন, বর্তমান বিশ্বকে জ্ঞান ও প্রযুক্তির মাধ্যমে জয় করতে হবে। এজন্য নিজেদের দক্ষতাকে পৃথিবীময় ছড়িয়ে দিতে হবে। দেশের তরুণ প্রজন্মকে যোগ্য করে গড়ে তুলতে না পারলে দেশকে এগিয়ে নেয়া সম্ভব নয়। আমাদের সবচেয়ে দামি সম্পদ হলো মানব সম্পদ। এ মানব সম্পদকে উপযুক্তভাবে শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে হবে। তাদেরকে শিক্ষিত করলে তারা পৃথিবীর সম্পদ হিসেবে গড়ে উঠবে ও দেশের যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠবে। নর্থ ইস্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ-এর উদ্যোগে এইচএসসি উত্তীর্র্ণদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় গোলাপগঞ্জের ড্রিমল্যান্ডে এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়।
নর্থ ইস্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ-এর উপাচার্য প্রফেসর ড. এম খলিলুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. কবির চৌধুরী, নর্থ ইস্ট ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজ চেয়ারম্যান এডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরী, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব:) জুবায়ের সিদ্দিকী।

নর্থ ইস্ট ইউনিভার্সিটি-এর সহকারী অধ্যাপক ও সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান তানভীর আহমদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় ও ইউনিভার্সিটি-এর ডীন প্রফেসর ড. এম এ মজিদের স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে শুরু হওয়া সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আবু হেনা সিদ্দিকী, আবু আশরাফ সিদ্দিকী খসরুসহ ইউনিভার্সিটির বিভাগীয় প্রধান গন বক্তব্য রাখেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর ড. কবির চৌধুরী বলেন, শিক্ষার্থীদেরকে সবসময় নিয়ম-শৃংখলা মেনে চলতে হবে। নিয়ম শৃংখলা মেনে চললে ভবিষ্যত জীবনের শ্রেষ্ট কর্মসূচী হিসেবে তা কাজ করবে। শিক্ষার্থীদেরকে সবসময় স্বপ্ন দেখতে হবে। নিজের মধ্যে বিশ্বাস রাখতে হবে যে তুমি পারবে। তিনি আরো বলেন, উচ্চ শিক্ষার জন্য ভালো একটি প্লাটফর্ম হচ্ছে নর্থ ইস্ট ইউনিভার্সিটি।

উল্লেখ্য, উক্ত অনুষ্ঠানে সিলেটের বিভিন্ন কলেজ থেকে প্রায় ৬ শতাধিক ছাত্র/ছাত্রী অংশ গ্রহণ করেন। ড্রিমল্যান্ড পার্কের সকল রাইড উপভোগ, ওয়েব হল বিনোদন, ডিজিটাল র‌্যাফেল ড্রসহ অনুষ্ঠানে আগত শিক্ষার্থীদের মধ্যে সনদপত্র বিতরণ করা হয় ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

               

 
 
 

সিলেট, ২৩ নভেম্বর:
সিলেট-৩ আসনের এমপি, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী বলেছেন, গভর্ণিংবডির সদস্য ও শিক্ষকদের সমন্বয় সাধনের মাধ্যমে শিক্ষার গুণগতমান বৃদ্ধি করা সম্ভব। শিক্ষকরাই জাতির কান্ডারী। তাদের নিরলস প্রচেষ্টায় শিক্ষাখাতে ব্যাপক সাফল্য অর্জিত হয়েছে। একমাত্র শিক্ষকরাই পারেন শিক্ষার্থীদের দক্ষ মানব সম্পদ হিসেবে গড়ে তুলতে। এ ধারা অব্যাহত রাখতে শিক্ষক, অভিভাবক ও গভর্ণিংবডির সদস্যদের অগ্রণী রাখতে হবে। শিক্ষাক্ষেত্রে বর্তমান সরকারের দিক নির্দেশনাগুলো অনুসরণ করা হলে শিক্ষার গুণগতমান বৃদ্ধি সহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনার সার্বিক উন্নয়ন সম্ভব।
  এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী রোববার সকালে দক্ষিণ সুরমা উপজেলার লালাবাজার স্কুল এন্ড কলেজের গভর্ণিংবডির প্রথম সভায় সভাপতির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ আইউবের রহমান, দাতা সদস্য আলহাজ্ব মোনায়েম খান বাবুল, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ফজলুল গণি চৌধুরী, শিক্ষক প্রতিনিধি মোঃ আতাউর রহমান, মোঃ আব্দুল মালিক, মহিলা প্রতিনিধি ফরিদা ইয়াছমিন, অভিভাবক সদস্য মোঃ ওয়ারিছ আলী, জাহির আলী, মোঃ মোক্তার আলী, আবুল হাসান চৌধুরী, রাজিয়া বেগম।
পরে এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী লালাবাজার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার হল পরিদর্শন করেন।

 
 
 
 
 
কবিতা
শিল্প-সাহিত্
মিডিয়া
ইসলাম
Image Missing
 
 
বিনোদন
বিনোদন
বিচিত্রা
বিচিত্রা
মুক্তমঞ্চ
Image Missing
 
 
খেলাধুলা
খেলাধুলা
স্বাস্থ্য
স্বাস্থ্য
তথ্য-প্রযুক্তি
তথ্য-প্রযুক্তি
 
 
সংবাদদাতা
জীবন সদস্য
সম্পাদক
 
দেশ বিদেশ
 
 
 

সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ:
অক্সফোর্ড ইউনিয়নের বার্ষিক বক্তৃতায় আমন্ত্রিত অতিথিদের সাথে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও একজন আমন্ত্রিত বক্তা ছিলেন। সব কিছুই চূড়ান্ত ছিলো।প্রধানমন্ত্রীর অফিস থেকেও অক্সফোর্ড ইউনিয়নকেও জানানো হয়েছিলো প্রধানমন্ত্রী প্লেনারি সেশনে বক্তৃতা দিবেন। সেভাবেই সব কিছু সাজানো হচ্ছিলো। কিন্তু কেন জানি অক্সফোর্ড ইউনিয়ন এবং প্রধানমন্ত্রীর দফতর এই সফর নিয়ে বেশ গোপনীয়তা  রক্ষা করে চলছিলেন। অক্সফোর্ড ইউনিয়নের সাথে কাজ করেছেন, দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতার আলোকে লন্ডনবাসী নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানালেন,  অক্সফোর্ড ইউনিয়ন থেকে এ বছর সুনির্দিষ্টভাবে প্রধানমন্ত্রীর অফিসে জানানো হয়েছিলো, ৫ই জানুয়ারির নির্বাচন পূর্ববর্তী অবস্থা থেকে পরবর্তী সকল প্রেক্ষাপট সবিস্তারে জানার জন্যে ইউনিয়ন শেখ হাসিনাকে আহবান জানিয়েছিলেন। তাদের বক্তব্য ছিলো, সারা বিশ্বের নেতৃবৃন্দের কাছে ৫ জানুয়ারির নির্বাচন নিয়ে অনেক প্রশ্ন এবং বিতর্ক রয়েছে। সেজন্যে এই আন্তর্জাতিক বক্তৃতার মধ্য দিয়ে শেখ হাসিনা সুনির্দিষ্ট প্রসঙ্গের বিস্তারিত প্রশ্নোত্তর সম্মেলনে তুলে ধরবেন বলে আগে ভাগেই নির্ধারিত হয়েছিলো। কিন্তু অক্সফোর্ডে শেখ হাসিনার বক্তৃতার আগেই প্রধানমন্ত্রীর সব চাইতে প্রভাবশালী উপদেষ্টা এবং সাবেক দক্ষ আমলা এইচ টি ইমাম ৫ জানুয়ারির নির্বাচন প্রসঙ্গে গণ-মাধ্যমে যে খোলামেলা বক্তব্য প্রকাশিত হয়েছে, তাতে বিশ্ব গণ-মাধ্যম তৎক্ষণাৎ লুফে নেয়। কূটনৈতিক চ্যানেলে এইচ টি ইমামের বক্তব্যের ভিডিও ক্লিপ চলে আসে ব্রিটেন সহ প্রভাবশালী সকল ডিপ্লোম্যাটদের কাছে। অক্সফোর্ড ইউনিয়ন কর্তৃপক্ষ ইমামের এই বক্তব্য শ্রবণ করে নড়ে চড়ে বসেন। ইউনিয়ন রিসার্চ টিম মনে করে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে যে বিষয়ের  সুস্পষ্ট বক্তব্য তারা জানতে চেয়েছিলেন, এইচ টি ইমাম সেই বক্তব্য পরিষ্কারভাবেই জানিয়ে দিয়েছেন। ইউনিয়ন তাদের সকল প্রশ্নের জবাব পেয়ে গেছেন- এমন অবস্থায় কর্তৃপক্ষ জরুরী মিটিং এ বসেন এর পর আদৌ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেয়ার সুযোগ আছে কিনা ? বিদ্যমান প্রটোকল ব্যবস্থায় ইউনিয়ন কর্তৃপক্ষ যোগাযোগ করেন ব্রিটিশ ফরেন অফিসের সাথে। ফরেন অফিসের দক্ষ আমলাদের মধ্যস্থতায় বাংলাদেশ হাই কমিশন সহ ঢাকা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে জানিয়ে দেয়া হয় অক্সফোর্ড ইউনিয়নে প্রধানমন্ত্রীর নির্ধারিত বক্তৃতার বিষয় বাতিল করা হয়েছে। সেগুণ বাগিচাস্থ ফরেন অফিস নড়ে চড়ে বসেন। দৌড় ঝাপ চলে ব্রিটিশ হাই কমিশন দূতাবাসের সাথে। ইতোমধ্যে এইচ টি ইমামকে জানিয়ে দেয়া হয় প্রেস কনফারেন্স করে ব্যাখ্যা দিতে যাতে লবিং অব্যাহত রাখা যায়। কিন্তু অক্সফোর্ড ইউনিয়ন তাদের সিদ্ধান্তে অটল। রিসার্চ পলিসি মেকিং মিটিং যে সিদ্ধান্ত পাস হয়েছে, তা আর পূণর্বহালের সুযোগ নেই। কূটনৈতিক চ্যানেলে জানিয়ে দেয়া হয় এ বৎসর আর কিছু করার নেই। আগামী সেশনে বিবেচনা করা হবে।
     
যে কারণে অক্সফোর্ডে বক্তৃতা দেয়া বাতিল হয়ে যায়, সেই একই নেপথ্যের কারণ রোম সম্মেলনেও উত্থাপিত হয়।প্রধানমন্ত্রীর সফর চূড়ান্তকারী টিম তাই বাধ্য হয়ে রোম সম্মেলনও বাতিলের পরামর্শ দেন। কেননা, রোম সম্মেলন আয়োজক দেশের ঊর্ধ্বতন মহল থেকে নেগেটিভ সিগন্যাল চলে আসে ব্রাসেলস দূতাবাসে। তাই তড়ি ঘড়ি করে বিব্রতকর পরিস্থিতি এড়াতে আগ বাড়িয়ে অক্সফোর্ড সফর বাতিলের সাথে রোম সম্মেলন বাতিল প্রধানমন্ত্রীর অফিস থেকে ইস্যু করা হয়। ইমাম ঝড়ে বিশ্বের দুই শক্তিধর দেশে এতো বড় বড় সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে বাংলাদেশকে তুলে ধরার সুযোগ বাতিল হয়ে গিয়েই ক্ষান্ত হয়নি। কারণ পরিস্থিতি এখানেই থামেনি। বিশ্ব কূটনৈতিক অঙ্গনে এ নিয়ে চলছে ব্যাপক খেলা। সরকার দুটানায় পড়ে যায় ৫ তারিখের নির্বাচন নিয়ে এতো কষ্টে ও জাতি সংঘ স্থায়ী প্রতিনিধির মাধ্যমে দেন দরবার করে যে পজিটিভ একটা আবহ তৈরি করা সম্ভব হয়েছিলো, ঝানু আমলা ইমামের এক ফুঁৎকারে সব অর্জন ধূলিসাৎ হয়ে যায়। নতুন করে বিশ্ব অঙ্গনে বাংলাদেশের নির্বাচন আলোচনার টেবিলে চলে আসে। এরই মধ্যে নির্ধারিত রাজনীতির খেলার ছকে ভারতীয় গোয়েন্দাদের ঢাকা সফর সফলভাবে সমাপ্তি হলেও মোদী সরকার বুঝে যায় ৫ তারিখের নির্বাচনের মাধ্যমে যে সংসদ গঠিত হয়েছে, তাকে আর কোনভাবে টিকিয়ে রাখা যাবেনা। যুদ্ধাপরাধ মামলা  এবং টিকফা ইস্যুতে শেখ হাসিনা কোন কোন ক্ষেত্রে আমেরিকার অনুরোধ উপেক্ষা করলেও জঙ্গি এবং যুদ্ধাপরাধ মামলায় মধ্য প্রাচ্যের অনুরোধ রক্ষা করায় ভারত আমেরিকার অনুকূলে হয়ে সুনজরে দেখেনি। ইমাম ঝড়ে দিল্লীও নাখোশ- যার ফলে নেপালে সার্কের সম্মেলনেও দুই প্রধানমন্ত্রীর আনুষ্ঠানিক বৈঠকের সময়সূচী এখনো চূড়ান্ত হয়নি। বিগত সময়ে সরকারের বিরামহীন প্রচারণা ও ভারতীয়দের উজাড় ভাবে দিয়েও বর্তমান বিশ্ব কূটনৈতিক চাপে সরকার এক টাল মাটাল ও অস্থির অবস্থার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। আর তা সামাল দিতে দিল্লীর দক্ষিণ ব্লকের সুপারিশে লতিফ সিদ্দিকীকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কোথাকার পানি কোথায় গিয়ে শেষ হয় সেটাই এখন দেখার বিষয়। কেননা ইতোমধ্যে দক্ষ নাবিকের ন্যায় সব দিক বেশ ভালোভাবেই সামাল দিয়ে এসেছেন শেখ হাসিনা। এবার খোদ ঘরের ভিতরের খুঁটি নড় বড়ে হয়ে গেছে, শেখ হাসিনা কিভাবে সামলাবেন- সেটাই আসল বিষয়।

salim932@googlemail.com
23rd November 2014, London                  

 
 
 
 
 
 

সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ-লন্ডন থেকে:
বিজ্ঞান এবং সভ্যতা যতো এগুচ্ছে ততোই যেন মানুষের মনুষ্যত্ব লোপ পাচ্ছে। যেন মানুষ ক্রমেই এক একজন যন্ত্র দানবের মতোই হয়ে যাচ্ছে। মানবিক মূল্যবোধ, কলিজার টুকরো প্রিয় সন্তানের জন্য মায়ের ভালোবাসা, মমত্ববোধ যেন পশুর ভালোবাসার কাছেও হার মানতে বসেছে। কেননা যেখানে একটি কুকুর কিংবা ব্যাঘ্র বা ভল্লুক তার ছানার জন্য জীবন প্রাণ বাজী রেখে ঝাঁপিয়ে পড়ে সেখানে সৃষ্টির শ্রেষ্ঠ আশরাফুল মাখলুক্কাত এই মানুষ যেন ক্রমেই হয়ে উঠছে দানব, হিংস্র, পশুর চেয়েও অধম।
অস্ট্রেলিয়া ডেইলি মেইল অনলাইন আজ সকালের ভার্সনে এমনি একটি সচিত্র সংবাদ ছেপেছে, যেখানে বলা হয়েছে মাত্র দুদিনের নবজাত শিশুকে মোটর ওয়ের পাশে ড্রেনের মধ্যে চিৎকার শুনে সাইক্লিষ্টরা পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে সেই নবজাত শিশুটিকে উদ্ধার করে।
অস্ট্রেলিয়ার টেলিভিশন চ্যানেল এই সংবাদটি সচিত্র প্রতিবেদন সহ প্রচার করছে এবং নানা প্রশ্নও ছুঁড়ে দিয়েছে দর্শকদের জন্যে।
অস্ট্রেলিয়া ডেইলি মেইল আরো জানায়, রোববার সকাল ৭.৩০ মিনিটের সময় মোটরওয়ে ৭ এর কাছে সিডনির কুয়েকার্স হিল সুবার্ব এর ৮ফিট নিচু ড্রেনের মধ্যে পাশ দিয়ে যাওয়া সাইক্লিষ্টদল শিশুর কান্না শুনে থামেন এবং ড্রেনের মধ্যে হাসপাতালের ব্ল্যাংকিট জড়ানো নবজাতককে কাঁধতে দেখেন। তারা পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে নবজাতক শিশুটিকে উদ্ধার করে ফ্রিজিং টেম্পারেচার থেকে মুক্ত করে বিশেষ মেডিক্যাল এইড সহকারে সিডনির ওয়েস্টমিড চিলড্রেন্স হাসপাতালে নিয়ে যান। পুলিশ পরে জানিয়েছে বর্তমানে শিশুটিকে ঝুঁকি মুক্ত এবং ভালো আছে।

পুলিশ হাসপাতাল রেকর্ড চেক করে জানতে পারে শিশুটি মাত্র দুদিন হলো এই পৃথিবীতে আগমন করেছে। রেকর্ড থেকে তথ্য নিয়ে পুলিশ নবজাতকের মাকে আটক করেছে এবং জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ ষ্টেশন নিয়ে গেছে বলে অস্ট্রেলিয়ান টেলিভিশন চ্যানেল জানিয়েছে। তবে পুলিশ এখনো সেই নারীর নাম প্রকাশ করেনি। শুধু বলেছে নবজাতকের মায়ের বয়স ৩০ বছর। পুলিশ জানিয়েছে তারা হাসপাতালের সিসিটিভি এবং অফিস রেকর্ড থেকে নিশ্চিত হয়েছে আটক কৃত মহিলা নবজাতকের মা।

অস্ট্রেলিয়ার পুলিশ ইনস্পেক্টর ডেভিড লাগার্ড টেলিভিশন চ্যানেলকে বলেছেন, নবজাতকের কোন জখম হয়নি, রোববার রাতের দিকে ঐ এলাকায় হেভি রেইন হওয়া সত্যেও নবজাতক এখন সুস্থ, চিকিৎসা দেয়ার পরে, তার সুশ্রষা চলছে। ডেভিড লাগার্ড আরো বলেন, এটা অত্যন্ত দুঃখজনক যে নবজাতককে আমরা ৮ফিট ড্রেনের নিচ থেকে উদ্ধার করেছি। তদন্ত অব্যাহত বলেও তিনি জানালেন।
 
এক সময় ছিলো যারা অন্যায় ও অবৈধভাবে মেলামেশার মাধ্যমে সন্তান জন্ম দিতেন, এভাবে নবজাতককে রাস্তায় কিংবা ডাস্টবিনে রেখে যেতেন-লোক লজ্জার ভয়ে। কিন্তু সেটা বাস্তবে ছিলোনা, যদিও ছিলো লাখে কিংবা শতাব্দীতে একটি ঘটনা শুনা যেতো। সিনেমা নাটকে এরকম ঘটনা দেখতে অভ্যস্ত হলে আধুনিক উন্নত বিশ্বের অবাধ মেলা মেশা যেখানে আইনি কোন বাধা বা লোকলজ্জার ব্যাপার জড়িত নয়- সেখানে এমন ঘটনা নেহায়েত বিরলই নয়, অমানবিকতার একেবারের তলানিতে এসে ঠেকেছে। বিশ্ব সভ্যতা আর আধুনিকতার নামে মানুষ প্রকৃত মূল্যবোধ আর হিতাহিত জ্ঞান ভুলে গিয়ে ক্রমাগত এক যান্ত্রিকতায় ধাবিত হচ্ছে।এতো নিষ্ঠুর আর হিংস্র হলে সমাজ, সভ্যতা আগাবে কেমন করে ?               

 
 
 
 
 
 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
আফগানিস্তানে খেলার মাঠে আত্মঘাতী বোমা হামলায় কমপক্ষে ৪৫ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরও অন্তত ৬০ জন। তবে নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। খবর- বিবিসি।

রবিবার দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ পাকটিকায় ভলিবল খেলার দর্শকদের ভিড়ে এ আত্মঘাতী হামলার ঘটনা ঘটে।

পাকটিকা প্রশাসনের মুখপাত্র মোখিস আফগান বলেন, পাকিস্তান সীমান্তে ইয়াহিয়াখাইল এলাকায় রবিবার বিকাল এই বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। ভলিবল খেলার দর্শকদের ভিড়ে এই আত্মঘাতী হামলা হয়।

তাৎক্ষণিকভাবে এ হামলার দায় কেউ বা কোনো সংগঠন স্বীকার করেনি। তবে সন্দেহের তীর তালিবানের দিকে।

দেশের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ন্যাটো ও মার্কিন সেনাবাহিনীকে ২০১৪ সালের পরও দেশে রাখতে যেদিন খসড়া প্রস্তাবে সই করছে আফগান সংসদ, ঠিক সেই দিনই এই আত্মঘাতী হামলার ঘটনা ঘটল।

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের পরও ন্যাটো ও মার্কিন সৈন্য আফগানিস্তানে থাকব্তেএই মর্মে একটি খসড়া প্রস্তাব আনে আফগান সংসদ। রবিবার এই প্রস্তাবের পক্ষে-বিপক্ষে ভোটাভোটি হয়েছে।

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ২৩ নভেম্বর  :
 আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য খান টিপু সুলতানের পূত্রবধূ ডা. শামারুখ মাহজাবিন আত্মহত্যা করেছেন বলে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়েছে। তবে এই ময়নাতদন্ত রিপোর্ট তাৎক্ষণিকভাবে প্রত্যাখ্যান করেছেন ডা. শামারুখের পরিবার।

রবিবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সোহেল মাহমুদ জানান, ময়নাতদন্ত পরীক্ষার জন্য যেসব নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল, সবগুলো নমুনার রিপোর্ট আমাদের হাতে এসে পৌঁছেছে। এতে দেখা গেছে, মাহজাবিন আত্মহত্যা করেছেন।

তিনি বলেন, ‘তার হাতে যে তিনটি কাটা দাগ পাওয়া গেছে তার পরীক্ষায় দেখা গেছে সে নিজেই হাত কাটার চেষ্টা করেছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্টটি আমরা ধানমন্ডি থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছি।

রিপোর্ট প্রত্যাখ্যান করে মাহজাবিনের বাবা বলেন, আমি আগেই বলেছিলাম ময়নাতদন্ত রিপোর্ট সঠিক হবে না। এই রিপোর্ট প্রভাবিত করা হবে। আমার আশঙ্কাই সত্যি হল। আমি এই রিপোর্ট মানি না।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘এর আগে সুরতহাল রিপোর্টকেও প্রভাবিত করা হয়েছে।’

উল্লেখ্য, ১৩ নভেম্বর দুপুর ২টার দিকে ডা. শামারুখ মাহজাবিনকে অচেতন অবস্থায় ধানমন্ডির সেন্ট্রাল হাসপাতালে নিয়ে আসেন তার শাশুড়ি জেসমিন আরা বেগম। কর্তব্যরত চিকিৎসক মেহজাবিনকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি ধানমন্ডির ৬ নম্বর রোডের ১৪ নম্বর বাসার তৃতীয়তলার ভাড়া বাসায় শ্বশুর-শাশুড়ি ও স্বামীর সঙ্গে বসবাস করতেন।

এ ঘটনা পর মাহজাবিনের বাবা নূরুল ইসলাম ঘটনার দিনই ধানমন্ডি থানায় টিপু সুলতান দম্পতি ও স্বামীর বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। এই মামলায় টিপু সুলতান দম্পতি জামিনে এবং ছেলে কারাগারে আছে।
               

 
 
 
 
 
 

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে জয়ের জন্য জিম্বাবুয়েকে ২৫২ রানে টার্গেট দিয়েছে বাংলাদেশ। রোববার ৫০ ওভার শেষে ৭ উইকেটে ২৫১ রান করে বাংলাদেশ।
 
দুপুরে চমৎকার সূচনার পর ধস নামে বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে। দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও এনামুল হক বিজয় মিলে ১৫৮ তুলেন। ৭৫ রান করে তামিম ফিরে যাওয়ার ১ বল পরেই আউট হন আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান সাকিব আল হাসান।
 
অপর ওপেনার বিজয়ও ফিরে যান দলীয় ১৭৩ রানের মাথায়। আউট হওয়ার আগে ৮০ রান করেন বিজয়। দুই বল পরে আবারো উইকেট পাওয়ার  উল্লাসে মাতে জিম্বাবুইয়ানরা। দুই বল মোকাবেলা শেষে কোনো রান না করেই ফিরে যান আগের ম্যাচে ঝড়ো ইনিংস খেলা সাব্বির।
 
এর পর মুশফিকের সঙ্গে জুটি বাধেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। তবে বেশিক্ষণ থাকেনি এ জুটিও।  কামুঙ্গুজির করা ৪৪তম ওভারে পরপর দুই বলে সাজঘরে ফেরেন মাহমুদুল্লাহ ও মুশফিক। বাংলাদেশের রান তখন ২০৪।
 
৪৭ তম ওভারের শেষ বলে চাতার মাপা বলে ব্যাট চালিয়ে বোল্ড হন মাশরাফি।
 
মুশফিক আউটের পর উইকেটে আসেন মুমিনুল।  তার সঙ্গে রুবেল মিলে ৫০ ওভার ব্যাটিং করে দলের স্কোর ২৫০ পার করান। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৭ উইকেটে ২৫১ রান।
 
এর আগে বাংলাদেশের হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উদ্বোধনী জুটির রেকর্ড গড়েন তামিম-এনামুল। সর্বোচ্চ রেকর্ডটি মেহরাব হোসেন ও শাহরিয়ারের। ১৯৯৯ সালের ২৫ মার্চ ঢাকায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এ দুই ব্যাটসম্যান ১৭০ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়েন। এখন পর্যন্ত এটিই বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ওপেনিং জুটি।
 
রোববার দুপুর সাড়ে ১২টায় চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।
 
শিশিরের প্রভাব ঠেকাতে সিরিজের শেষ ৪টি ম্যাচ এক ঘণ্টা করে এগিয়ে আনায় আজকের ম্যাচটি সাড়ে ১২ টায় শুরু হয়েছে।
 
৮৭ রানে প্রথম ওয়ানডেতে জিতে ১-০ ব্যবধানে সিরিজে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। এর আগে টেস্ট সিরিজে জিম্বাবুয়েকে হোয়াইট ওয়াশ করেছে টাইগাররা।
               

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ২৩ নভেম্বর :
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক এ কে এম শফিউল ইসলাম হত্যাকাণ্ডে মূল পরিকল্পনাকারীসহ জড়িত অভিযোগে ৬ জনকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।
শনিবার দিবাগত রাতে ঢাকা ও রাজশাহীর বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।
আটককৃতদের মধ্যে হত্যাকা-ের মূল পরিকল্পনাকারী আছেন বলে দাবি করেছে র‌্যাব। আটককৃতরা হলো- মূল পরিকল্পনাকারী রাজশাহীর কাটাখালী পৌর এলাকার আরিফুল ইসলাম মানিক, পিন্টু, টোকাই বাবু, মামুন, কালু ও সবুজ।
প্রসঙ্গত, ১৫ নভেম্বর দুপুরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশে চৌদ্দপাই এলাকায় নিজের ভাড়া বাড়ির কাছে অধ্যাপক শফিউল ইসলামকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।               

 
 
 
 
 
 

ঢাকা, ২৩ নভেম্বর :
বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে  জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় হাইকোর্টের আদেশ চ্যালেঞ্জ করে করা দুটি লিভ টু আপিলের (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) ওপর কাল সোমবার আদেশ দেবেন আপিল বিভাগ।
 
রোববার প্রধান বিচারপতি মো. মোজাম্মেল হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ আদেশের এই দিন ধার্য করেন।
 
এ ছাড়া খালেদা জিয়ার আইনজীবীর সময়ের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলার ক্ষেত্রে করা অপর লিভ টু আপিলের ওপর শুনানি এক দিনের জন্য মুলতুবি করেছেন।
 
এই দুই মামলায় অভিযোগ গঠনের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়া হাইকোর্টে রিট করেন। রিট দুটি হাইকোর্টে খারিজ হয়। এর বিরুদ্ধে চলতি বছর পৃথক দুটি লিভ টু আপিল করেন খালেদা জিয়া। এর মধ্যে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলার ক্ষেত্রে লিভ টু আপিলের ওপর শুনানি শেষ কাল আদেশের দিন ধার্য হয়েছে।
 
এর আগে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় অভিযোগ আমলে নেওয়া বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার করা বাতিল আবেদন হাইকোর্টে খারিজ হয়। এর বিরুদ্ধেও তিনি ২০১২ সালে একটি লিভ টু আপিল করেন।
 
দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় গত ১৯ মার্চ খালেদা জিয়াসহ ৯জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন বিচারক বাসুদেব রায়ের আদালত।
 
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে দুর্নীতির অভিযোগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় মামলাটি দায়ের করে দুর্নীতি দমন কমিশন।
                

 
 
 
 
 
 

ঢাকা,২৩ নভেম্বর:
একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর খালাস চেয়ে আপিল করা হচ্ছে।
রবিবার মাওলানা নিজামীর আইনজীবী এডভোকেট তাজুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ কথা জানান।
তিনি বলেন, মাওলানা নিজামীর আপিল আবেদনের সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। আজ দুপুরে সংশ্লিষ্ট শাখায় আপিল দায়ের করা হবে।
এর আগে গত ২৯ অক্টোবর চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল-১ চারটি অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় নিজামীকে ফাঁসির আদেশ দেয়।
ট্রাইব্যুনালের অন্য সদস্যরা হলেন- বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিচারপতি আনোয়ারুল হক।
নিজামীর বিরুদ্ধে আনীত ১৬টি অভিযোগের মধ্যে আটটি অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে উল্লেখ করে ট্রাইব্যুনাল চারটি অভিযোগে তাকে ফাঁসির আদেশ দেয়।
বাকি চারটি অভিযোগে তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয় ট্রাইব্যুনাল। এছাড়া প্রমাণিত হয়নি এমন আটটি অভিযোগ থেকে তাকে খালাস দেয় ট্রাইব্যুনাল।
প্রমাণিত আটটি অভিযোগ হলো- ১, ২, ৩, ৪, ৬, ৭, ৮ ও ১৬। এর মধ্যে ২, ৪, ৬ ও ১৬ নম্বর অভিযোগে তাকে ফাঁসি দেওয়া হয়। প্রমাণ হয়নি এমন অভিযোগ হচ্ছে- ৫, ৯, ১০, ১১, ১২, ১৩, ১৪ ও ১৫।
উল্লেখ্য, একটি মামলায় ২০১০ সালের ২৯ জুন মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে একই বছরের ২ আগস্ট এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।               

 
 
 
 
 
 

জামান সরকার, হেলসিংকিঃ
এই প্রমবারের মত আগামীকাল (২৪ নভেম্বর) ফিনল্যান্ড বিএনপির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।
অনুষ্ঠিতব্য এই সম্মেলনর আয়োজনে নেতাকর্মীরা এমনটাই তাদের প্রত্যাশা ছিল। সোমবার সন্ধ্যা ৭টায় তিক্কুরিলাস্থ এসডিপি মিলনায়তনে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।
সম্মেলন উদ্বোধন করবেন স্থানীয় পৌরকমিশনার ও ফিনিশ সোস্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা মিঃ রণবীর সদহী। এতে সভাপতিত্ব করবেন সম্মেলন প্রস্ততি কমিটির আহবায়ক ফিনল্যান্ড বিএনপির সাবেক সভাপতি অধ্যাপক আবুল হাসেম চৌধূরী।

এদিকে বিকেলে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি সম্মেলনকে সুন্দর, সার্থক ও সফল করার লক্ষে ফিনল্যান্ড বিএনপির নেতা কর্মীদের সাথে এক বৈঠক করেন। এতে অন্যান্যদের মধয়ে উপস্থিত ছিলেন মোকলেসুর রহমান চপল, মবিন মোহাম্মদ, জামান সরকার, বদরুম ফেরদৌস, আওলাদ হোসেন, মিজানুর রহমান মিঠু, আলাউদ্দিন আহমেদ, গাজী সামসুল আলম, আনোয়ার হোসেন, নিজাম আহমেদ, আবদুল্লাহ আল মাসুদ, মোস্তাক সরকার, ইব্রাহিম খলিল, মঞ্জুর রহমান, প্রদীপ কুমার সাহা, আবুল কালাম আজাদ, আশরাফ উদ্দিন, তাজুল ইসলাম, সাজিদ খান জনি, মনিরুল ইসলাম, সোলেমান মোঃ জুয়েল, সাজ্জাদ মুন্না, নুরুল ইসলাম, সাগর, আরিফুজ্জামান বাবু, মামুন হোসেন, মোঃ জুয়েল, মুকুল হোসেন, তানভীর আহমেদ, ফাহমিদ-উস-সালেহীন, মোহাম্মদ হাসিব উদ্দিন, নাজমুল হাসান, খালেদুল ইসলাম, আজাদ আবুল কালাম, সাজিদ খান জনি ও শাকিল নেওয়াজ।
               

 
 
 
 
 
 

যশোর, ২৩ নভেম্বর : যশোরের অভয়নগর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও নওয়াপাড়া পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোল্লা ওলিয়ার রহমান (৬২) সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হয়েছেন। রবিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, সকালে নওয়াপাড়া বাইপাস সড়কে সন্ত্রাসীরা মোল্লা ওলিয়ার রহমানকে গুলি করে পালিয়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙে নিয়ে যান।

সেখানে অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকরা মোল্লা ওলিয়ার রহমানকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর পরামর্শ দেন। পরে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তিনি মারা যান।               

 
 
 
 
যোগাযোগ করুন..
01712 247 900

dainiksylhet@gmail.com